বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন
বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিনছবি: প্রথম আলো

বাংলাদেশের ফুটবলে অনলাইন বেটিংয়ের অভিযোগ নিয়ে চলছে তোলপাড়। এ নিয়ে এত দিন কিছু না বললেও আজ বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন মুখ খুলেছেন। স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, ম্যাচ পাতানোর ব্যাপারে ‘জিরো টলারেন্স’ তিনি।

কমলাপুরের শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে চলছে অনূর্ধ্ব-১৫ জাতীয় দল গঠনের লক্ষ্যে খেলোয়াড় বাছাই। তিন দিনব্যাপী এ বাছাইয়ের উদ্বোধন করতে এসেছিলেন বাফুফে সভাপতি।

সেখানেই তিনি বলেছেন, ‘ম্যাচ পাতানো, বর্ণবাদ ও মাদকের ব্যাপারে আমার জিরো টলারেন্স।’

বিজ্ঞাপন

প্রিমিয়ার লিগের পাঁচটি ম্যাচে গড়াপেটা, স্পট ফিক্সিং ও অনলাইন বেটিংয়ের অভিযোগ উঠেছে। এর মধ্যে আরামবাগের তিনটি ম্যাচ আর ব্রাদার্সের দুটি।

আরামবাগের ম্যাচগুলো মোহামেডান স্পোর্টিং, শেখ রাসেল ক্রীড়াচক্র ও আবাহনী লিমিটেডের বিপক্ষে। ব্রাদার্সের সন্দেহজনক ম্যাচ দুটি আবাহনী লিমিটেড ও বসুন্ধরা কিংসের বিপক্ষে।

default-image

কাল চিঠি দিয়ে অভিযোগের জবাব দিয়েছে ব্রাদার্স। আজ সন্ধ্যায় চিঠির জবাব দিয়েছে আরামবাগও। এ ব্যাপারে আরামবাগ ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ইয়াকুব আলী বলেন, ‘আমরা বলেছি, আমাদের কোনো কিছু জানা নেই। যদি আপনাদের কাছে কোনো কর্মকর্তা বা খেলোয়াড়ের ব্যাপারে তথ্য–প্রমাণ থাকে, আপনারা ব্যবস্থা নিতে পারেন। আমরাও চাই এ বিষয়ে কেউ জড়িত থাকলে খুঁজে বের করা হোক।’

অনলাইন বেটিং বিষয়টি বাংলাদেশের জন্য নতুন। এর প্রতিকারের জন্য এএফসির সঙ্গে সমন্বয় করে এগোতে চায় বাফুফে।

এ ছাড়া নিজেদের পাতানো ম্যাচ শনাক্তকরণ কমিটি শক্তিশালী করা হবে বলে জানিয়েছেন বাফুফে সাধারণ সম্পাদক আবু নাইম, ‘স্বাধীন, নিরপেক্ষ তিনজন আছেন পাতানো ম্যাচ শনাক্তকরণ কমিটিতে। এএফসির গাইডলাইন অনুযায়ী আরও কয়েকজন যোগ করা হবে, যাতে কমিটিটা শক্তিশালী হয়।’

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন