আর্জেন্টিনার হয়ে মেসির শিরোপা জয়ের স্বপ্ন অধরা থেকে যাবে এবারও?
আর্জেন্টিনার হয়ে মেসির শিরোপা জয়ের স্বপ্ন অধরা থেকে যাবে এবারও?ছবি: এএফপি

বলা হচ্ছে লিওনেল মেসির কথা। ক্লাব ক্যারিয়ারে শিরোপার ভান্ডার কানায় কানায় পূর্ণ হলেও জাতীয় দলের হয়ে শিরোপার ক্যাবিনেটে ধুলার আস্তর ছাড়া কিছুই নেই সর্বকালের অন্যতম সেরা এই ফুটবলারের। দুই বছর অন্তর অন্তর একেকটা আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট হয়, আর মেসির ভক্তরা আশায় বুক বাঁধেন, এবার বুঝি হবে। এবার বুঝি গেরো খুলবে।

কিন্তু কিসের কী? গত বছর লাতিন আমেরিকার মহাদেশীয় ফুটবলের সবচেয়ে বড় পুরস্কার কোপা আমেরিকা হওয়ার কথা ছিল আর্জেন্টিনা ও কলম্বিয়ার যৌথ আয়োজনে। জাতীয় দলের হয়ে ট্রফি–খরা মেসি ঘরের মাঠেই কাটাবেন, আশা করেছিলেন অনেকেই। কিন্তু মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে সেটি করা যায়নি। টুর্নামেন্ট পিছিয়েছে। এক বছর পিছিয়ে ইউরোর মতো ২০২১ সালে আয়োজন হবে কোপা আমেরিকা, সিদ্ধান্ত এমনই ছিল। কিন্তু আর্জেন্টিনার প্রেসিডেন্ট যা বলছেন, তাতে মেসিরা নিরাশ হতেই পারেন।

এ বছর আদৌ কোপা আমেরিকা হবে কি না, সেটা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন আর্জেন্টিনার প্রেসিডেন্ট আলবের্তো ফের্নান্দেজ। করোনা মহামারির মধ্যে ১১ জুন থেকে ১০ জুলাই পর্যন্ত এক মাস এই টুর্নামেন্টের আয়োজন করা কতটুকু যৌক্তিক, সেটা মাথায় ঢুকছে না প্রেসিডেন্টের।

default-image
বিজ্ঞাপন

রেদিও ১০ কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে দেশটির প্রেসিডেন্ট বলেছেন, ‘আমি কোপা আমেরিকার দর্শকদের হতাশ করতে চাই না। কিন্তু আমাদের বিচক্ষণতার পরিচয় দিতে হবে, সতর্ক থাকতে হবে। আমাদের সময় নিয়ে বিষয়গুলো পর্যবেক্ষণ করতে হবে এবং দেখতে হবে ব্যাপারটা কোথায় দাঁড়ায় (কোপা আমেরিকা আয়োজন করা যায় কি না)।

‘আমি দেখছি আর্জেন্টিনার দলগুলো বাইরের দেশে খেলতে যাচ্ছে না। করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। নতুন নতুন আক্রান্তের খবর শোনা যাচ্ছে। ক্রীড়া কর্তৃপক্ষকে সতর্কতার সঙ্গে কাজ করতে হবে, সিদ্ধান্ত নিতে হবে। আর্জেন্টিনার ক্লাবগুলোর অবস্থা আমাদের জানিয়ে দিচ্ছে, আমরা যদি জাতীয় দলকে দেশের বাইরে পাঠাই, তাহলে কী অবস্থা হতে পারে, বিশেষ করে এমন কোনো দেশে যেখানে করোনাভাইরাসের কারণে মানুষের অবস্থা আরও বেশি খারাপ।’

ভ্যাকসিন নেওয়ার পরও সপ্তাহ দুয়েক আগে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন আলবের্তো ফের্নান্দেজ। গতকাল দেশটিতে আরও কড়াকড়ি করে করোনা বিধিনিষেধ আরোপ করেছেন এই প্রেসিডেন্ট।

এমন অবস্থায় মেসির মন খারাপ না হয়ে যায় না!

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন