জুভেন্টাস ছেড়ে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো কি আবার রিয়ালে ফিরবেন?
জুভেন্টাস ছেড়ে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো কি আবার রিয়ালে ফিরবেন?ছবি: রয়টার্স

তিন পক্ষই হেরেছিল চুক্তিটাতে। ২০১৮ বিশ্বকাপের মাঝপথেই বিস্ফোরিত হয়েছিল বোমা, রিয়াল মাদ্রিদ ছাড়তে চান ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। তাঁর ভবিষ্যত গন্তব্যও ঠিকঠাক, ইউরোপের আরেক পরাশক্তি জুভেন্টাস। রিয়াল মাদ্রিদের ইতিহাসের সবচেয়ে বেশি দামে বিক্রি হওয়ার রেকর্ড গড়ে জুভেন্টাসে চলে গেলেন রোনালদো।

লাভ হয়নি তাতে কারও। জুভেন্টাস রোনালদোকে নিয়েছিল চ্যাম্পিয়নস লিগে দুই যুগের অপূর্ণতা ঢাকতে। ইতালির সবচেয়ে বড় ক্লাব চেয়েছিল রোনালদোর ছোঁয়ায় মহাদেশসেরা ক্লাব হওয়ার স্বপ্ন পূরণ করতে। রোনালদোও চেয়েছিলেন আরেকটি ক্লাবের হয়ে ইউরোপ সেরা হয়ে নিজেকে সর্বকালের সেরা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে। আর রিয়াল চেয়েছিল মধ্যত্রিশ ছুঁতে যাওয়া রোনালদোকে ছেড়ে দিয়ে নতুন প্রজন্মকে ঘিরে ভবিষ্যত গড়তে।

তিন বছর যাওয়ার আগেই তিন পক্ষ ভুল বুঝতে পারছে। আর রোনালদোও চাইছেন ক্যারিয়ারটা রিয়ালেই শেষ করতে, চাইছেন ফিরতে। কোচ জিনেদিন জিদানও জানিয়ে দিয়েছেন, রোনালদোকে আবার রিয়ালে দেখা যেতেই পারে।

বিজ্ঞাপন
default-image

গত সপ্তাহে চ্যাম্পিয়নস লিগ থেকে ছিটকে গেছে জুভেন্টাস। রিয়াল ছাড়ার পর এ নিয়ে টানা তিনবার ইউরোপের সেরা প্রতিযোগিতা থেকে সেমিফাইনাল না খেলেই বিদায় নিলেন রোনালদো। এরপর থেকেই বাজারে গুঞ্জন, চ্যাম্পিয়নস লিগে তাঁকে সাফল্য এনে দেওয়ার মতো স্কোয়াড আছে, এমন কোথাও যেতে চান এই ফরোয়ার্ড। ৩৬ বছর হয়ে গেছে, ক্যারিয়ারে অর্জনের খাতায় যোগ করার এটাই তো শেষ সুযোগ।

ওদিকে জুভেন্টাসও তাঁকে ছাড়তে আগ্রহী। চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতার জন্য ক্লাবের আর্থিক অবস্থা সংকটের মুখে ফেলে দিয়ে রোনালদোকে নিয়েছিল তারা। কিন্তু কর বাদেই রোনালদোর পেছনে বছরে ৩ কোটি ইউরো দেওয়ার প্রভাব ধীরে ধীরে টের পাচ্ছে দলটি। করোনাভাইরাস ক্লাবের আর্থিক অবস্থা এতটাই খারাপ করে দিয়েছে যে, রোনালদোকে নিয়ে এলেও তাঁর আশপাশে ভালো খেলোয়াড়ের উপস্থিতি দিন দিন কমছে। তাই রোনালদোকে বিক্রি করে দিয়ে প্রাপ্ত অর্থ ও বেঁচে যাওয়া বেতনে নতুন করে স্কোয়াড সাজানোতেই মন তাদের।

default-image

এ অবস্থায় রোনালদোর রিয়ালে ফেরার গুঞ্জন উসকে দিয়েছেন খোদ জিদান। আজ চ্যাম্পিয়নস লিগে আতালান্তার বিপক্ষে শেষ ষোলোর দ্বিতীয় লেগ রিয়ালের। রোনালদো চলে যাওয়ার পর থেকে শেষ ষোলোই পার হতে পারছে না দলটি। দলে যে গোল করার লোকই নেই! এ সময় স্কাই ইতালিয়া জিদানের কাছ থেকে একটি সাক্ষাৎকার নিয়েছে। সেখানেই উঠে এসেছে এই প্রসঙ্গ, ‘এটা (রোনালদোর রিয়ালে ফেরা) হতেই পারে। আমরা সবাই ওকে জানি এবং ওর কোচ হওয়ার মতো সৌভাগ্য আমার হয়েছে। সে চমৎকার একজন ফরোয়ার্ড। দেখি না ভবিষ্যতে কী হয়। বর্তমানে সে জুভেন্টাসের খেলোয়াড়।’

রিয়ালের হয়ে ৪৩৮ ম্যাচে ৪৫০ গোল করে ক্লাবটির সর্বকালের সেরা গোলদাতা হয়ে ইতিহাসে নাম লিখিয়ে রেখেছেন রোনালদো। তবে তাঁর বিদায় পর্বটা আরেকটু সুন্দর হতেও পারত। সময়ের অন্য দুই সেরা তারকার চেয়ে বেতন কম পাচ্ছেন বলে নিজের বেতন বাড়ানোর কথা বলেছিলেন রোনালদো। কিন্তু এক লাফে তাঁর বেতন ২ কোটি থেকে ৩ কোটি করতে ইচ্ছা হয়নি ক্লাব সভাপতি ফ্লোরেন্তিনো পেরেজের। এ নিয়ে মনোমালিন্যে নিজের বিদায়টা ২০১৮ চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালেই নিশ্চিত করে দিয়েছেন। আধুনিক যুগের প্রথম দল হিসেবে হ্যাটট্রিক চ্যাম্পিয়নস লিগ জয় নিয়ে যেখানে সবাই ব্যস্ত, ওই মুহূর্তে নিজের বিদায় নেওয়ার ইঙ্গিত দিয়ে রেখেছিলেন রোনালদো।

বিজ্ঞাপন
default-image

ক্লাবের এমন অর্জনের রাতে আলোটা নেতিবাচক এক ঘটনার দিকে টেনে নেওয়ায় রোনালদোর ওপর খেপেছিলেন পেরেজ। তাঁর অভাব পূরণ করতে ৩০ কোটি ইউরো খরচও করেছেন পেরেজ। কিন্তু রিয়ালের সেই দাপুটে রূপ আর দেখা যায়নি কোথাও। গত মৌসুমে লিগ জিতলেও সেটা রক্ষণের সুবাদে এসেছে, যা রিয়ালের ইতিহাসেই বিরল। এর মধ্যে ২০২০ সালের মার্চে বার্নাব্যুতে রোনালদো এল ক্লাসিকো দেখতে যাওয়ায় মনে হয়েছিল দুই পক্ষের সম্পর্কের বরফ গলেছে। বহু দিন পর নিজেদের মাঠে বার্সেলোনাকে হারিয়েছিল সেদিন রিয়াল। তাই আবার যখন রোনালদোর ফেরার সম্ভাবনা জেগেছিল, তখন মনে হয়েছিল, দুইয়ে দুইয়ে চার হতে খুব একটা সময় লাগবে না।

এরই মধ্যে খবর এসেছে রোনালদোকে মাত্র ২ কোটি ৯০ লাখ ইউরোতে ছেড়ে দিতে রাজি জুভেন্টাস। খেলোয়াড়ের এজেন্ট হোর্হে মেন্দেসও এর মধ্যেই কথা বলেছেন রিয়ালের সঙ্গে। শোনা গেছে, রিয়ালে ফেরার জন্য যদি বেতন কমাতে রাজি হন, তাহলে সাবেক ক্লাব সাদরেই টেনে নেবে তাঁকে। কিন্তু এর মধ্যেই নতুন করে খবর এসেছে, ২০১৮ সালে কিয়েভের রাতে রোনালদোর আত্মকেন্দ্রিক সে আচরণ নাকি এখনো ক্ষমা করেননি পেরেজ। তাই আবার রোনালদোকে ফেরার সম্ভাবনা জাগলেও এ নিয়ে মাথা ঘামাতে রাজি নন।

মহামারির সময়ে ক্লাবের সব খেলোয়াড়কে বেতন কমাতে অনুরোধ করেছে রিয়াল। এ অবস্থায় রোনালদোর কারণে করসহ আরও অন্তত পাঁচ কোটি ইউরো বাড়তি খরচ রিয়াল বইতে পারবে কি না, সে প্রশ্নও আছে। তবে জিদান যে ঠিকই রোনালদোকে আবার পেতে চান, সেটা তো জানিয়েই দিলেন। আগামী মৌসুমে ৩৭ বছরে পা রাখতে যাওয়া রোনালদো যে রিয়ালের বর্তমান তরুণ আক্রমণের চেয়ে এখনো অনেক ভালো, সেটা তো জিদানের চেয়ে ভালো আর কেউ জানেন না!

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন