default-image

ছেলে তাঁর জীবনের সেরা ফর্মে ছিল গত মৌসুমেই। কিন্তু তবুও মায়ের মনে সংশয়, টানা তৃতীয় ব্যালন ডি’অর হয়তো জেতা হবে না তাঁর ছেলের। লিওনেল মেসির নাম বলেননি, কেন তাঁর ছেলে পাবে না, সেই ব্যাখ্যাও অবশ্য দেননি ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর মা মারিয়া দোলোরেস।
টানা পাঁচ মৌসুম ধরে গোলের ফিফটি করেছেন। কিন্তু এক মৌসুমে ৬১ গোল রোনালদো আগে কখনো পাননি। এত দিন গোল সংখ্যায় তাঁর ক্যারিয়ারের সেরা মৌসুম ছিল ২০১১-১২। ৫৫ ম্যাচে করেছিলেন ৬০ গোল। কিন্তু তা হলে কী হবে! এবার যে শিরোপার খাতায় হু হু শূন্যতা। গত মৌসুমের শুরুতে উয়েফা সুপার কাপ জিতেছেন, বছরের শেষাশেষি জিতেছেন ক্লাব বিশ্বকাপও। কিন্তু এই ট্রফিগুলোকে ঠিক হিসাবের খাতায় ধরা হয় না।
অন্য দিকে রোনালদোর চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী মেসি ৫৭ ম্যাচে করেছেন ৫৮ গোল। গোল সংখ্যায় খুব একটা পিছিয়ে​ তো নেই-ই, তা ছাড়া বার্সাকে গত মৌসুমে ঐতিহাসিক ট্রেবল জিতিয়েছেন। ইতিহাসের একমাত্র দল হিসেবে দুবার শিরোপাত্রয়ী জেতার কীর্তি গড়েছে বার্সা। দুবারই প্রধান কারিগর ছিলেন মেসি। কোপা আমেরিকার শিরোপা জিততে না পারলেও ফাইনাল পর্যন্ত গিয়েছিল তাঁর দল। সব মিলিয়ে পঞ্চম ব্যালন ডি’অর মেসি জিততে চলেছেন—এটা এক রকম নিশ্চিত।
এই ট্রফিটা রোনালদোর জন্য কত আবেগের, সেটা বোঝা গিয়েছিল ২০১৩ সালে। ২০০৮ সালে ব্যালন ডি’অর জেতার পর ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড থেকে রিয়াল মাদ্রিদে নাম লেখান। প্রত্যেকটি মৌসুম অবিশ্বাস্য কেটেছে। কিন্তু টানা চারবার তাঁকে দর্শক বানিয়ে ফুটবলারদের সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত এই পুরস্কার জিতেছেন মেসি। অবশেষে ২০১৩ সালে ব্যালন ডি’অর জেতার পর মঞ্চে হু হু কান্নায় ভেঙে পড়েন রোনালদো। গতবার অবশ্য তাঁর জয় নিয়ে কোনো প্রশ্নই ছিল না। তবুও রোনালদোকে আবেগাপ্লুত হতে দেখা গেছে।
ব্যালন ডি’অর নিয়ে ছেলের এই আবেগের ঠিকুজি মা জানেন। অবশ্য স্প্যানিশ ক্রীড়া দৈনিক এএসকে দেওয়া সাক্ষাৎ​কারে সেই আবেগটা লুকানোর চেষ্টাও করেছেন। দোলোরেস বলেছেন, ‘ক্রিস্টিয়ানো জানে এবার এটা জেতা ওর জন্য খুবই কঠিন হয়ে যাবে। অবশ্য এমনটা ভাববেন না, ও এটা নিয়ে অনেক মাথা ঘামায়। আর তা ছাড়া ও তো এবার সোনার জুতো জিতছে, এটা নিশ্চিতই।’
স্প্যানিশ লিগে গতবার ৪৮ গোল করে সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়েছেন রোনালদো। ইউরোপের শীর্ষ লিগগুলোতে এত গোল আর কেউ করতে পারেননি। ইউরোপিয়ান গোল্ডেন শু তাই ​আরও একবার জিততে চলেছেন। দোলোরেস হয়তো এখান থেকেই খুঁজছেন সান্ত্বনা। একটা ভালো দিকও খুঁজে পাচ্ছেন তিনি। গতবার রিয়ালকে কোনো ট্রফি এনে দিতে না-পারাটা এবার রোনালদোকে ভীষণভাবে ফুঁসিয়ে তুলবে। রোনালদো আরও বেশি ক্ষুধা নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়বেন বলেই মনে করেন তাঁর মা, ‘ও খুবই পেশাদার এক খেলোয়াড়। ও সব সময়ই নিজেকে উজ্জীবিত রাখে, নিজের কাজের প্রতি থাকে পূর্ণ মনোযোগ। প্রতিবছরই ও ক্ষুধা নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়ে। এবারও এর ব্যতিক্রম হবে না।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন