জিদান আজ কাদের ওপর ভরসা রাখবেন?
জিদান আজ কাদের ওপর ভরসা রাখবেন? ছবি: রয়টার্স

জিনেদিন জিদানের সংবাদ সম্মেলনে একটি কথা প্রায়ই শোনা যায়, এটা আরেকটি ফাইনাল। এ নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে বেশ রঙ্গরসিকতাও চলে। জিদান নাকি ‘ফাইনাল’ শব্দটা উচ্চারণ না করলে রিয়াল ম্যাচ জেতে না!

আজ চ্যাম্পিয়নস লিগ সেমিফাইনালে মাঠে নামবে রিয়াল মাদ্রিদ। চেলসির বিপক্ষে স্তাদিও ডি স্টেফানোতে প্রথম লেগে নামার আগে জিদান বেশ বড় এক ঘোষণা দিয়েছেন। বলেছেন, ‘এটা মৌসুমের সবচেয়ে বড় ম্যাচ।’  

‘ফাইনাল’ থেকে একেবারে ‘সবচেয়ে বড় ম্যাচ’—এ উন্নতি হয়েছে এই লড়াইয়ের। এই মৌসুমে ট্রফি জেতার সবচেয়ে ভালো সম্ভাবনা রিয়ালের এই চ্যাম্পিয়নস লিগেই। তাই চেলসির বিপক্ষে ম্যাচটিকে জিদান বাড়তি গুরুত্ব দেবেন, এতে বিস্ময়ের কিছু নেই। তো এমন এক ম্যাচে কাদের ওপর আস্থা রাখছেন জিদান?

একাদশ সাজাতে এ মৌসুমে অন্য সময়ের তুলনায় বেশি খেলোয়াড় হাতে পাচ্ছেন রিয়াল কোচ। কিন্তু এর মধ্য থেকে কারা হবেন—‘ওরা ১১ জন?’

বিজ্ঞাপন

গোলবারে কে থাকবেন, সেটা জানার জন্য বিশেষজ্ঞ হওয়ার প্রয়োজন নেই। পুরো মৌসুমে রিয়ালের গোলবারে একজনকেই দেখা গেছে, থিবো কোর্তোয়া। শুধু কোপা দেল রের এক ম্যাচেই আন্দ্রেয়া লুনিনকে দেখা গিয়েছিল। এ মৌসুমে বহু ম্যাচেই রিয়ালকে রক্ষা করেছেন কোর্তোয়া। আছেন দুর্দান্ত ফর্মে। সাবেক দলের বিপক্ষে কোর্তোয়াকেই তাই দেখা যাবে।

রক্ষণভাগকে জিদান কেমন সাজান, সেটা নিয়ে বেশ কৌতূহল থাকছে। মাঝে বেশ কিছুদিন পাঁচ রক্ষণ নিয়ে নেমেছিল রিয়াল। সে ম্যাচগুলোতে রিয়াল বেশ প্রাণবন্ত খেলেছে। জিদানের জন্য ঝামেলা হলো, সে ম্যাচগুলোতে খেলা দুই উইংব্যাককেই পাবেন না তিনি। ডান দিকে দানি কারভাহালের শূন্যস্থান পূরণ করতে এসে নিজেকে নতুন করে চিনিয়েছিলেন লুকাস ভাসকেজ। আর বাঁ দিকে ফারলাঁ মেন্দি জিদানের অনেক ভরসার জায়গা। দুজনই চোটের কারণে থাকবেন না এই ম্যাচে।

default-image

এদিকে কারভাহাল চোট কাটিয়ে উঠেছেন। ফলে ডান দিক নিয়ে দুশ্চিন্তা নেই জিদানের। কিন্তু মেন্দির জায়গা নেওয়ার মতো কেউ নেই। লিগে নাচোকে সে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। রক্ষণ দায়িত্ব ভালোই পালন করলেও আক্রমণে তাঁর ভূমিকা রাখা হয়নি।

ওদিকে লেফটব্যাকদের মধ্যে যাঁর আক্রমণের দক্ষতা একসময় সবার ঈর্ষার কারণ ছিল, সেই মার্সেলো ধার হারিয়েছেন বহু আগেই। লিগে বেতিসের বিপক্ষে গত ম্যাচে তাঁর খেলা দেখে আজ তাঁকে নামানোর ঝুঁকি জিদান নেবেন বলে মনে হয় না।

ওদিকে রামোস চোটে পড়ায় পাঁচ রক্ষণ নিয়ে নামতে হলে মার্সেলোকে খেলাতেই হবে। চেলসির বিপক্ষে পাঁচ রক্ষণ নিয়ে নামাটাই ভালো, এটা সবাই মানছেন। কিন্তু মার্সেলোর বর্তমান খেলার ধাঁচে অনেক বড় ঝুঁকি হয়ে উঠতে পারে এই সিদ্ধান্ত।

সব চিন্তা করে আজ তাই চার রক্ষণের রিয়ালকেই দেখা যেতে পারে। অর্থাৎ কারভাহাল-ভারান-মিলিতাও-নাচো।

মাঝমাঠে তিনটি স্থান নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই। টনি ক্রুস চোট থেকে ফিরেছেন। গত ম্যাচে লুকা মদরিচকে খুব ক্লান্ত মনে হয়েছে। কিন্তু এমন এক ম্যাচে জিদান তাঁর মাঝমাঠের তিন অস্ত্রকে নামাতে বাধ্য। ফেদে ভালভার্দে করোনার কারণে এমনিতেই বাইরে আছেন।

default-image

ফলে চাইলেও চার মিডফিল্ড খেলাতে পারবেন না জিদান। গত ম্যাচে ইসকোর পারফরম্যান্স আরও একবার হতাশ করেছে জিদানকে। মাঝে এক ম্যাচে আন্তোনিও ব্লাঙ্কো দারুণ খেললেও চেলসির মতো প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে এই তরুণকে শুরুতেই আর নামাতে চাইবেন না জিদান। অর্থাৎ সেই পুরোনো ক্রুস-কাসেমিরো-মদরিচ।

বেতিসের বিপক্ষে ১৩ মিনিটের জন্য দেখা গিয়েছিল এডেন হ্যাজার্ডকে। এ কারণে বেশ আলোচনা শুরু হয়েছে, আজ চেলসির বিপক্ষে হয়তো শুরু থেকে দেখা যেতে পারে হ্যাজার্ডকে। কিন্তু সে সম্ভাবনা খুব কম। করিম বেনজেমাকে তো নাড়ানোর উপায় নেই। আক্রমণে তাঁকে ঘিরেই জিদানের সব পরিকল্পনা। আর বেনজেমার সঙ্গী হিসেবে ভিনিসিয়ুস জুনিয়রকেই দেখা যাবে।

বিজ্ঞাপন

কোয়ার্টার ফাইনালে লিভারপুলের বিপক্ষে জোড়া গোল করেছিলেন দ্রুতগতির এই উইঙ্গার। আর বেতিস ম্যাচে একাদশে তাঁকে না রাখার কৌশলটা আজকের ম্যাচে শুরু থেকে দেখার ইঙ্গিতই দেয়। আক্রমণে এ দুজনের সঙ্গী হতে পারে মার্কো আসেনসিও।
বেতিস ম্যাচে ভালো করেননি আসেনসিও।

কিন্তু এ মৌসুমে রিয়াল যে ম্যাচগুলোতে প্রত্যাশিত ফল পেয়েছে, সে ম্যাচগুলোতে আক্রমণে বেনজেমা-আসেনসিও-ভিনিসিয়ুসকেই দেখা গেছে। ফলে এই ম্যাচেও তাঁদেরই থাকার কথা।

যদিও মাদ্রিদভিত্তিক কিছু সংবাদমাধ্যম দাবি করছে, আসেনসিওর কপাল পুড়তে পারে। হ্যাজার্ডকে একাদশে ফিরিয়ে আনতে পারেন জিদান। কিন্তু ভিনিসিয়ুসকে যেহেতু ডান প্রান্তে খেলানোর আগের সব চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে, সে ক্ষেত্রে আজ সে চেষ্টার সম্ভাবনা নেই। সে ক্ষেত্রে হ্যাজার্ডকে ভিনিসিয়ুস ও বেনজেমার পেছনে খেলানোর একটা কথাবার্তা চলছে।

default-image

২০১৬-১৭ মৌসুমে ৪-৪-২ ডায়মন্ড পদ্ধতিতে ইসকোকে যেভাবে খেলিয়েছিলেন জিদান, সেভাবেই হ্যাজার্ডকে দেখার সম্ভাবনার কথা বলছে স্প্যানিশ কিছু মাধ্যম। কিন্তু রিয়ালে হ্যাজার্ড এভাবে কখনো খেলেননি বলে এই চিন্তাটাও খুব একটা হালে পানি পাচ্ছে না।

রিয়ালের আজকের সম্ভাব্য একাদশ: কোর্তোয়া, কারভাহাল, মিলিতাও, ভারান, নাচো, কাসেমিরো। ক্রুস, মদরিচ, আসেনসিও, ভিনিসিয়ুস ও বেনজেমা।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন