বিজ্ঞাপন
default-image

জিদানের বিদায়ের গুঞ্জনটা এমন সময়ে তৈরি হচ্ছে, যখন লিগের শিরোপার শ্বাসরুদ্ধকর লড়াইয়ে রিয়াল মাদ্রিদ লড়ছে নগরপ্রতিদ্বন্দ্বী আতলেতিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে। গতকাল গেল লিগের ৩৭তম সপ্তাহ, তাতে ৬৮ মিনিটে ডিফেন্ডার নাচোর গোলে বিলবাওয়ের মাঠে ১-০ ব্যবধানে জিতে রিয়াল মাদ্রিদ শিরোপার লড়াইকে নিয়ে গেছে লিগের শেষ দিন পর্যন্ত।

এ জয়েই শিরোপা লড়াইয়ের নাটাই রিয়াল মাদ্রিদের হাতে উঠে যেত, যদি না আতলেতিকো মাদ্রিদের মাঠে ৮৮ মিনিটে আতলেতিকোর হয়ে গোলটা করতেন লুইস সুয়ারেজ। সেই গোলে কাল নিজেদের মাঠে ওসাসুনাকে ২-১ গোলে হারিয়েছে লিগশীর্ষে থাকা আতলেতিকো। লিগের শেষ দিনটা হয়ে উঠেছে আরও জমজমাট।

শিরোপার লড়াই এখন শুধু মাদ্রিদের দুই দলের মধ্যেই। গতকালের আগপর্যন্ত বার্সেলোনাও ছিল লড়াইয়ে—কাগজে-কলমেই বটে, তবে কাল নিজেদের মাঠে সেলতা ভিগোর কাছে ২-১ গোলে হেরে আনুষ্ঠানিকভাবে শিরোপার লড়াই থেকে ছিটকে গেছে বার্সা। ৩৭ ম্যাচ শেষে এখন পয়েন্ট তালিকার তিনে থাকা বার্সার পয়েন্ট ৭৬।

রিয়াল মাদ্রিদ ৮১ পয়েন্ট নিয়ে ২ নম্বরে, আতলেতিকোর পয়েন্ট ৮৩। শেষ ম্যাচে আতলেতিকো পয়েন্ট হারালে আর রিয়াল মাদ্রিদ জিতলেই শুধু শিরোপা যাবে রিয়াল মাদ্রিদের ঘরে।

এই যখন শিরোপাদৌড়ের অবস্থা, সেখানে রিয়াল মাদ্রিদের ডাগআউটে আগামী মৌসুমে কে থাকছেন না থাকছেন, তা নিয়ে আলোচনায় মনোযোগ সরিয়ে দিতে রাজি নন জিদান। গত সপ্তাহে স্প্যানিশ সব পত্রিকাসহ ইউরোপের ফুটবলভিত্তিক অনেক সংবাদমাধ্যমই জানায়, এ মৌসুমের শেষে যে রিয়াল মাদ্রিদ ছাড়ছেন জিদান, সেটা তিনি মাদ্রিদের খেলোয়াড়দের জানিয়েও দিয়েছেন। ধারণা করা হচ্ছিল, মাদ্রিদে দ্বিতীয় দফায় ফিরে যে শারীরিক ও মানসিক ধকল গেছে, সেটি থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্যই সরে যাচ্ছেন ‘জিজু’।

কিন্তু জিদান এখন যেভাবে সবকিছু অস্বীকার করছেন, তাতে গুঞ্জন কতটুকু থামবে তা নিয়ে সংশয় আছে। কাল বিলবাওকে হারানোর পর নিজের বিদায়ের গুঞ্জন নিয়ে যা বললেন জিদান, তা শুনে মনে হতেই পারে, জিদান পুরোপুরি অস্বীকার করছেন না, শুধু আপাতত গুঞ্জনটাকে বাড়তে দিতে চাইছেন না। ক্লাব ছাড়ার গুঞ্জন কাল অস্বীকার করেননি জিদান, শুধু বলেছেন, তিনি এ মুহূর্তে খেলোয়াড়দের কাছে বিদায়ের কথা বলেননি।

default-image

কী বলেছেন মাদ্রিদ কোচ? ‘আমি কীভাবে এ মুহূর্তে আমার খেলোয়াড়দের বলি যে আমি চলে যাচ্ছি? আমরা শিরোপার জন্য সবটুকু ঢেলে দিয়ে লড়ছি, আর আমি এ সময়ে বলব ‘‘তা বলি কি, আমি কিন্তু আর থাকছি না’’? ক্লাবের বাইরের লোকজন যা ইচ্ছা তা-ই বলতে পারে, কিন্তু আমি আমার খেলোয়াড়দের এমনটা কখনোই বলব না।’

তবে জিদান অস্বীকার করলেও ইউরোপের ফুটবলভিত্তিক সংবাদমাধ্যম জানাচ্ছে, তিনি মাদ্রিদ ছাড়ছেন। মাদ্রিদভিত্তিক দুই বড় স্প্যানিশ ক্রীড়াদৈনিক মার্কা ও এএস বলছে, জিদানের বিকল্প কে হবেন, তা নিয়ে এরই মধ্যে ভাবনাচিন্তা শুরু করে দিয়েছেন রিয়াল মাদ্রিদ সভাপতি ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ। ফুটবলবিষয়ক ব্লগ ইএসপিএনও দিয়েছে একই খবর।

ছেড়ে যাওয়ার আগে জিদান অবশ্য বেশ চাপেই আছেন। লিগ না জিতলে এ মৌসুমে কোনো শিরোপাই জেতা হবে না মাদ্রিদের। সে ক্ষেত্রে মাদ্রিদের কোচ হিসেবে দুই দফায় এই প্রথম কোনো মৌসুম শিরোপাহীন কাটবে জিদানের।

default-image

২০১৬ সালের জানুয়ারিতে প্রথম দফায় কোচ হয়ে এসে আড়াই বছরে টানা তিনটি চ্যাম্পিয়নস লিগসহ নয়টি শিরোপা জিতেছিলেন। ২০১৮ চ্যাম্পিয়নস লিগ জিতিয়েই বিদায় বলে দেওয়া জিদান আবার কোচ হয়ে ফিরেছেন ২০১৯ সালের মার্চে। এরপর গত মৌসুমে দলকে লিগ ও স্প্যানিশ সুপারকাপ জিতিয়েছিলেন। এ মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিফাইনাল থেকে বাদ পড়া মাদ্রিদ স্প্যানিশ সুপারকাপেও সেমিফাইনালে হেরে গেছে, স্প্যানিশ কাপে বাদ পড়েছে শেষ ৩২-এ।

এবার লিগটা নাটকীয়ভাবে জিতে গেলে সে ক্ষেত্রে মৌসুম শেষে ক্লাব ছাড়লেও হয়তো কোনো অতৃপ্তি থাকবে না জিদানের!

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন