বিজ্ঞাপন

দুজনই নিয়মিত চ্যাম্পিয়নস লিগ খেলছেন সেই ২০০৫/০৬ থেকে। তবু এ দুজনের গ্রুপ পর্বে দেখা হয়নি কখনো। গত এক দশকে সেটা না হওয়ার কারণটা জানাই। দুজনেই খেলেছেন স্পেনের দুই প্রতিদ্বন্দ্বী ক্লাবে। চ্যাম্পিয়নস লিগের নিয়ম অনুযায়ী এক দেশের দুই ক্লাব গ্রুপ পর্বে কখনো একই গ্রুপে জায়গা পায় না। ফলে ২০০৯/১০ থেকে ২০১৭/১৮ মৌসুম পর্যন্ত মেসি ও রোনালদোর গ্রুপ পর্বে মুখোমুখি হওয়ার সুযোগই ছিল না। এর আগে রোনালদো যখন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে ছিলেন তখনো এ দুজনের গ্রুপ পর্বে দেখা হয়নি কখনো। একবার ফাইনাল ও আরেকবার সেমিফাইনালে দেখা হয়েছিল তাঁদের।

রোনালদোর রিয়াল পর্ব শেষ হওয়ার পর আর একই দেশ নিয়মের ঝামেলা নেই। এ দুজনের গ্রুপ পর্বে দেখা হওয়ার সুযোগ তবু সৃষ্টি হয়নি। কারণ, উয়েফার আরেকটি নিয়ম হলো, শীর্ষ ছয় লিগের চ্যাম্পিয়ন দল সব সময় এক নম্বর পটে থাকবে।

default-image

২০১৭/১৮ মৌসুমে নিজেদের লিগে চ্যাম্পিয়ন হিসেবে সেখানে ছিল মেসির বার্সেলোনা ও রোনালদোর জুভেন্টাস। ফলে একই গ্রুপে পড়ার কোনো সুযোগ ছিল না দল দুটির। পরের মৌসুমেও একই কাণ্ড। রোনালদো ও মেসি নিজ নিজ দলকে লিগ চ্যাম্পিয়ন করে চ্যাম্পিয়নস লিগে এনেছেন, দুই দলের আবারও ভিন্ন যাত্রা নিশ্চিত হয়েছে।

গত মৌসুমেও লিগ জিতেছে রোনালদোর জুভেন্টাস। কিন্তু রিয়াল মাদ্রিদের কাছে শিরোপা খুইয়েছে মেসির বার্সেলোনা। ফলে জুভেন্টাস এবার এক নম্বর পটে থাকলেও বার্সেলোনার জায়গা হয়েছে দুই নম্বর পটে। যেহেতু এক নম্বর পটে রিয়াল ও সেভিয়া আছে, বার্সেলোনা আর বাকি ছয় দলের গ্রুপেই পড়তে পারে। সে ক্ষেত্রে অন্তত ১৬.৬৬ শতাংশ সম্ভাবনা তো আছেই জুভেন্টাস ও বার্সেলোনার মুখোমুখি হওয়ার। গ্রুপ পর্বেই মেসি-রোনালদোর মুখোমুখি হয়ে যাওয়ার।

এমনিতেও চ্যাম্পিয়নস লিগে এ দুজনের দেখা হয় না বহুদিন হলো। সেই কবে ২০১১ সালে সেমিফাইনালে দেখা হয়েছিল মেসি-রোনালদোর! এ বার সে অপেক্ষা ফুরোবে?

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন