সংযুক্ত আরব আমিরাতের মালিকানাধীন ম্যানচেস্টার সিটি এক যুগ ধরেই ইউরোপিয়ান ফুটবলের পরাশক্তি হয়ে ওঠার চেষ্টা করছে। দুর্দান্ত এক স্কোয়াড গড়েছে তারা। গত ১১ বছরে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ জিতেছে তারা। তর্ক সাপেক্ষে বিশ্বের সবচেয়ে কঠিন লিগে এমন আধিপত্য নিশ্চিতভাবেই দলটির শক্তির কথা জানান দেয়।

এই দলই ইউরোপে খেলতে গেলে বারবার ব্যর্থ হচ্ছে। ২০১০ সালের আগে মাত্র একবার চ্যাম্পিয়নস লিগ খেলেছিল দলটি। সেই দলই নতুন মালিকের অধীন টানা ১১ বার চ্যাম্পিয়নস লিগ খেলেছে। এর মধ্যে তাদের সর্বোচ্চ সাফল্য শুধু ২০২১ চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনাল। এর বাইরে দুবার সেমিফাইনাল খেলেছে। কিন্তু চ্যাম্পিয়নস লিগের দেখা পাচ্ছে না দলটি।

২০১২ সালের জুনের পর থেকে ইউরোপের শীর্ষ পাঁচ লিগে সবচেয়ে বেশি ব্যয় করেছে দলটি। গত ১০ বছরে দলবদলের বাজারে ১৬৯ কোটি ৯০ লাখ ইউরো ব্যয় করেছে ক্লাবটি। কিন্তু সেটা মাঠের সাফল্যে অনূদিত হচ্ছে না। কাল আরও একবার ইউরোপে ব্যর্থ হওয়ার পর তাই খোঁচা খেতে হয়েছে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে মজার মজার সব পোস্ট করার জন্য বিখ্যাত স্পার্তাক মস্কো। রুশ এই ক্লাব এবার ইউরোপা লিগের শেষ ষোলোতে চলে গিয়েছিল। শেষ ষোলো পার হলে বার্সেলোনার সঙ্গে দেখা হতে পারে, এমন সম্ভাবনা নিয়ে দারুণ সব পোস্ট করেছিল ক্লাবটি। কিন্তু ইউক্রেনে রাশিয়ার যুদ্ধ ঘোষণার পর উয়েফা রাশিয়ার সব ক্লাবকে বাদ দেওয়াতে কপাল পুড়েছে তাদের। তাতে কিছুদিন একটু চুপচাপ থাকলেও আবার ‘ফর্মে’ ফিরেছে তারা।

কাল সেমিফাইনাল শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই টুইটে পেপ গার্দিওলার দলকে খোঁচা দিয়েছে দলটি, ‘নিশ্চিত করে জানাচ্ছি, ম্যানচেস্টার সিটির সমান চ্যাম্পিয়নস লিগ ট্রফি আমাদের।’ চ্যাম্পিয়নস লিগে রুশ ক্লাবটির সর্বোচ্চ সাফল্য একবার সেমিফাইনাল খেলা। আর দুবার কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছিল ক্লাবটি। কিন্তু ইউরোপের শীর্ষ লিগ জেতার সুযোগ হয়নি তাদের, ঠিক সিটির মতোই।

এমন খোঁচা টুইটারে দারুণ সাড়া ফেলেছে। সাধারণত একেকটি পোস্টে হাজারের নিচে প্রতিক্রিয়া পায় স্পার্তাক। শুধু একবার বার্সেলোনাকে খোঁচা দেওয়া এক টুইটে ৪০ হাজারের বেশি প্রতিক্রিয়া দেখা গিয়েছিল। আর কাল সিটির উদ্দেশে করা সে টুইটে এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ২ লাখ ২০ হাজার ভালোবাসা পেয়েছে। ৩৪ হাজার বার রিটুইট হয়েছে।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন