শেষ মূহুর্তে গোল করে দলকে জিতিয়েছেন ইনাকি উইলিয়ামস।
শেষ মূহুর্তে গোল করে দলকে জিতিয়েছেন ইনাকি উইলিয়ামস।ছবি : রয়টার্স

লা লিগাকে দুই দলের লিগ বলার দিন শেষ হয়েছে বহু আগেই। রিয়াল-বার্সার সঙ্গে এখন রীতিমতো টক্কর দেয় আতলেতিকো মাদ্রিদ। এবার সে দৌড়ে যোগ দিয়েছিল সেভিয়াও। ইউরোপের দ্বিতীয় সারির প্রতিযোগিতায় বরাবরই সফল এ ক্লাবটা এবার স্প্যানিশ লিগের ‘বিগ থ্রি’ ক্লাবকে বেশ ভালোই চোখ রাঙাচ্ছিল। আশা করছিল, ১৯৪৬ সালের পর লিগ শিরোপা ঘরে তোলার। কিন্তু সে আশার সমাধি ঘটেছে গতকাল। অ্যাথলেটিক বিলবাওয়ের বিপক্ষে নিজেদের মাঠেই ১-০ গোলে হেরে লিগ শিরোপাস্বপ্ন জলাঞ্জলি দিয়ে বসেছে তারা।

দ্বিতীয়ার্ধে যোগ করা সময়ে গোল করে বিলবাওকে জিতিয়েছেন স্প্যানিশ স্ট্রাইকার ইনাকি উইলিয়ামস। ম্যাচ শুরুর আগে শীর্ষে থাকা আতলেতিকোর সঙ্গে সেভিয়ার পয়েন্ট ব্যবধান ছিল ছয়। জিতলে সেটা নেমে তিনে আসত। হারের কারণে ৩৪ ম্যাচ শেষে সেই ৭০ পয়েন্টেই আটকে রইল হুলেন লোপেতেগির দল। ওদিকে একইসংখ্যক ম্যাচ খেলে আতলেতিকোর পয়েন্ট ৭৬। বাকি চার ম্যাচে এই ছয় পয়েন্টের ব্যবধান মিটিয়ে সেভিয়া আতলেতিকোকে লিগের শীর্ষস্থান থেকে সরাতে পারবে, এমনটা হয়তো সেভিয়ার সবচেয়ে বড় সমর্থকটিও ভাববেন না।

বিজ্ঞাপন

প্রথমার্ধে আর্জেন্টাইন উইঙ্গার লুকাস ওকাম্পোস, স্প্যানিশ উইঙ্গার সুসোর কল্যাণে বেশ কিছু সুযোগ পেয়েছিল সেভিয়া। দলের সর্বোচ্চ গোলদাতা মরোক্কান স্ট্রাইকার ইউসেফ এন-নেসেরিও বেশ কিছু সুযোগ পেয়েছিলেন গোল করার, বিলবাও গোলরক্ষক উনাই সিমোনের দৃঢ়তায় কিছু করতে পারেননি যদিও। ম্যাচজুড়েই দাপট দেখিয়েছে সেভিয়া। তবে দ্বিতীয়ার্ধে বিলবাওয়ের কোচ মার্সেলিনো বিকল্প খেলোয়াড় হিসেবে দুই ভাই ইনাকি উইলিয়ামস আর নিকো উইলিয়ামসকে মাঠে নামালে পাশার দান পাল্টে যায়।

default-image

দুর্দান্ত গতিশীল এই দুই ভাই প্রায়ই প্রতি–আক্রমণে সেভিয়াকে তটস্থ করে রাখছিলেন। নিকোর একটা গোল তো অফসাইডের কারণে বাতিলও হয়ে যায়। ছোট ভাই না পারলেও দ্বিতীয়ার্ধে যোগ করা সময়ে দুর্দান্ত এক প্রতি–আক্রমণের ফসল হিসেবে গোল পেয়ে যান স্প্যানিশ স্ট্রাইকার ইনাকি উইলিয়ামস। গোটা ম্যাচ দাপট দেখিয়েও ওদিকে শূন্য হাতে ফেরে সেভিয়া। আর সঙ্গে শিরোপা জেতার স্বপ্নটাও মাটিচাপা দিয়ে আসে।

প্রথমে থাকা আতলেতিকো ও চতুর্থ স্থানে থাকা সেভিয়ার পয়েন্টের ব্যবধান এখন ছয়, আগেই বলা হয়েছে। দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে থাকা রিয়াল মাদ্রিদ ও বার্সেলোনার চেয়েও এখন চার পয়েন্টে পিছিয়ে সেভিয়া। কয়েক সপ্তাহ ধরে যেভাবে রিয়াল-বার্সার কাঁধে নিশ্বাস ফেলছিল দলটা, এই ম্যাচের পর জিদান ও কোমান, দুজনই স্বস্তি পাবেন নিশ্চিত!

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন