বিজ্ঞাপন

এ মাসেই একবার খবর আসে ফ্রান্সের ১৯৯৮ বিশ্বকাপ জয়ের নায়ক শিষ্যদের জানিয়ে দিয়েছেন তিনি রিয়াল ছাড়ছেন। জিদান অবশ্য সে সময়ে গুজব বলে উড়িয়ে দেন সেই খবর, ‘আমি কীভাবে আমার খেলোয়াড়দের বলব আমি চলে যাচ্ছি? এটা পুরোপুরি মিথ্যা’।

default-image

অ্যাথলেটিক বিলবাওকে ১-০ গোলে হারানোর পর জিদান অবশ্য একটু ইঙ্গিত দিয়ে রেখেছিলেন, ‘আমার মনোযোগ এখন এই মৌসুমের ওপর। একটা ম্যাচ এখনো হাতে আছে, যে ম্যাচে জানপ্রাণ দিয়ে খেলতে হবে। আমি এখন শুধু ওই ম্যাচ নিয়েই ভাবছি। এরপর কী হয় তা মৌসুম শেষেই দেখা যাবে।’

ভিয়ারিয়ালের সঙ্গে বাঁচামরার সেই ম্যাচে জিতেও অবশ্য কাজ হয়নি রিয়ালের। ২ পয়েন্টে এগিয়ে থাকা নগর প্রতিদ্বন্দ্বী আতলেতিকো মাদ্রিদ ভায়াদোলিদকে ২-১ গোলে হারিয়ে সাত বছর পর জিতে নেয় লা লিগা শিরোপা।

জিদানের এবার রিয়াল ছাড়ার খবরে খুব একটা বিস্মিত হননি কেউ। তবে ২০১৮ সালের ৩১ মে সবাইকে অবাক করে দিয়েই প্রথমবার রিয়াল ছেড়েছিলেন জিদান। ২০১৬ সালের জানুয়ারিতে দায়িত্ব নেওয়ার পর রিয়ালকে তিনটি চ্যাম্পিয়নস ট্রফি ও একটি লা লিগা জেতানোর পর ওই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন মাদ্রিদিস্তাদের প্রিয় জিজু। জিদান আবার রিয়ালে ফেরেন ২০১৯ সালে। পরের বছর তাঁর কোচিংয়ে লা লিগার পাশাপাশি স্প্যানিশ সুপার কাপও জেতে স্পেনের সবচেয়ে সফল ক্লাবটি।

রিয়ালে কে হবেন জিদানের উত্তরসূরি সেই প্রশ্নের উত্তরে মাসিমিলিয়ানো আলেগ্রি, রাউল ও গতরাতে ইন্টার মিলান ছাড়া আন্তোনিও কন্তের নাম ঘুরেফিরে আসছে।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন