প্রাক-মৌসুমে জুভেন্টাসের প্রথম ম্যাচেই গোল পেলেন রোনালদো।
প্রাক-মৌসুমে জুভেন্টাসের প্রথম ম্যাচেই গোল পেলেন রোনালদো। ছবি: টুইটার

কোচ নতুন। খেলার ধরন-কৌশল নতুন। কিন্তু ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর তো আর বদলানোর দরকার পড়ছে না। জুভেন্টাসের পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড আছেন আগের মতোই। প্রতিপক্ষ গোলপোস্টের সামনে একই রকম ভয়ংকর। হয়তো বা আগের চেয়েও বেশি ভয়ংকর।

জুভেন্টাসকে চার লিগ জেতানো কিংবদন্তি ইতালিয়ান মিডফিল্ডার আন্দ্রেয়া পিরলো এখন দলটার কোচ, আজ ইতালির তৃতীয় বিভাগের দল নোভারার বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচ দিয়েই হয়েছে জুভেন্টাস ডাগআউটে পিরলোর অভিষেক। শুরুটা দারুণই হয়েছে। জুভেন্টাস ৫-০ গোলে জিতেছে। আর পিরলোর শুরুটা রাঙিয়ে দিয়েছেন রোনালদো। দলের প্রথম গোলটিই ৩৫ বছর বয়সী পর্তুগিজ ফরোয়ার্ডের।

বিজ্ঞাপন

ম্যাচের ২০ মিনিটেই রোনালদোর গোল। প্রতিপক্ষ বক্সের সামনে সতীর্থ দেয়ান কুলুসেভস্কির সঙ্গে বল দেওয়া-নেওয়ার পর বক্সে বল আসে রোনালদোর পায়ে। দুই প্রতিপক্ষ ডিফেন্ডার তাঁর দিকে এগিয়ে আসছিলেন বটে, কিন্তু বক্সে রোনালদোর কয়েক সেকেন্ড সময় পাওয়ার ফল কী হতে পারে, তা নিয়ে সম্ভবত এই ধরাধামে কারওই সংশয় থাকার কথা নয়। পর্তুগিজ ফরোয়ার্ডের ডান পায়ের শট ডান দিকে ঝাঁপিয়েও ঠেকানোর সাধ্য ছিল না নোভারা গোলকিপারের।

মাত্রই পর্তুগাল জাতীয় দলের জার্সিতে সুইডেনের বিপক্ষে উয়েফা নেশনস লিগের ম্যাচ খেলে এসেছেন, যে ম্যাচে দুই গোল করে পেরিয়েছেন জাতীয় দলে ১০০ গোলের মাইলফলক। রোনালদোর ধকলের কথা ভেবেই হোক, আর অন্যদের পরখ করে দেখার ইচ্ছায়—৪৫ মিনিটের পর রোনালদোকে তুলে নেন পিরলো।

বিজ্ঞাপন

জুভেন্টাসের দ্বিতীয় গোলটি পেতে অবশ্য বেশ সময় লেগেছে। প্রতিপক্ষ পোস্টের সামনে বল পেলেই বারবার যেখান-সেখান থেকে তাড়াহুড়ো করে শট নিচ্ছিলেন জুভেন্টাসে ধারে আসা ম্যাককেনি কিংবা কুলুসেভস্কিরা। অবশেষে আরেকটি গোলের অপেক্ষা ফুরিয়েছে ৫৬ মিনিটে, অ্যারন রামসির সৌজন্যে। ৬৬ মিনিটে গোল মার্কো পিয়াকার। আর যোগ করা সময়ে তিন মিনিটের মধ্যে দুই গোল আসে যুবদলের মানোলো পোর্তানোভার কাছ থেকে।

প্রথম ম্যাচেই এমন জয়ে পিরলো স্বাভাবিকভাবেই খুশি। ম্যাচের পর স্কাই ইতালিয়াতে জুভ কোচের তৃপ্তি, ‘ছেলেরা কাজের নতুন ঢংয়ে পরিচিত হচ্ছে এখনো। মজাই পাচ্ছে ওরা।’ এখনো দল নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে তাঁর, তা-ও জানাতে ভোলেননি পিরলো, ‘আমরা অনেক ছকই চেষ্টা করে দেখছি। আজ প্রথমার্ধে রক্ষণে চারজন নিয়ে খেলেছি, যদিও সেটা কখনো কখনো তিনজনের হয়েছে। দ্বিতীয়ার্ধে আমরা রক্ষণে তিনজন রেখেই খেলেছি, ভিন্ন কিছু চেষ্টা করেছি।’

বিজ্ঞাপন
default-image

তবে গোল পেলেও শুধু রোনালদোর ওপর ভরসা করে তো আর পুরো মৌসুম পার পাওয়া যাবে না! গোল করার মতো আরও কাউকে চাই জুভেন্টাসের। তারওপর এবার গঞ্জালো হিগুয়েইনকেও ছেড়ে দিয়েছে জুভেন্টাস, আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার যোগ দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রে ডেভিড বেকহামের ক্লাব ইন্টার মায়ামিতে। পিরলো তাই সংবাদমাধ্যমে সরাসরিই জানিয়ে দিলেন তাঁর চাওয়া, ‘যত শিগগির সম্ভব আমার একজন স্ট্রাইকার চাই। তবে দলবদলের বাজারে তো এখনো অনেক দিন বাকি। অক্টোবরের শুরুর দিক পর্যন্ত চলবে। এটি নিয়ে কাজ করার কিছু সময় পাব আমরা।’
রোনালদোকে নিয়ে পিরলোর তৃপ্তি, ‘রোনালদো (শারীরিকভাবে) একেবারে ঠিক আছে। সেটা আজ আর এর আগে জাতীয় দলে ও দেখিয়েছে। (এক দল থেকে আরেক দলে) কী সহজে ঢুকে যায় ও!’

মন্তব্য পড়ুন 0