গোলের পর বসুন্ধরার ব্রাজিলিয়ান তারকা রবসন ডি সিলভা
গোলের পর বসুন্ধরার ব্রাজিলিয়ান তারকা রবসন ডি সিলভা ছবি: বাফুফে

বিশাল আকারের লাল পতাকা নিয়ে এক দল দর্শক মাতিয়ে রাখলেন বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামের পশ্চিম গ্যালারি। বসুন্ধরা কিংসের এই সমর্থকেরা আজ রাতে খুশিমনেই বাড়ি ফিরেছেন।

বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে প্রিমিয়ার লিগের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা ৩-০ গোলে হারিয়েছে রহমতগঞ্জকে। ১টি করে গোল করেছেন ব্রাজিলিয়ান রবসন ডি সিলভা ও তৌহিদুল আলম। রবসনের গোলটি পেনাল্টি থেকে পাওয়া। অন্য গোলটি আত্মঘাতী। ৪ ম্যাচে পুরো ১২ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষেই আছে বসুন্ধরা কিংস।

প্রথম ম্যাচে বারিধারাকে ২-০ গোলে হারায় বসুন্ধরা। ওই ম্যাচে গোল করেন রাউল বেসেরা ও মোহাম্মদ ইব্রাহিম। কিন্তু পরের দুটি ম্যাচেই গোল পেয়েছেন রবসন। পুলিশের বিপক্ষে ২-১ গোলে জয়ের ম্যাচে ১টি।

এরপর কুমিল্লায় সর্বশেষ ম্যাচে ব্রাদার্সকে হারানোর দিনেও একমাত্র গোলদাতা ছিলেন তিনি। সব মিলিয়ে বসুন্ধরার চার ম্যাচের মধ্যে তিনটিতেই গোল পেলেন রবসন। মূলত রবসন প্রথাগত উইঙ্গার হলেও তাঁকে কোচ অস্কার ব্রুজোন খেলাচ্ছেন আক্রমণাত্মক মিডফিল্ডার হিসেবে।

বিজ্ঞাপন

বসুন্ধরা কিংসের আক্রমণভাগের অন্যতম অস্ত্র আর্জেন্টিনার রাউল বেসেরা পুরো ম্যাচে আজ খেলতে পারেননি। চোট নিয়ে শুধু মাঠই নয়, স্টেডিয়ামই ছাড়তে হয়েছে তাঁকে। অ্যাম্বুলেন্সে করে হাসপাতালে নেওয়া হয় বেসেরাকে।

ম্যাচের ২৮ মিনিটে বল নিয়ে রহমতগঞ্জের বক্সে ঢুকছিলেন বেসেরা। কিন্তু বল ছাড়াই তাঁকে বক্সের মধ্যে অহেতুক ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেন রহমতগঞ্জের গোলরক্ষক রাসেল মাহমুদ। রেফারি আনিসুর রহমান রাসেল মাহমুদকে হলুদ কার্ড তো দিয়েছেনই, সঙ্গে সঙ্গে পেনাল্টিরও বাঁশি বাজিয়েছেন।

default-image

এরপর পেনাল্টি থেকে ৩২ মিনিটে গোল করেন রবসন। যদিও বাঁ দিকেই ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন রাসেল, কিন্তু শেষ রক্ষা করতে পারেননি। এরপর ম্যাচের ৩৭ মিনিট পর্যন্ত মাঠে ছিলেন রাউল। কিন্তু একপর্যায়ে ঘাড়ের ব্যথাটা বেড়ে যাওয়ায় তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। রাউলের বদলি হিসেবে মাঠে নামেন তৌহিদুল আলম। ম্যাচে একটি গোল করে রাতটাও রাঙিয়ে নিয়েছেন কক্সবাজারের এই ফুটবলার।

প্রিমিয়ার লিগ চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা মাঠে অবশ্য খুব বেশি দাপুটে জয় তুলতে পারছে না। প্রতিটি ম্যাচেই গোলের চেষ্টায় ব্যস্ত থাকতে দেখা যায় ফরোয়ার্ডদের। আজও গোলের চেষ্টা করেছে বটে। কিন্তু রহমতগঞ্জের অতি রক্ষণাত্মক কৌশলের জন্য গোল পেতে কষ্ট হয়েছে।

বিরতিতে যাওয়ার ঠিক আগে দ্বিতীয় গোল পেয়ে যায় বসুন্ধরা কিংস। অবশ্য এই গোলে যতটা না কৃতিত্ব বসুন্ধরা কিংসের ফরোয়ার্ডদের, ততটাই দায় রহমতগঞ্জের ডিফেন্ডার মাহমুদুল হাসানের।

ডান প্রান্ত থেকে তৌহিদুল একটা ক্রস বাড়িয়ে দেন মাহবুবুর রহমানের উদ্দেশে। কিন্ত বলটি রহমতগঞ্জের গোলরক্ষক রাসেল মাহমুদের হাতে লেগে বেরিয়ে যায়। সেটি ক্লিয়ার করতে গিয়ে নিজেদের বক্সে বল ঢুকিয়ে দেন মাহমুদুল।

এবারের লিগে আজই প্রথম বসুন্ধরা কিংস মাঠে নামায় তাদের ফিনল্যান্ডে জন্মগ্রহণ করা ফুটবলার তারিক কাজীকে। ইব্রাহিমের জায়গায় মাঠে নামেন তিনি।

default-image

ম্যাচের শেষ দিকে বসুন্ধরা পেয়েছে জয় নিশ্চিত গোল। ৮৫ মিনিটে জোনাথন ফার্নান্দেসের ক্রস থেকে তৌহিদুল গোলটা করতে না পারলে নিজেকে হয়তো ক্ষমাই করতে পারতেন না। রহমতগঞ্জের গোলরক্ষক রাসেল ততক্ষণে পোস্ট ছেড়ে বেরিয়ে যাওয়ায় হেলতে দুলতে প্লেসিংয়ে গোল করেন তৌহিদুল।

রহমতগঞ্জ চার ম্যাচের মধ্যে তিনটিতেই হেরেছে। একমাত্র পয়েন্ট পেয়েছে সাইফ স্পোর্টিংয়ের সঙ্গে ড্র করে।

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন