উরুগুয়ে তারকা আতলেতিকো মাদ্রিদে আর বেশি দিন নেই। লা লিগায় আর ৫ ম্যাচ খেলবে আতলেতিকো। এরপরই সম্ভবত ইউরোপে যতি টানতে পারেন সুয়ারেজ। জুনে তাঁর সঙ্গে আতলেতিকোর দুই বছরের চুক্তির মেয়াদ ফুরাবে।

মাদ্রিদের ক্লাবটির সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর কোনো ইঙ্গিত দেননি সুয়ারেজ। এরই মধ্যে গুঞ্জন উঠেছে, ডেভিড বেকহামের ইন্টার মায়ামিতে যোগ দিতে পারেন ৩৫ বছর বয়সী এই তারকা। হিসাবটা পরিষ্কার। বয়স বেড়ে যাওয়ায় যেহেতু গতি কমেছে, দক্ষতা এবং গোলের গন্ধও আগের মতো পান না সুয়ারেজ। ইউরোপের শীর্ষস্থানীয় লিগে এভাবে টিকে থাকা যেহেতু কঠিন, তাই যুক্তরাষ্ট্রের তুলনামূলক সহজ লিগে খেলে বুট তুলে রাখাই নিরাপদ। ক্যারিয়ারের শেষ বেলায় অন্তত সহজে আয়ের সুযোগটা থেকে যায়।

default-image

কিন্তু হিগুয়েইনের দাবি, সবার এই ধারণাটা এখন ভুল। যুক্তরাষ্ট্রের মেজর লিগ সকার (এমএলএস) যথেষ্ট প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হয়ে উঠেছে। এসি মিলান ও চেলসিতে ধারে ইউরোপে শেষ দুই মৌসুম ভালো কাটেনি হিগুয়েইনের। ২০২০ সালে এমএলএসের দল ইন্টার মায়ামিতে যোগ দিয়েও পায়ের তলায় মাটি শক্ত করতে পারেননি আর্জেন্টাইন সাবেক এই স্ট্রাইকার। সে বছর ৯ ম্যাচে করেন ১ গোল।

গত বছর ৩০ ম্যাচে করেন ১২ গোল এবং এই মৌসুমে ৫ ম্যাচে করেছেন ২ গোল। এমএলএসকে হিগুয়েইন যতটা সহজ ভেবেছিলেন, তাঁর কাছে অন্তত ততটা সহজ হয়ে যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষস্থানীয় লিগ ধরা দেয়নি।

ইতালির সাবেক স্ট্রাইকার ক্রিস্টিয়ান ভিয়েরির সঙ্গে অনলাইনে লাইভস্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্ম ‘টুইচ’–এ এই বিষয় নিয়ে কথা বলেন হিগুয়েইন, ‘এখানে (যুক্তরাষ্ট্রে) এসে ভেবেছিলাম, সিগারেট ফুঁকতে ফুঁকতে খেলতে পারব, কিন্তু তা হয়নি, লিগ এখানে কঠিন। ইতালির ক্লাব নাপোলি ও জুভেন্টাসে তিন মৌসুম করে খেলেছেন হিগুয়েইন। এমএলসের সঙ্গে ইতালিয়ান সিরি আ–র মিল দেখেন মায়ামি তারকা, ‘এমএসএল অনেকটাই ইতালির মতো। ইংল্যান্ড ও স্পেনে ভালো করা সহজ কিন্তু ইতালিয়ান লিগ সম্পর্ক কোনো ধারণা না থাকলে ভুগতে হবে।’

default-image

জুভেন্টাসের হয়ে তিনবার লিগ ও নাপোলির হয়ে ইতালিয়ান কাপ জিতেছেন হিগুয়েইন। ২০২০ সালে বার্সেলোনা ছেড়ে আতলেতিকোয় যোগ দিয়ে প্রথম মৌসুমেই লিগ জেতান সুয়ারেজ। স্পেনের সংবাদমাধ্যমগুলো মোটামুটি নিশ্চিত, আতলেতিকোয় মেয়াদপূর্তির পর বেকহামের মায়ামিতেই যোগ দেবেন সুয়ারেজ।

২০১৫ সালে যুক্তরাষ্ট্রে বার্সার হয়ে প্রাক্‌–মৌসুম সফরে গিয়েছিলেন সুয়ারেজ। তখন তিনি বলেছিলেন, ক্যারিয়ারের শেষ দিকে এমএলএসে যোগ দিলে সেটি মোটেই খারাপ সিদ্ধান্ত হবে না, ‘সেদিন সান ফ্রান্সিসকো দিয়ে হাঁটার সময় কেউ আমাকে চিনতে পারেনি। দেশটা অনেক বড়, আর ফুটবলও এখানে প্রধান খেলা না। বেশ ঢিলেঢালা থাকা যায়, তাই সিদ্ধান্তটা খারাপ হয় না।’

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন