বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

আজ শনিবার সকালে আসামের শিবসাগর থেকে উদ্ধার করা হয়েছে ম্যারাডোনার পরা এক ঘড়ি। দুবাই পুলিশের সঙ্গে একসঙ্গে কাজ করে উবলো ঘড়িটা খুঁজে বের করার খবর জানা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ৩৭ বছর বয়সী এক ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ।

খবরে জানা গেছে, শিবসাগর জেলার ওয়াজিদ হুসেইন নামের এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। দুবাইয়ে ম্যারাডোনার বিভিন্ন স্মৃতিস্মারক রাখা হতো, এমন এক স্থানে নিরাপত্তারক্ষী হিসেবে কাজ করতেন ওয়াজিদ। অভিযোগ উঠেছে, একটি সেইফে থাকা ম্যারাডোনার বেশ কিছু জিনিস চুরি করেছেন ভারতীয় এই ব্যক্তি। এর মধ্যে এই বিশেষ উবলো ঘড়িটাও ছিল।

default-image

এ ব্যাপারে আসামে মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা টুইট করে জানিয়েছেন, ‘আন্তর্জাতিক সহযোগিতার অংশ হিসেবে আসাম পুলিশ দুবাই পুলিশের সঙ্গে একসঙ্গে কাজ করে কিংবদন্তি ফুটবলার প্রয়াত ডিয়েগো ম্যারাডোনার একটি উবলো ঘড়ি খুঁজে বের করেছে। এবং ওয়াজিদ হুসেইন নামে একজনকে গ্রেপ্তার করেছে। আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

default-image

এদিকে আসাম পুলিশের মহাপরিচালক ভাস্কর জয়তী মহন্ত একাধিক টুইট করে এই খবর জানিয়েছেন, ‘দামি উবলো ঘড়ি...ম্যারাডোনা...দুবাই...আসাম পুলিশ। মনে হচ্ছে, এলোমেলো সব শব্দ, তাই না? কিন্তু আজ সবগুলো শব্দ সুন্দরভাবে এক হয়ে গেছে এবং দুবাই পুলিশ ও আসাম পুলিশের মধ্যে আন্তর্জাতিক সুসম্পর্কের চমৎকার এক গল্প সৃষ্টি করেছে। দুবাই পুলিশের মাধ্যমে কেন্দ্রীয় সংস্থাকে জানানো হয়েছিল, ওয়াজিদ হুসেইন নামের একজন ম্যারাডোনার স্বাক্ষরিত একটি সীমিত সংস্করণের উবলো ঘড়ি চুরি করে আসামে পালিয়ে এসেছে। আজ ভোর চারটায় আমরা শিবসাগরের বাসা থেকে ওয়াজিদকে গ্রেপ্তার করেছি। ঘড়িটা তাঁর কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে।’

খবরে জানানো হয়েছে, ২০১৬ সাল থেকে দুবাইয়ে কাজ করতেন ওয়াজিদ। তিন দিন আগেই তিনি দেশে ফিরেছেন। ২০১০ বিশ্বকাপে মাত্র ২৫০টি উবলো ম্যারাডোনা বিগ ব্যাং ঘড়ি বিক্রি করা হয়েছিল। আর্জেন্টিনার পতাকার রংয়ের ডায়াল, ম্যারাডোনার জার্সি নম্বর, ছবি ও স্বাক্ষরযুক্ত এই ঘড়িগুলোর দাম প্রায় ২২ লাখ টাকা।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন