বিশ্বের সেরা দুই তারকা।
বিশ্বের সেরা দুই তারকা।ছবি: টুইটার

মেসি, না রোনালদো? কে বেশি ভালো ফুটবলার? কে শ্রেষ্ঠ? এই তর্কে বছরের পর বছর ধরে বিভক্ত হয়ে আছে ফুটবল-বিশ্ব। দুই মহাতারকার ভক্তকুল পারলে কথার তুবড়িতে, কিংবা কিবোর্ডে ঝড় তুলে প্রিয় তারকাকে সেরা বানিয়ে দেয়। মুখ দেখাদেখি বন্ধ হওয়ার ঘটনাও ঘটে হামেশাই।

default-image

কিন্তু যাদের জন্য এত লড়াই, তাঁরা নিজেরা কী এভাবে নিজেদের মধ্যকার সম্পর্ককে নষ্ট করেন? বছরের পর বছর ধরে দুজন বিভিন্নভাবে বুঝিয়ে দিয়েছেন, লড়াইটা মাঠের ভেতরেই। নব্বই মিনিটের পর রেফারির বাঁশি বাজলেই আর দশজন মানুষের মতো তাঁদের সম্পর্কও সুস্থ-স্বাভাবিক হয়ে যায়। ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর বান্ধবী জর্জিনা রদ্রিগেজের কথাই চিন্তা করুন, গতকাল এমন এক কাজ করেছেন, যাতে আবারও বোঝা গেছে, মাঠের ভেতরের প্রতিদ্বন্দ্বিতার আঁচ মেসি-রোনালদোর কেউই ব্যক্তিগত জীবনে লাগতে দেন না।

বিজ্ঞাপন

মেসির বড় ছেলে থিয়াগোর জন্মদিন ছিল গত সোমবার, ২ নভেম্বর। জন্মদিন উপলক্ষে থিয়াগোর মা, মেসি-পত্নী আন্তোনেল্লা রোকুজ্জো ইনস্টাগ্রামে একটা পোস্ট দিয়েছিলেন। স্বাভাবিকভাবেই পোস্টে উপচে পড়েছিল মাতৃস্নেহ, 'শুভ জন্মদিন থিয়াগো। তুমি যে আমাদের কাছে কী, সেটা বোঝানোর মতো পর্যাপ্ত শব্দ আমার কাছে নেই। সব সময় মুখে হাসি নিয়ে থেকো, নিজের আনন্দ সবার মধ্যে ছড়িয়ে দাও। আমরা তোমাকে ভালোবাসি। আমি তোমাকে আজীবন এভাবে চুমো দিয়েই যাব, তোমার ভালো লাগুক বা না লাগুক!' পোস্টে দুটি ছবি জুড়ে দিয়েছিলেন আন্তোনেল্লা, দুটি ছবিতেই বার্সেলোনার নতুন জার্সি পরিহিত অবস্থায় দেখা যায় থিয়াগোকে। আর একটা ছবিতে ছিলেন আন্তোনেল্লা নিজেও।

default-image

সে ছবি এসে শুভকামনা জানিয়ে গেছেন। তিনি আর কেউ নন, ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর বান্ধবী, রোনালদোর সন্তানের মা - জর্জিনা রদ্রিগেজ। থিয়াগোকে শুভকামনা জানিয়ে পোস্টে মন্তব্যের জায়গায় তিনি লেখেন, ‘কত তাড়াতাড়ি ওরা বড় হয়ে যাচ্ছে, তাই না? শুভ জন্মদিন!’ সে মন্তব্যের জবাবেও দুটি ‘লাভ’ ইমোজি দিয়ে দুই পরিবারের পারস্পরিক ভালোবাসা ও সম্প্রীতির কথাই যেন আরেকবার মনে করিয়ে দিয়েছেন আন্তোনেল্লা!

মন্তব্য পড়ুন 0