জেরার্ড পিকে নিজেও এর আগে কথাটা বলেছেন।
জেরার্ড পিকে নিজেও এর আগে কথাটা বলেছেন।ছবি : রয়টার্স

অভিযোগটা পুরোনো। বার্সেলোনার বর্তমান কোচ রোনাল্ড কোমান কিছুদিন আগে টুইট করে এ ব্যাপারে অভিযোগ জানিয়েছিলেন। শুধু তা-ই নয়, দলের ডিফেন্ডার জেরার্ড পিকে নিজেও এর আগে কথাটা বলেছেন। সেটিই আবারও বললেন বার্সেলোনা ডিফেন্ডার, রেফারিরা রিয়াল মাদ্রিদের পক্ষে বাঁশি বাজান।

পিকে এই পুরোনো অভিযোগের ব্যাখ্যায় যোগ করেছেন এক ব্যাখ্যা, লা লিগায় বেশির ভাগ রেফারিই মাদ্রিদের। পেশাদার হলেও তাঁরা অবচেতন মনেই নাকি রিয়ালের পক্ষে বাঁশি বাজান।

বিজ্ঞাপন

মনের কথা সোজাসুজি বলার ব্যাপারে পিকে বরাবরই অভ্যস্ত। একসময় ‘এল ক্লাসিকো’ মানে ছিল পিকে-রামোসের বাগযুদ্ধ। স্পেন জাতীয় দলে আবার এককালে দুজন মিলেই সামলাতেন রক্ষণভাগ। রিয়াল মাদ্রিদ ডিফেন্ডারের সঙ্গে নিজের সম্পর্ক নিয়েও কথা বলেছেন পিকে। বার্সেলোনা গত মৌসুম শেষে যে লুইস সুয়ারেজকে ছেড়ে দিল, তা নিয়েও নিজের মত ব্যক্ত করেছেন।

পোস্ট ইউনাইটেডকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এককালে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে খেলা এ ডিফেন্ডার বলেন, ‘সেদিন এক সাবেক রেফারি বলছিলেন, ৮৫ শতাংশ রেফারি মাদ্রিদ থেকে এসে থাকেন। তাহলে তাঁরা মাদ্রিদের পক্ষে কেন বাঁশি বাজাবেন না? এমনকি অবচেতন মনেও তো তাঁরা সিদ্ধান্ত নেওয়ায় কম-বেশি করে ফেলবেন। আমি রেফারিদের পেশাকে সম্মান করি এবং এটাও জানি, তাঁরা সর্বোচ্চ চেষ্টাই করেন। কিন্তু যখন দ্বিধায় পড়ার মতো মুহূর্ত আসে...,’ বাকিটা অত স্পষ্ট করে বলেননি পিকে, যার বোঝার, সে অতটুকুতেই বুঝে নেবে!

এ মৌসুমে হলুদ কার্ড দেখায় রিয়াল-বার্সা এখন পর্যন্ত সমান অবস্থানে। ৩৬টি করে হলুদ কার্ড দেখেছে দুই দল। একটি লাল কার্ড দেখেছে রিয়াল। গত মৌসুমে ৮৩ হলুদ কার্ড দেখেছিল বার্সা, রিয়াল হলুদ কার্ড দেখেছে ৭২ । লাল কার্ড দেখেছেন দুই দলের তিনজন করে খেলোয়াড়। ২০ ম্যাচে ৪০ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের দুইয়ে বার্সা। তাদের সমান ম্যাচে সমান পয়েন্ট নিয়ে তিনে রিয়াল মাদ্রিদ। গোল ব্যবধানে পিছিয়ে রিয়াল।

গুঞ্জন চলছে, ক্লাবের সঙ্গে সম্পর্ক ভালো যাচ্ছে না রিয়াল অধিনায়ক রামোসের। ক্লাব নাকি ছেড়েও দিতে পারেন। এখনো তাঁর চুক্তি নবায়ন হয়নি। পিকে এ নিয়ে জানালেন, ‘তাঁর সঙ্গে কথা হয়েছে। তবে চুক্তি নবায়ন নিয়ে কোনো কথা হয়নি। আমাদের মধ্যে সম্পর্ক ভালো। মাদ্রিদের সঙ্গেও ভালো সম্পর্ক। আমরা জার্সি অদল-বদল করি। মাদ্রিদের জার্সি আছে আমার বাসায়। রোনালদো, বেনজেমা, রামোস...। কিন্তু এই জার্সি গায়ে চাপাতে পারব না।’

বিজ্ঞাপন

গত মৌসুম শেষেই সুয়ারেজকে ছেড়ে দেয় বার্সা। ক্লাবটির নতুন কোচ রোনাল্ড কোমান উরুগুয়ের তারকাকে জানিয়ে দেন, বার্সার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনায় নেই সুয়ারেজ। এ নিয়ে পিকের উক্তি, ‘যে তাকে যেতে দিয়েছে তাকে বলুন। ভুলটা আমার না।’ আতলেতিকো মাদ্রিদের হয়ে এ মৌসুমে ১৬ ম্যাচে ১৪ গোল করে সর্বোচ্চ গোলদাতাও সুয়ারেজ।

default-image

আধুনিক ফুটবলে খেলোয়াড়দের তেমন ক্ষমতা নেই বলেই মনে করেন পিকে। তিনি রামোসের উদাহরণ টেনে বলেন, ‘মনে হয় না আছে। হ্যাঁ তারা মতামত দিতে পারে। এরপর সিদ্ধান্ত পক্ষে কিংবা বিপক্ষে যেতে পারে। রামোসকে দেখুন, তার চুক্তি নিয়ে কথা হচ্ছে। সেখানে শক্তিশালী একজন সভাপতি আছেন। তিনি যে পথে যেতে চাচ্ছেন, সেখানে কিন্তু খেলোয়াড়ের তেমন কিছু করার নেই।’

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন