default-image

ইউরোপীয় ফুটবলে শীতকালীন দলবদল চলছে এখন। মাসজুড়ে ক্লাবগুলো পছন্দের খেলোয়াড় কিনে নিজেদের দুর্বলতা ঢাকতে চাইবে, অপ্রয়োজনীয় খেলোয়াড় ছেড়ে খরচ কমাতে চাইবে। ইউরোপের প্রধান লিগগুলোর দলবদল চলবে চলতি মাসের শেষ দিন পর্যন্ত। হাজারো দলবদলের গুঞ্জনে মুখর ইউরোপীয় ফুটবলপাড়া।

সম্ভাব্য দলবদলের জন্য বাতাসে ভাসছে অনেক খেলোয়াড় ও তাঁদের প্রতি আগ্রহী ক্লাবের নাম। সাম্প্রতিক গুঞ্জনগুলো একনজরে দেখে নেওয়া যাক!

রিয়ালে যাচ্ছেন না ফরাসি মিডফিল্ডার?

রেনেঁর তরুণ ফরাসি মিডফিল্ডার এদুয়ার্দো কামাভিঙ্গার দিকে রিয়াল মাদ্রিদের নজর বহুদিন ধরে। করোনার বাধা না দিলে হয়তো এত দিনে সাদা জার্সি গায়েও চড়াতেন এই তরুণ। কিন্তু ওই যে রিয়ালের আর্থিক টানাটানি, তা এখনো রেনেঁতে রেখে দিয়েছে কামাভিঙ্গাকে। এখন শোনা যাচ্ছে, রিয়ালের জন্য বসে থাকতে চান না এই মিডফিল্ডার। বরং রেনেঁর সঙ্গেই চুক্তি নবায়ন করতে চান।

বিজ্ঞাপন
default-image

বার্সার পছন্দের খেলোয়াড়কে চাইছে আর্সেনালও

এরিক গার্সিয়ার প্রতি বার্সেলোনার আগ্রহের কথা নতুন নয়। করোনাকালীন টাকা–পয়সা নিয়ে টানাটানি না থাকলে সিটি ছেড়ে এই স্প্যানিশ ডিফেন্ডার হয়তো এর মধ্যেই বার্সায় ফিরতেন। সেটা হয়নি। আগামী জুনে সিটির সঙ্গে চুক্তি শেষ হওয়া গার্সিয়াকে এরপরই বিনা মূল্যে দলে আনতে চায় বার্সা, এমনটাই পরিকল্পনা এখন। কিন্তু শুধু বার্সাই নয়, গার্সিয়াকে পাওয়ার দৌড়ে যোগ দিয়েছে আর্সেনালও। আর্সেনালের ম্যানেজার মিকেল আরতেতা আগে সিটির কোচ পেপ গার্দিওলার সহকারী ছিলেন, সেখান থেকেই গার্সিয়ার প্রতিভা সম্পর্কে জানেন। কোনো কারণে বার্সা যদি গার্সিয়াকে নিতে না-ও পারে, সে ক্ষেত্রে এই স্প্যানিশ ডিফেন্ডারের পরবর্তী ‘ঘর’ হতে পারে আর্সেনাল।

প্রিমিয়ার লিগে ফেরার ইচ্ছা বেনিতেজের

বছর দেড়েক আগে চীনে পাড়ি জমিয়েছিলেন লিভারপুল, চেলসি, রিয়াল মাদ্রিদ, ইন্টার মিলান, নিউক্যাসল ইউনাইটেড ও ভ্যালেন্সিয়ার সাবেক কোচ রাফায়েল বেনিতেজ। যোগ দিয়েছিলেন দালিয়ান প্রফেশনাল ক্লাবে। কিন্তু সে চাকরি ছেড়ে দিয়ে আবারও ইউরোপে ফেরার পরিকল্পনা করছেন তিনি। ইউরোপীয় সংবাদমাধ্যমগুলো অনুমান করছে, স্কটল্যান্ডের সেল্টিকে ফিরতে পারেন তিনি। তবে ক্যারিয়ারের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সময়গুলো লিভারপুল ও চেলসির ম্যানেজার হয়ে কাটানো বেনিতেজ আবারও ফিরতে চাইছেন প্রিমিয়ার লিগে। সে ক্ষেত্রে তাঁর লক্ষ্য হতে পারে আরেক সাবেক ক্লাব নিউক্যাসল ইউনাইটেড। এর মধ্যে নিজের বন্ধুদের কাছে প্রিমিয়ার লিগে যাওয়ার ইচ্ছার কথা জানিয়ে দিয়েছেন এই কোচ।

স্কটল্যান্ডে যাচ্ছেন ল্যাম্পার্ড?
চেলসি থেকে ছাঁটাই হয়েছেন দুই দিনও হয়নি। এর মধ্যেই অন্যান্য ক্লাবের সঙ্গে যুক্ত হতে শুরু করেছে ল্যাম্পার্ডের নাম। সংবাদমাধ্যম স্কটিশ সান জানিয়েছে, সেল্টিকের পরবর্তী ম্যানেজার হতে পারেন ল্যাম্পার্ড। প্রিয় সতীর্থ স্টিভেন জেরার্ড বহুদিন ধরেই রেঞ্জার্সের ম্যানেজার, তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী হয়ে ল্যাম্পার্ড সেল্টিকে যোগ দেবেন কি না, জানা যায়নি!

default-image

সানচেজ-জেকো অদল–বদল?

রোমার কোচ পাওলো ফনসেকার সঙ্গে স্ট্রাইকার এডিন জেকোর বনছে না, খবরটা আজকের নয়। ফলে জেকোকে ছাড়তে চাইছে রোমা। তাঁর জায়গায় ইন্টার মিলান থেকে আলেক্সিস সানচেজকে আনার ব্যাপারে আগ্রহী হয়ে উঠেছে ক্লাবটা। বিশ্বস্ত সাংবাদিক ফাব্রিজিও রোমানো জানিয়েছেন এই তথ্য।

কাউকে আনছে না ইউনাইটেড
শীতকালীন দলবদলে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড নতুন কাউকে আনার চেষ্টা করবে না বলে জানিয়েছেন দলটার কোচ ওলে গুনার সুলশার। আরও জানিয়েছেন, স্কোয়াড নিয়ে সন্তুষ্ট তিনি, ‘আমাদের স্কোয়াড অনেক শক্তিশালী, যথেষ্ট মানসম্পন্ন। কখনো কখনো অনেক ভালো খেলোয়াড়কেই স্কোয়াডে রাখতে পারি না। তাই নতুন কারোর আসার সম্ভাবনা দেখছি না।’

এসেই ডিফেন্ডার চাইছেন টুখেল
চেলসির চাকরি পেয়েছেন একদিনও হয়নি। এর মধ্যেই নতুন দলে লাইপজিগের ফরাসি সেন্টারব্যাক দায়োত উপামেকানোকে আনার জন্য ‘আবদার’ করেছেন টমাস টুখেল। জার্মান সংবাদমাধ্যম বিল্ডের খবর এমনই। তবে উপামেকানোর প্রতি বায়ার্ন মিউনিখ বহুদিন ধরেই আগ্রহী। ওদিকে ডেইলি মেইল জানিয়েছে, বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের স্ট্রাইকার আর্লিং হরলান্ডের প্রতিও আগ্রহী টুখেল। কিছুদিন আগেই জানা গিয়েছিল, হরলান্ডকে পাওয়ার জন্য নিজেদের দলবদলের রেকর্ড করতেও বাধবে না চেলসির।

বিজ্ঞাপন

এ তো গেল গুঞ্জনের খবর। কিন্তু এ পর্যন্ত কোন কোন খেলোয়াড় দল পরিবর্তন করলেন? লম্বা তালিকাটা একনজরে দেখে নেওয়া যাক—

সম্পাদিত ধার চুক্তি:
মার্টিন ওডেগার্ড (রিয়াল মাদ্রিদ থেকে আর্সেনাল)
আরকাদিউশ মিলিক (নাপোলি থেকে মার্শেই)
উইলিয়ান জোসে (রিয়াল সোসিয়েদাদ থেকে উলভারহ্যাম্পটন)
ড্যানি ড্রিঙ্কওয়াটার (চেলসি থেকে কাসিমপাসা)
লুকা ইয়োভিচ (রিয়াল মাদ্রিদ থেকে আইনট্রাখট ফ্রাঙ্কফুর্ট)
মুসা দেম্বেলে (অলিম্পিক লিওঁ থেকে আতলেতিকো মাদ্রিদ)
তাকেফুসা কুবো (রিয়াল মাদ্রিদ থেকে হেতাফে)
কার্লেস আলেনিয়া (বার্সেলোনা থেকে হেতাফে)
রাজ্জা নাইনগোলান (ইন্টার মিলান থেকে ক্যালিয়ারি)

সম্পাদিত পূর্ণাঙ্গ চুক্তি:
মাতেও মুসাক্কিও (এসি মিলান থেকে লাৎসিও, ফ্রি)
পাপু গোমেজ (আতালান্তা থেকে সেভিয়া, ৪.৫ মিলিয়ন পাউন্ড)
সকরাতিস পাপাস্থাতোপোলোস (আর্সেনাল থেকে অলিম্পিয়াকোস, ফ্রি)
ক্লাস-ইয়ান হুন্টেলার (আয়াক্স থেকে শালকে, ফ্রি)
জ্যাক উইলশেয়ার (ওয়েস্ট হাম থেকে বোর্নমাউথ, ফ্রি)
ক্রেপিন দিয়াত্তা (ক্লাব ব্রুজেস থেকে মোনাকো, ১১.৭ মিলিয়ন পাউন্ড)
মেসুত ওজিল (আর্সেনাল থেকে ফেনেরবাচে, ফ্রি)
সেবাস্তিয়েন আলের (ওয়েস্ট হাম থেকে আয়াক্স, ২০ মিলিয়ন পাউন্ড)
আমাদ দিয়ালো (আতালান্তা থেকে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, ১৮.৭ মিলিয়ন পাউন্ড)

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন