বিজ্ঞাপন

ঘটনাটি চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে ব্যাপক। মেসির ফ্লাইটের কয়েক ঘন্টা আগে বিমানবন্দরে খবর ছড়িয়ে পড়ে, সেখানে নাকি কে বা কারা বোমা রেখে দিয়েছে। এরপর পুরোপুরি বন্ধ করে দেওয়া হয় বিমানবন্দর।

বাতিল করা হয় একাধিক ফ্লাইট। তবে কিছুক্ষণের মধ্যেই পরিস্থিতি ‘নিয়ন্ত্রণে’ চলে আসে। আবার স্বাভাবিক হয় সবকিছু। বোমা পেতে রাখার বিষয়টি গুজব ছিল কি না, সে ব্যাপারে কিছু জানা যায়নি।

default-image

বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে একটি বিবৃতি দিয়েছে। রোজারিওর স্থানীয় সময় গতকাল বেলা ১১টা ৫০ মিনিটে বোমার আতঙ্ক ছড়ানোর কথা জানায় তারা। তবে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ জানায়নি কীভাবে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলো। ঘটনা যা-ই হোক, কোপাজয়ী মেসির ছুটিতে যাওয়াটা পিছিয়েছে।

ক্যারিয়ারে এই প্রথম আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট জিতেছেন আর্জেন্টাইন তারকা। ব্যাপারটি যেন তাঁর ক্যারিয়ারের বড় এক রহস্যের অবসান। আপাতত ছুটি কাটিয়ে নতুন মৌসুম শুরু করবেন তিনি। তবে সেটি বার্সেলোনার জার্সিতে কি না, বড় প্রশ্ন এখন এটিই।

গত ৩০ জুন বার্সার সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে তাঁর। আর্জেন্টাইন তারকা চাইলে যেতে পারেন যেকোনো ক্লাবে। তবে বেশ কিছুদিন হয়ে গেলেও বার্সেলোনার সঙ্গে মেসির নতুন চুক্তি সই না হওয়ায় সমর্থকেরা বেশ উৎকণ্ঠার মধ্যে আছেন।

default-image

মেসি এ ব্যাপারে নিজে কিছু না বললেও বার্সেলোনার তরফ থেকে জানানো হয়েছে, মেসির সঙ্গে নতুন চুক্তি কেবলই সময়ের অপেক্ষা। শিগগিরই তাঁর সঙ্গে চুক্তি সেরে ফেলা হবে। তবে বার্সার যে আর্থিক অবস্থা তাতে মেসির সঙ্গে নতুন চুক্তিটা কেমন হবে, সেটি দেখার অপেক্ষায় আছেন অনেকেই।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন