৫ মিনিটের মাথায় আর্জেন্টাইন উইঙ্গার আনহেল দি মারিয়ার সহায়তায় দলকে এগিয়ে দেন মার্কিনিওস। প্রথমে একটু অগোছালো খেলা খেললেও পরে আস্তে আস্তে নিজেদের গুছিয়ে নিয়েছিল ত্রয়। বিশেষ করে পিএসজির রক্ষণভাগ পেরিয়ে বেশ কয়েকবার হুট করে প্রতি আক্রমণে উঠে যাচ্ছিল তাঁরা।

কিন্তু ২৫ মিনিটে দলের দ্বিতীয় গোল করে ত্রয়ের ওসব চেষ্টা ভেস্তে দেন নেইমার। নেইমারের গোলটা আসে পেনাল্টি থেকে। এই নিয়ে ক্লাবের হয়ে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ৯৯ গোল হয়ে গেল নেইমারের। আর এক গোল পেলেই শতক!

default-image

রেকর্ডের হাতছানি সামনে, এমন অবস্থায় নেইমার গোলের জন্য পরে চেষ্টাও করেছেন অনেকবার। কিন্তু পারেননি। সাধারণত ৪-৩-৩ ছকে খেলা পিএসজি আজ মেসি, নেইমার, এমবাপ্পে, দি মারিয়া সবাইকে এক একাদশে রাখতে গিয়ে ৪-২-৩-১ ছকে খেলেছে, যা পিএসজির খেলায় প্রভাব ফেলেছে একটু হলেও।

যার সুবিধা পুরোপুরি নিয়েছে ত্রয়। নেইমারের গোলের ৫ মিনিট পরেই পর্তুগিজ লেফটব্যাক নুনো মেন্দেসের এক ভুল পাস ধরে ব্যবধান কমান ইকে উগবো।

৩৬ মিনিটে গোলের সুযোগ পেয়েছিলেন মেসি, তাঁর এক শট পোস্টে লাগলে বল চলে যায় নেইমারের কাছে। নেইমার ঠিকঠাক গোল করে শতকের আনন্দে মেতে উঠলেও, পরে দেখা যায়, অফসাইডে ছিলেন এই ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড।

default-image

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই ত্রয়কে সমতায় ফেরান ফরাসি মিডফিল্ডার ফ্লোরাঁ তারদিউ। ডিবক্সের মধ্যে প্রেসনেল কিমপেম্বের এক ফাউলের কারণে পেনাল্টি পেয়ে যায় ত্রয়, সেখান থেকেই ম্যাচে আসে সমতা। ৫৮ মিনিটে নেইমার গোল করলেও গোল হওয়ার সময় এমবাপ্পে ফাউল করেরছিলেন, যে কারণে ভিএআরের সাহায্যে রেফারি বাতিল করে দেন সেই গোল। শেষমেশ ২-২ গোলের ড্র নিয়েই মাঠ ছাড়ে পিএসজি।

পিএজসির জার্সি গায়ে আজ দি মারিয়ার শেষ ম্যাচ ছিল, পিএসজির হয়ে চুক্তি বাড়াচ্ছেন না এই উইঙ্গার। ক্লাবের হয়ে শেষ প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচে জয় পাওয়া হলো না, এই যা!

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন