বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

মরিসিও পচেত্তিনো
ইউনাইটেডের কোচ না হতে চাইলেও মেসি-নেইমারদের পিএসজিতে যোগ দেওয়ার ব্যাপারে আগ্রহ দেখিয়েছেন জিদান, এমনটাই জানিয়েছে ফরাসি সংবাদমাধ্যম লা পারিসিয়েন। নির্ভরযোগ্য ফরাসি সাংবাদিক লরেন্স জুলিয়েন জানিয়েছেন, মরিসিও পচেত্তিনোর সঙ্গে পিএসজির কর্তাব্যক্তিদের সম্পর্ক অতটা ভালো নয়। যে কারণে পিএসজি ছাড়তে পারেন পচেত্তিনো। সেটা যদি হয়, তাহলে পিএসজির কোচ হতে চান জিদান। ওদিকে পচেত্তিনো নিজেও ইউনাইটেডের কোচ হওয়ার ব্যাপারে বেশ আগ্রহী, জানিয়েছে গোল ডটকম আর স্কাই স্পোর্টস। পিএসজি থেকে পচেত্তিনোকে আনতে চাইলে ইউনাইটেডকে ৮৪ লাখ পাউন্ড ক্ষতিপূরণ বাবদ দিতে হবে।


২০১৯ সাল থেকেই পচেত্তিনোকে নতুন কোচ বানানোর ব্যাপারে আগ্রহ দেখাচ্ছিল ইউনাইটেড। কিন্তু ব্যাটে-বলে মেলেনি কখনো। এবার হয়তো মিলতেও পারে!

default-image

এরিক টেন হাগ
আলোচনায় নাম আসছে আয়াক্সের ডাচ কোচ এরিক টেন হাগেরও। হ্যাঁ, সেই টেন হাগ, যার হাত ধরে তারকা হওয়ার পথে পাড়ি জমিয়েছেন ফ্রেঙ্কি ডি ইয়ং, ম্যাটাইস ডি লিখট, ডনি ফন ডে বিকের মতো খেলোয়াড়েরা। এবারও আয়াক্সকে নিয়ে বেশ চমক দেখাচ্ছেন এই কোচ। ফলাফল? ইউনাইটেডের সম্ভাব্য কোচের তালিকায় তাঁর নাম আসা। যদিও এ ব্যাপারে টেন হাগ নিজেই কোনো আগ্রহই দেখাচ্ছেন না।

ইএসপিএনকে জানিয়েছেন, ‘আপনারা আমাকে বারবার এই প্রশ্নটা করেন। বিচিত্র প্রশ্ন এটা একটা। আমি এ ব্যাপারে কিছুই শুনিনি। তাই এ ব্যাপারে কিছু বলতেও পারছি না।’
এদিকে নেদারল্যান্ডসের অন্যতম জনপ্রিয় দৈনিক দ্য টেলিগ্রাফ জানিয়েছে, আয়াক্সের দায়িত্ব ছাড়ছেন না টেন হাগ।

default-image

ব্রেন্ডান রজার্স
তালিকার পরবর্তী নামটা একটু চমকপ্রদ। চমকপ্রদ বলতে হচ্ছে কারণ লেস্টার সিটির বর্তমান কোচ ব্রেন্ডান রজার্স এককালে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী লিভারপুলের কোচ ছিলেন। যে কারণে নিজেদের নতুন কোচ হিসেবে ইউনাইটেডের সমর্থকেরা রজার্সকে কতটুকু সহ্য করতে পারেন, সেটাও একটা দেখার বিষয়। লেস্টারে বেশ ভালোই খেলাচ্ছেন দলকে, যে কারণে ইউনাইটেড আগ্রহী হয়ে উঠেছে রজার্সের প্রতি। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের স্যামুয়েল লুকহার্স্ট জানিয়েছেন রজার্সের প্রতি ইউনাইটেডের ব্যাপারটা। রজার্সের দিকে লেস্টার যদি আসলেই হাত বাড়ায়, তাহলে পচেত্তিনোর মতো রজার্সের জন্যও বেশ টাকা খরচ করতে হবে ইউনাইটেডকে।

তবে রজার্স আপাতত ইউনাইটেডের কোচ হওয়ার ব্যাপারে মুখে কুলুপ এঁটেছেন, ‘আমি এ ব্যাপারে কোনো কথা বলতে চাই না। কারণ, এটা বাস্তব নয়। আমি লেস্টারে থেকে গর্বিত। এসব নিয়ে কথা বলা সমর্থক ও ক্লাবের জন্য বিরক্তিকর।’

default-image

স্টিভ ব্রুস
সদ্যই ছাঁটাই হয়েছেন নিউক্যাসল ইউনাইটেডের কোচ হিসেবে। নিউক্যাসলের নতুন সৌদি মালিক তাঁকে যোগ্য বলে মনে করেননি। আপাতত বেকারই আছেন এই ইংলিশ কোচ। এর মধ্যেই ইউনাইটেডের কোচের চেয়ার ফাঁকা হয়েছে, ব্রুসও আগ্রহী হয়ে উঠেছেন সম্ভাব্য চাকরির সন্ধান পেয়ে। ব্রুস নিজেও আগে ইউনাইটেডের খেলোয়াড় ছিলেন, অধিনায়ক হয়ে সামলাতেন রক্ষণভাগ। ফলে ইউনাইটেডের জন্য মনের কোণে এখনো দুর্বলতা কাজ করেই।

default-image

দ্য অ্যাথলেটিক জানিয়েছে, ইউনাইটেডের আপৎকালীন ম্যানেজার হতে ব্রুসের কোনো সমস্যা নেই। ব্রুসের ধারণা, রোনালদো-ফার্নান্দেজদের ড্রেসিংরুম তিনি দক্ষ হাতেই সামলাতে পারবেন। শুধু তাই-ই নয়, সাবেক ইংলিশ অধিনায়ক ও ডিফেন্ডার, আর্সেনাল কিংবদন্তি সল ক্যাম্পবেল জানিয়েছেন, আপাতত দায়িত্ব নেওয়ার জন্য প্রিমিয়ার লিগের বিভিন্ন ক্লাবের হয়ে এক হাজার ম্যাচ কোচিং করানো ব্রুসই যোগ্য মানুষ।

default-image

মাইকেল ক্যারিক
সুলশারের জায়গায় আপাতত ভারপ্রাপ্ত কোচ হিসেবে ইউনাইটেডের সাবেক এই মিডফিল্ডারকেই দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তবে কে জানে, আপৎকালে যদি অবিশ্বাস্য কিছু ফলাফল এনে দিতে পারেন, তাহলে হয়তো তাঁকেই স্থায়ী ম্যানেজার বানিয়েও ফেলতে পারে ইউনাইটেড। পূর্বসূরি সুলশারের ক্ষেত্রে তো সেটাই হয়েছিল!

ইউনাইটেডের সাবেক তারকা স্ট্রাইকার দিমিতার বারবেতভ ভারপ্রাপ্ত কোচ হিসেবে ক্যারিকের প্রতিই নিজের আস্থার কথা জানিয়েছেন।

default-image

লুইস এনরিকে
শোনা গেছে, দলের সবচেয়ে বড় তারকা ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো নিজেদের পরবর্তী কোচ হিসেবে প্রস্তাব করেছেন বার্সেলোনার সাবেক ও স্পেনের বর্তমান কোচ লুইস এনরিকের নাম। সেই লুইস এনরিকে, যিনি একসময় রোনালদোদের শত্রুই ছিলেন। বার্সেলোনার কোচ হিসেবে এককালে রোনালদোর রিয়াল মাদ্রিদকে থামানোর ছক কষতেন। সে কাজে সফলও হয়েছিলেন বেশ। ২০১৫ সালে মেসি-নেইমার-সুয়ারেজকে নিয়ে বার্সাকে তাঁদের ইতিহাসের সবশেষ ট্রেবল (এক মৌসুমে তিন মূল শিরোপার তিনটিই) জিতিয়েছেন। সে কারণেই হয়তো প্রতিপক্ষ হিসেবে রোনালদোর সম্মান অর্জন করে নিয়েছিলেন এনরিকে। নয়তো ইউনাইটেডের কোচ হিসেবে এনরিকেকে কেন চাইবেন রোনালদো?

তবে রোনালদো চাইলেই তো আর হয় না, এনরিকের ইচ্ছাও থাকা দরকার। সে ইচ্ছাটা যে নেই, সেটা বোঝা গেছে স্প্যানিশ এই কোচের কথায়। স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম লা সেক্সতার সঙ্গে আলাপে ম্যান ইউনাইটেডের কোচ হওয়ার প্রস্তাব নিয়ে একরকম ঠাট্টাই করেছেন এনরিকে, ‘আজ এপ্রিল ফুল দিবস নাকি? আমি স্পেনের সবচেয়ে বড় দলের কোচ। জাতীয় দলের। আমাদের এখানে পাঁচ হাজার খেলোয়াড় আছে, আমি যাকে খুশি তাকে ডাকতে পারি দলে। এর চেয়ে বড় আর কী হতে পারে? আমাদের উপভোগ করতে হবে বিষয়টা। আমি যেখানে আছি, সেখানেই খুশি।’

default-image

লরাঁ ব্লাঁ
বারবেতভের পছন্দের তালিকায় আরও একজন আছেন। যাঁকে এই বুলগেরিয়ান স্ট্রাইকার ইউনাইটেডের স্থায়ী ম্যানেজার হিসেবে দেখতে চান। তিনি পিএসজির সাবেক কোচ, ইউনাইটেডের সাবেক খেলোয়াড় ও বিশ্বকাপজয়ী ফরাসি ডিফেন্ডার লরাঁ ব্লাঁ।

বর্তমানে কাতারি ক্লাব আল রাইয়ানের দায়িত্বে থাকা এই ম্যানেজার ইউনাইটেডকে শক্ত হাতে সামলাতে পারবেন বলে বিশ্বাস বারবেতভের, ‘লরাঁ ব্লাঁ একজন আকর্ষণীয় কোচ। সে ফ্রান্স ও পিএসজির কোচ ছিল। খেলোয়াড়েরা তাকে সম্মান করে। ইউনাইটেডকে কোচিং করানোর সব যোগ্যতাই তার আছে।’

default-image

রালফ রাংনিক
এক্সপ্রেস, টক স্পোর্টসের মতো বিভিন্ন গণমাধ্যম আবার সামনে এনেছে জার্মান কোচ রালফ রাংনিকের নাম। লাইপজিগের সাবেক কোচ ও ক্রীড়া পরিচালকের দায়িত্বে থাকা রাংনিক কিছুদিন আগেই যোগ দিয়েছেন লোকোমোটিভ মস্কোর ক্রীড়া উন্নয়নবিষয়ক প্রধান হিসেবে। এর আগে শালকে, হ্যানোভার, স্টুটগার্ট, হফেনহেইমের মতো একাধিক জার্মান ক্লাবের দায়িত্বে ছিলেন তিনি। লাইপজিগের উত্থানের পেছনে তাঁর অন্যতম ভূমিকা ছিল।

টক স্পোর্টস জানিয়েছে, কোচ হিসেবে জিদান বা পচেত্তিনোকে যদি ইউনাইটেড না পায়, তাহলে রাংনিকের দিকে হাত বাড়াবে তাঁরা। তবে আপৎকালীন দায়িত্বে আগ্রহী নন এই কোচ। এর আগে ফ্রাঙ্ক ল্যাম্পার্ডকে ছাঁটাই করার পর চেলসির পরবর্তী কোচ হিসেবে রাংনিকের নাম উঠলে তিনি স্পষ্ট জানিয়েছিলেন, তাঁকে স্থায়ী কোচ বানানো না হলে দায়িত্ব নিতে আগ্রহী নন তিনি।

default-image

হুলেন লোপেতেগি
এদিকে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর এজেন্ট হোর্হে মেন্দেস তাঁর আরেক মক্কেল হুলেন লোপেতেগিকে ইউনাইটেডের ম্যানেজার বানানোর জন্য উঠেপড়ে লেগেছেন বলে জানা গেছে। বর্তমানে সেভিয়ার দায়িত্বে থাকা এই কোচ গত বছরেই জিতেছেন ইউরোপা লিগের শিরোপা। এর আগে স্পেন জাতীয় দল ও রিয়াল মাদ্রিদেরও দায়িত্বে ছিলেন লোপেতেগি। ২০২৪ সাল পর্যন্ত সেভিয়ার সঙ্গে লোপেতেগির চুক্তি, অর্থাৎ তাঁকে আনতে চাইলেও টাকা খরচ করতে হবে ইউনাইটেডকে।

default-image

ওয়েইন রুনি
ইউনাইটেডের সাবেক কিংবদন্তি খেলোয়াড় ওয়েইন রুনির নামও সম্ভাব্য ম্যানেজারদের তালিকায় ঠারেঠোরে শোনা যাচ্ছে। বর্তমানে দ্বিতীয় বিভাগের দল ডার্বি কাউন্টির দায়িত্বে আছেন এই কোচ। তবে রুনি জানিয়ে দিয়েছেন, আপাতত ইউনাইটেডের কোচ হওয়ার ব্যাপারে আগ্রহ নেই তাঁর, ‘হয়তো একদিন আমি ইউনাইটেডের ম্যানেজার হব। তবে আপাতত আমার ফোকাস ডার্বির দিকেই।’

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন