বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ফেব্রুয়ারিতে শেষ ষোলো প্রথম লেগে ঘরের মাঠে ১-০ গোলে জিতেছিল পিএসজি। মার্চে রিয়ালের মাঠে ফিরতি লেগে ৩-১ গোলের হারে শেষ ষোলো থেকে বিদায় নেয় ফরাসি ক্লাবটি। হ্যাটট্রিক করেন রিয়াল তারকা করিম বেনজেমা।

এরপর প্রায় দুই মাস কেটে গেলেও সেই হারের ক্ষত ভুলতে পারেননি মারকিনিওস। পিএসজির ব্রাজিলিয়ান এই ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডারের অবশ্য সেই হার ভুলতে না পারার পেছনে আরও একটি কারণ আছে। বেনজেমার একটি গোলে তাঁর ভুল পাসের ‘অবদান’ও ছিল। স্বাভাবিকভাবেই নিজে ভুল করেছেন, দলও হেরেছে, এমন ম্যাচ ভোলা কঠিন।

আর পিএসজির কাছে এই হার তো আরও যন্ত্রণার। পেট্রো ডলারে সমৃদ্ধ হওয়ার পর থেকে ইউরোপ-সেরা হওয়ার চেষ্টা করছে ক্লাবটি। সে জন্য মেসি, এমবাপ্পে, নেইমারদের এনে কাঁড়ি কাঁড়ি টাকা ঢালতেও পিএসজির কাতারি মালিক দ্বিধা করেননি। কিন্তু চ্যাম্পিয়নস লিগ জয়ের স্বপ্ন এবারও অধরা থেকে যাওয়ায় খেপেছেন পিএসজির সমর্থকেরা।

দলের অন্যতম বড় দুই তারকা মেসি ও নেইমার দুয়োর শিকার হয়েছেন সমর্থকদের। মারকিনিওসের তা ভালো লাগার কথা নয়, যেহেতু তিনি নিজেই তো এই হার হজম করতে পারছেন না।

সংবাদমাধ্যম কানাল প্লুসকে মারকিনিওস বলেছেন, ‘ম্যাচটা ভোলা কঠিন। এমন ম্যাচের পর আমাদের (খেলোয়াড়) কেমন লেগেছে, তা বোঝাতে বাজে ভাষা ব্যবহারের জন্য দুঃখিত—সবার আগে আমাদের মনে হয়েছে বিষ্ঠার মধ্যে পড়েছি।’

হারের পরদিন থেকে কেমন লেগেছে, সেটাও বোঝালেন ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার, ‘ম্যাচটা আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ছিল। পরদিন পানি খেতেও অসুবিধা হয়েছে। বেনজেমা দুর্দান্ত খেলেছে, প্রথম লেগে দুজনের মধ্যে লড়াইটা আমি জিতেছি। কিন্তু ফিরতি লেগে সে জিতেছে।’

default-image

মারকিনিওস মনে করেন, ফিরতি লেগে নিজের খেলার প্রতি তাঁর আরও মনোযোগী হওয়া উচিত ছিল, ‘ম্যাচে সম্ভবত আমার মনোযোগ আরও বাড়ানো উচিত ছিল। তবে অনেক সময় দল এবং অন্যদের জন্য বেশি বেশি ভাবতে ও করতে ইচ্ছা করে।’

চ্যাম্পিয়নস লিগ থেকে বিদায়ের যন্ত্রণা অবশ্য লিগ জিতে ভোলার চেষ্টা করছে পিএসজি। এবার নিজেদের দশম লিগ শিরোপা জিতেছে পিএসজি। লিগে দারুণ খেলা মারকিনিওস পিএসজিতে চুক্তির মেয়াদ শেষ করায় আশাবাদী, ‘এ মুহূর্তে আমি পিএসজি ছাড়তে চাই না।’ ২০২৪ সালে পিএসজির সঙ্গে মারকিনিওসের বর্তমান চুক্তির মেয়াদ ফুরোবে।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন