আজ চ্যাম্পিয়নস লিগে মাঠে নামছে রিয়াল মাদ্রিদ।
আজ চ্যাম্পিয়নস লিগে মাঠে নামছে রিয়াল মাদ্রিদ।ছবি: রয়টার্স

ইউরোপিয়ান সুপার লিগ আয়োজন করতে চাওয়া দুই দল আজ মুখোমুখি চ্যাম্পিয়নস লিগে। সেমিফাইনালের প্রথম লেগে রিয়াল মাদ্রিদের মাঠে খেলতে যাবে চেলসি। আগামী বছর থেকে চ্যাম্পিয়নস লিগ খেলতে চায়নি যারা, যারা অধিক অর্থের আশায় সুপার লিগ আয়োজন করতে চেয়েছিল, তেমন দুই দলের এমন ম্যাচ স্বভাবতই আগ্রহ বাড়িয়ে দিচ্ছে।

উয়েফা সভাপতি আলেক্সান্দর সেফেরিনের চোখে এ ম্যাচের দুই দল অবশ্য আলাদা। ১২টি দল খেলতে চাইলেও প্রবল প্রতিবাদের মুখে প্রথমে নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছিল ইংলিশ ছয় দল। এরপর নাম কাটিয়ে নিয়েছে আতলেতিকো ও দুই মিলানের ক্লাব। ওদিকে এখনো সুপার লিগের স্বপ্ন দেখছে রিয়াল মাদ্রিদ, বার্সেলোনা ও জুভেন্টাস। সেফেরিন তাই বলেই দিয়েছেন, তাঁর চোখে এখন এই ক্লাবগুলো তিন ভাগে বিভক্ত। এক দল দোষী হলেও ভুল স্বীকার করতে জানে, যেমন চেলসি। ওদিকে আছে এমন এক দল, যারা এখনো ভুল স্বীকার করছে না, যেমন রিয়াল।

এমন দুই দলের মধ্যে চেলসির মতো দলগুলো যে তাঁর কাছে বেশি গুরুত্ব পাবে, সেটি প্রকাশ্যেই বলে দিয়েছেন সেফেরিন। এমনকি শাস্তির ক্ষেত্রে রিয়াল-বার্সার ক্ষেত্রে একটু বেশি কড়া হবে বলেছেন উয়েফা সভাপতি। তাই আজকের ম্যাচের আগে প্রশ্ন উঠেছে, ম্যাচের সিদ্ধান্তগুলো রিয়াল তাদের পক্ষে পাবে তো। রেফারিংয়ের ‘অনিচ্ছাকৃত ভুলে’র শিকার হবে না তো ১৩ বারের চ্যাম্পিয়নরা?

বিজ্ঞাপন
default-image

এমন ষড়যন্ত্রতত্ত্বের কথা শুনে হেসে উড়িয়ে দেওয়ার কথা স্বাভাবিক। সমর্থকদের সামাজিক মাধ্যমে আলোচনার খোরাক বলেই ভাবার কথা। কিন্তু গতকাল চেলসি কোচ টমাস টুখেলকে এসব নিয়েই কথা বলতে হয়েছে! ডাচ রেফারি ড্যানি ম্যাক্কেলিকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে প্রথম লেগের এই ম্যাচের। আজকের ম্যাচে এই রেফারিকে উয়েফা রিয়ালের বিপক্ষে সিদ্ধান্ত দিতে নির্দেশ দিতে পারে কি না, এমন প্রশ্নে টুখেল কড়া জবাব দিয়েছেন।

টুখেলের সোজা কথা, এভাবে কারও নৈতিকতা নিয়ে প্রশ্ন তোলা অনুচিত, ‘আমি রেফারি, উয়েফা ও এই প্রতিযোগিতায় শতভাগ বিশ্বাস করি। এই পর্যায়ের খেলায় উয়েফা যে রেফারিকেই পাঠাক না কেন, তাদের আমি এক শতভাগ বিশ্বাস করি। আমাদের সেরা রেফারি দরকার, কারণ কাজটা খুব কঠিন। আমি বিশ্বাস করি রেফারি সম্ভাব্য সেরা উপায়ে ম্যাচ পরিচালনা করবেন। আমার মনে হয় না, ক্রীড়া রাজনীতির কারণে কোনো সুবিধা বা অসুবিধা হবে এখানে। আমি এ ব্যাপারে ভাবতেও চাই না। কারণ আমার মনে হয় না এমন কিছু সম্ভব।’

default-image

সেমিফাইনালের রেফারি ম্যাক্কেলিকে নিয়ে হালকা একটু বিতর্ক আগেও ছিল। তাঁর প্রথম দুটি গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচেই কিছু প্রশ্নবিদ্ধ সিদ্ধান্ত দিয়েছে। ২০১৮ বিশ্বকাপ ও ২০১৯ চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনালে ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারির দায়িত্বে ছিলেন এই ডাচ। দুটো ম্যাচেই বিজয়ী দল প্রশ্নবিদ্ধ হ্যান্ডবল পেনাল্টি পেয়েছিল। তবে ২০২০ ইউরোপা লিগের ফাইনালের মাঠেই দায়িত্ব পালন করা ম্যাক্কেলির কোনো সিদ্ধান্ত নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়নি। আর এবারের চ্যাম্পিয়নস লিগেই রিয়াল মাদ্রিদের এক ম্যাচে দায়িত্বে ছিলেন এই রেফারি। আতালান্তার বিপক্ষে সে ম্যাচে রিয়ালের পক্ষে একটি পেনাল্টি দিয়েছিলেন তিনি।

রিয়াল মাদ্রিদ কোচ জিনেদিন জিদানও সুপার লিগে অংশ নিতে চাওয়ায় চ্যাম্পিয়নস লিগে শাস্তি দেওয়া হতে পারে, এমন কথাকে ফালতু বলে উড়িয়ে দিয়েছেন। আগামী চ্যাম্পিয়নস লিগ থেকে রিয়াল, বার্সেলোনা বা জুভেন্টাসকে বাদ দেওয়া হতে পারে—এমন কথাকেও গ্রহণযোগ্য মনে হচ্ছে না জিদানের। যদিও সেফেরিন এমন ইঙ্গিত দিয়ে রেখেছেন। আগামী নির্বাহী কমিটির মিটিংয়ে তিন ক্লাবকে কড়া শাস্তি দেওয়ার পক্ষে তিনি।

সে শাস্তির শুরুটা আজকের ম্যাচ দিয়ে করতে চাইবেন না তো সেফেরিন?

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন