জুভেন্টাসে খুশি নন রোনালদো।
জুভেন্টাসে খুশি নন রোনালদো।ছবি: রয়টার্স

চ্যাম্পিয়নস লিগ থেকে জুভেন্টাস ছিটকে পড়ার পর থেকেই রিয়াল মাদ্রিদ সমর্থকদের আশা বেড়ে গেছে। ক্লাব কিংবদন্তি ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো আবার রিয়ালে ফিরবেন—এমন একটা গুঞ্জন বাতাসে ভেসে বেড়াচ্ছে। সাধারণত দলবদলের গুঞ্জন নিয়ে কথা বলতে চান না রিয়াল কোচ জিনেদিন জিদান। কিন্তু এবার নিয়ম ভেঙে এ ব্যাপারে ঠিকই কথা বলেছেন। স্কাই ইতালিয়াকে বলেছেন, ফুটবলে যেকোনো কিছুই সম্ভব, আর রোনালদো রিয়ালে ফিরতে চাইলে তাঁকে সাদরেই বরণ করে নেওয়া হবে।

রোনালদোর মতো গোলস্কোরারকে যেকোনো কোচই পেতে চাইবেন। চ্যাম্পিয়নস লিগ থেকে ছিটকে পড়ার দুঃখ ভুলতে রোনালদো যা করেছেন, তারপর তো আরও বেশি করে। গত সপ্তাহে কালিয়ারির বিপক্ষে লিগ ম্যাচে আধঘণ্টা না যেতেই হ্যাটট্রিক করে বসেছেন ৩৬ বছর বয়সী পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড। সমালোচনার জবাব তিনি এভাবে দিতে জানেন বলেই তাঁকে ছাড়তে রাজি নন জুভেন্টাস কোচ আন্দ্রেয়া পিরলো। সোজা বলে দিয়েছেন, চুক্তি শেষ হওয়ার আগে রোনালদোকে ছাড়ার কোনো ইচ্ছা নেই তাঁর।

বিজ্ঞাপন
default-image

রিয়াল মাদ্রিদ থেকে দলবদলের ইতালিয়ান রেকর্ড ভেঙে ১০ কোটি ইউরোতে জুভেন্টাসে গেছেন রোনালদো। চার বছরের চুক্তির তৃতীয় বছর চলছে। ২০২২ সালের জুন পর্যন্ত চুক্তি থাকলেও বাজারে জোর গুঞ্জন, জুভেন্টাসে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার মতো স্কোয়াড না পাওয়ায় হতাশ হয়ে পড়েছেন রোনালদো। এ কারণে জুভেন্টাস ছেড়ে দিতে চান। আর সে প্রসঙ্গেই রিয়াল মাদ্রিদের নাম উঠে এসেছে। এরই মধ্যে নাকি তাঁর এজেন্ট জর্জ মেন্দেস রিয়ালের সঙ্গে যোগাযোগও করেছেন। ওদিকে জুভেন্টাসও নাকি মাত্র ২ কোটি ৯০ লাখ ইউরোতেই রোনালদোকে ছেড়ে দিতে রাজি আছে সামনের গ্রীষ্মে।

পিরলো অবশ্য এসব গুঞ্জনে মাথা ঘামাতে রাজি নন। এ ব্যাপারে তাঁর পরিষ্কার জবাব, ‘ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর চুক্তিতে আরও এক বছর বাকি। আর আমরাও খুশি যে আমাদের সঙ্গে থাকবে সে। আগামী মৌসুমে ওকে কীভাবে খেলাব, সেটা নিয়ে আমরা এখনো চিন্তা শুরু করিনি। আপাতত এ মৌসুম নিয়েই ভাবছি। সে অনেক গোল করে এবং এটা অস্বীকার করার উপায় নেই।’

default-image

এ মৌসুমে গতকাল পর্যন্ত ৩০ গোল হয়ে গেছে রোনালদোর। আজ বাংলাদেশ সময় রাত আটটায় লিগে বেনেভেন্তোর বিপক্ষে ম্যাচেও নেমেছেন রোনালদো। লিগে ১৬তম দলটিকে সামনে পেয়ে গোলের সংখ্যা কি আরও বাড়িয়ে নেবেন পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড? হয়তো!
তবে রোনালদো যা-ই করুন, এই মৌসুমে এখন পর্যন্ত জুভেন্টাসের যে অবস্থা, তাতে এবার হয়তো শুধু ইতালিয়ান কাপ বা কোপা ইতালিয়া জিতেই সন্তুষ্ট থাকতে হবে তাঁকে। সেদিক থেকেও নতুন এক ট্রফির স্বাদ পেতে পারেন রোনালদো। ইতালিতে যাওয়ার পর গত দুই মৌসুম সিরি ‘আ’ জিতলেও কোপা ইতালিয়া জেতা হয়নি তাঁর। কিন্তু যিনি চ্যাম্পিয়নস লিগে জিতে ইতিহাস সৃষ্টি করতে জুভেন্টাসে গেছেন, তাঁর তো শুধু ঘরোয়া কাপে সন্তুষ্ট হওয়ার কথা নয়। এ মৌসুমই তাই জুভেন্টাসে রোনালদোর শেষ মৌসুম হওয়ার সম্ভাবনা বেশি।

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন