মেসি নেই তো কী হয়েছে, বার্সা-রিয়াল ম্যাচ এখনো ফুটবলের সেরা

মেসি এবার নেই, রোনালদো তো আগেই অতীত। এল ক্লাসিকো তাতে রঙ হারিয়েছে নিশ্চিতভাবেইছবি: সংগৃহীত

নেইমার বার্সেলোনা ছেড়ে পিএসজিতে গেলেন ২০১৭ সালে, কিন্তু তখনো লিওনেল মেসি আর ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ছিলেন বলে বার্সেলোনা-রিয়াল মাদ্রিদ ম্যাচের জনপ্রিয়তায় ভাটা পড়েনি। কিন্তু ২০১৮ সালে রোনালদোও রিয়াল ছেড়ে জুভেন্টাসে যাওয়ার পর প্রথম ধাক্কা খায় এল ক্লাসিকো। রোনালদো বনাম মেসি দ্বৈরথের আকর্ষণ যে আর ছিল না!

তবু মেসি তো ছিলেন। বার্সেলোনা বনাম রিয়াল তাই আকর্ষণ ধরে রেখেছে। রিয়ালের ডাগআউটেও তখন জিনেদিন জিদান নামের অমোঘ এক আকর্ষণ ছিলেন। কিন্তু এবার বার্সা-রিয়াল ম্যাচের ভাগ্যে কী আছে? এবার যে মেসিও নেই! গত আগস্টে বার্সেলোনা ছেড়ে পিএসজিতে চলে গেছেন ৩৪ বছর বয়সী আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড। রিয়াল ছেড়ে এবারই পিএসজিতে গেছেন সের্হিও রামোসও।

রিয়ালের বর্তমান দলের সবচেয়ে বড় তারকা করিম বেনজেমা অবশ্য তারকার আকর্ষণের এই ভাটাকেও বড় কিছু মনে করছেন না। মেসিহীন প্রথম এল ক্লাসিকো নিয়ে তাঁর কথা, মেসি না থাকলেও রিয়াল-বার্সার দ্বৈরথ ফুটবলে সবচেয়ে বড় ম্যাচই!

মেসি নেই, বেনজেমাই এখন এল ক্লাসিকোর সবচেয়ে বড় আকর্ষণ
ছবি: রয়টার্স

রিয়াল মাদ্রিদ, বার্সেলোনা—নাম দুটিই এখনো আকর্ষণ টানতে যথেষ্ট। তারকা একেবারে নেই, এমনও নয়। রিয়ালে বেনজেমা আছেন, সঙ্গে হ্যাজার্ড, ভিনিসিয়ুস, বেল, মদরিচরাও আছেন। ডাগআউটে জিদানের বদলে অবশ্য এই মৌসুমে কার্লো আনচেলত্তি এসেছেন।

ওদিকে ঋণের ভারে জর্জরিত বার্সা পালাবদলের করুণ চিত্রটাই দেখছে! বার্সার তারকা বলতে এখন মেম্ফিস ডিপাই, ফ্রেঙ্কি ডি ইয়ং, জেরার্ড পিকের মতো নামগুলোই আসবে। গত মৌসুমে লুইস সুয়ারেজ বার্সা ছেড়েছেন, এই মৌসুমে মেসির পর আঁতোয়ান গ্রিজমানও ক্লাব ছেড়ে গেছেন এই মৌসুমে। সের্হিও আগুয়েরো এই মৌসুমে বার্সায় গেলেও এখন পর্যন্ত চোটের কারণে কোনো ম্যাচ খেলতে পারেননি। আনসু ফাতি, পেদ্রি, গাভি, নিকো গঞ্জালেসদের তরুণ প্রতিভা বলা যায়, তারকা বলা বাড়াবাড়ি।

এই নামগুলোই বোঝায়, এল ক্লাসিকোর তারকাখ্যাতিতে কেমন ভাটা পড়েছে! কোথায় মেসি-নেইমার-সুয়ারেজ বনাম রোনালদো-বেনজেমা-বেল ত্রিরত্নের লড়াই হতো, মাঝমাঠে দাবার খেলা হতো জাভি-ইনিয়েস্তাদের সঙ্গে ক্রুস-মদরিচদের। সেখানে এখন ম্যাচের ‘মুখ’ খুঁজতে রিয়ালের বেনজেমার বিপরীতে কাউকে পাওয়া যায় না। ক্রুস-মদরিচরাও এখনো বয়সের ভারে ন্যুব্জ!

বেনজেমা মৌসুমের শুরু থেকে এবার আছেন চোখধাঁধানো ফর্মে
ছবি: রয়টার্স

ইএসপিএনের সাংবাদিক ইউলিয়ান লরেনসের সঙ্গে বিশেষ সাক্ষাৎকারে মেসি চলে যাওয়ায় ম্যাচটা আগ্রহ হারাবে কি না, প্রশ্নে তবু বেনজেমা বলছেন, ‘আমার চোখে ম্যাচটা এখনো একই রকম আকর্ষণজাগানিয়া। এখনো ফুটবলের ইতিহাসের সেরা ম্যাচ এটিই।’

রিয়াল-বার্সার ঐতিহাসিক আকর্ষণের দিকটিই সামনে নিয়ে আসছেন ফরাসি স্ট্রাইকার, ‘কোন খেলোয়াড়েরা ছিল, কারা ক্লাবে যোগ দিল বা কারা চলে গেল, তাতে কিছু আসে যায় না। রিয়াল-বার্সা দৈরথ ঐতিহাসিক। নাম বদলাতে পারে। এর আগে এখানে (জিনেদিন) জিদান, রোনালদিনিও, রোনালদো (নাজারিও), (সামুয়েল) ইতোরাও তো খেলতেন। রিয়াল-বার্সা সব সময় রিয়াল-বার্সাই থাকবে।’

২৪ অক্টোবরের ম্যাচের আগে ফর্মের বিচারে রিয়াল আর বার্সা অবশ্য আছে দুই মেরুতে। এখন পর্যন্ত লিগে ৮ ম্যাচে ১৭ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার শীর্ষে রিয়াল। বার্সা ম্যাচ খেলেছে ৭টি, তাতে ১২ পয়েন্ট নিয়ে তারা আছে লিগের পয়েন্ট তালিকার ৯ নম্বরে! আন্তর্জাতিক ম্যাচের বিরতির আগে আতলেতিকো মাদ্রিদের কাছেও ২-০ গোলে হেরেছে বার্সা।

বিবিসি বনাম এমএসএন—বছর চারেক আগেও এল ক্লাসিকোর মূল আকর্ষণ ছিল এই দুই ত্রয়ীর লড়াই
ছবি: মার্কা

বেনজেমা অবশ্য এখানে সুবিধার কিছু দেখছেন না, ‘ওদের বিপক্ষে খেলার কোনো ভালো সময় নেই। বার্সার মতো একটা দল, বা যেকোনো ভালো দলই হোক, তারা একটা ম্যাচে খারাপ খেললেও পরের ম্যাচে ঘুরে দাঁড়াতে পারে। এটা এমন এক ম্যাচ, যেটিকে হালকাভাবে নেওয়ার সুযোগ নেই, সেটা তারা এখন পর্যন্ত ভালো না খেললেও।’

বার্সার মাঠে ২৪ অক্টোবর এল ক্লাসিকোতে নামার আগে লিগে এই সপ্তাহে রিয়ালের ম্যাচ নেই। আগামী মঙ্গলবার চ্যাম্পিয়নস লিগে শাখতার দোনেৎস্কের বিপক্ষে খেলবেন বেনজেমারা। তবে বার্সেলোনা এই সপ্তাহেও লিগে নামছে, কাল নিজেদের মাঠে তারা খেলবে পয়েন্ট তালিকার আট নম্বরে থাকা ভ্যালেন্সিয়ার বিপক্ষে। এরপর বুধবার নিজেদের মাঠেই চ্যাম্পিয়নস লিগে দিনামো কিয়েভের বিপক্ষে খেলবে বার্সা।