বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মাঠেই চলছিল ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া। পরিস্থিতি যখন প্রায় নিয়ন্ত্রণের বাইরে, নিরাপত্তা বাহিনী এসে দাঙ্গার লাগাম টেনে ধরেন। খেলাটি শুরু হয়েছিল স্থানীয় সময় বিকেল ৩টায়। দাঙ্গা-হাঙ্গামার কারণে তা শেষ হয়েছে সাড়ে ৫টার দিকে। তবে খেলা শুরু হওয়ার পর ম্যাচে লাঁস আধিপত্যই বেশি ছিল। ৭৪ মিনিটে তারা পেয়ে যায় গোলও।

default-image

ফ্রেঞ্চ লিগে দর্শক-হাঙ্গামা নতুন কিছু নয়। গত ২২ আগস্ট নিস ও মার্শেই ম্যাচেও দর্শক-হাঙ্গামা হয়। সেই ম্যাচটি অবশ্য আর শুরুই হতে পারেনি। আগামী ২৭ অক্টোবর নিস-মার্শেই ম্যাচটি নতুন করে অনুষ্ঠিত হবে। শাস্তি হিসেবে নিসকে অবশ্য তিনটি ম্যাচ নিজেদের মাঠে খেলতে হবে দর্শকশূন্য অবস্থায়। লিগের শুরুর সপ্তাহে আরও একটি ম্যাচে দর্শক-হাঙ্গামা হয়েছে। মার্শেইয়ের সঙ্গে মঁপিয়ের ম্যাচ ছিল সেটি।

default-image

বারবার ফ্রেঞ্চ লিগে দর্শক-হাঙ্গামায় চিন্তিত হয়ে পড়েছেন ফ্রান্সের ক্রীড়ামন্ত্রী রোক্সানা মারাচিনেআনু, ‘এই মৌসুমটা যেভাবে শুরু হলো, যেভাবে একের পর এক ম্যাচে দর্শক হাঙ্গামা হচ্ছে, আমাদের আয়নায় নিজেদের চেহারা দেখার সময় ঘনিয়ে এসেছে। ক্লাবগুলোকে এটা করতে হবে সমর্থকদের সঙ্গে নিয়েই।’

ম্যাচের ৭৪ মিনিটে লাঁসের জয়সূচক গোলটি করেছেন পোলিশ মিডফিল্ডার ফ্রাঙ্কোভস্কি। একটু আবেগপ্রবণ হয়েই কি না দলের ১২ ম্যাচের জয়খরা কাটানো গোলটি তিনি লাঁসের সমর্থকদের উৎসর্গ করেছেন, ‘আমরা এটা পেরেছি ভক্তদের জন্যই। গত বছর দর্শকেরা মাঠে আসতে পারেননি। এবার মাঠে আসতে পেরে সবাই একটু বেশি আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েছে।’

এ মৌসুমে অবশ্য লিওনেল মেসি, নেইমার, এমবাপ্পেদের পিএসজির কোনো ম্যাচেই দর্শক হাঙ্গামা হয়নি, এটা একটা ভালো দিক। সেই সুনাম সঙ্গে নিয়েই আজ রাতে পিএসজি মাঠে নামবে লিওঁর বিপক্ষে।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন