default-image

এ মৌসুমেই ঘরে ফিরেছেন রোনালদো। প্রত্যাবর্তনটা দুই রকম স্বাদ দিয়েছে তাঁকে। নিজের প্রথম ম্যাচেই জোড়া গোল করেছেন। এই মৌসুমে ক্লাব সর্বোচ্চ ২৪ গোল করেছেন, ক্লাবকে একাই চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলোতে নিয়েছেন, লিগে টটেনহাম ও নরউইচের বিপক্ষে দুটি হ্যাটট্রিকও আছে। ব্যক্তিগতভাবে খুব একটা খারাপ মৌসুম কাটাননি। কিন্তু দলীয়ভাবে মৌসুমটা খুব বাজে কেটেছে। এক যুগ পর কোনো ট্রফি ছাড়াই মৌসুম কাটালেন। এই মৌসুমের ব্যর্থতা নিশ্চিত করছে, আগামী মৌসুমে ইউনাইটেডে থাকলে এই প্রথম চ্যাম্পিয়নস লিগের স্বাদ ছাড়াই মৌসুম কাটাতে হবে।

default-image

এ অবস্থায় রোনালদোর ক্লাব ছাড়ার চিন্তা হতেই পারে। তবে বেকহাম আশায় আছেন, এমন কিছু হবে না। স্কাই স্পোর্টসে সাবেক ইংলিশ মিডফিল্ডার বলেছেন, ‘গত ১৫ বছরে লিও মেসির পাশাপাশি ক্রিস্টিয়ানোই সেরা খেলোয়াড়। ওকে ইউনাইটেডে খেলতে দেখা সমর্থকদের জন্য এবং ওর জন্যও গুরুত্বপূর্ণ। আমরা সবাই জানি ওর জন্য ইউনাইটেড কতটা গুরুত্বপূর্ণ।’

৩৭ বছর বয়সে এসেও দলের সর্বোচ্চ গোলদাতা রোনালদো। মৌসুমে ইউনাইটেডের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ গোলদাতা ব্রুনো ফার্নান্দেজের (১০ গোল) দ্বিগুণের বেশি গোল তাঁর। এ কারণেই রোনালদো ছাড়া আগামী মৌসুমের ইউনাইটেডের চিন্তা মাথায় আনছেন না বেকহাম, ‘সে যা করে তাতে এখনো সে সেরা। গোল করছে, সুযোগ সৃষ্টি করছে...এটাই তো ক্রিস্টিয়ানোর কাজ। এ বয়সেও সে যা করছে, সেটা দুর্দান্ত। আশা করি, এটা চলতে থাকবে এবং আরও এক বা দুই বছর সে এখানে থাকবে।’

default-image

ইংলিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি মিরর জানাচ্ছে, ইউনাইটেডে থাকা না থাকার ব্যাপারে ক্লাবের কিংবদন্তি কোচ স্যার অ্যালেক্স ফার্গুসনের সঙ্গেও নিয়মিত কথা বলছেন রোনালদো। ম্যানচেস্টারের চেশায়ার অঞ্চলে রোনালদোর কাছেই ফার্গুসনের বাসা, দুজনের নিয়মিত কথা হয় বলে জানাচ্ছে মিরর। তা রোনালদোকে ফার্গুসনের পরামর্শ কী? ইউনাইটেডে ‘লিগ্যাসি’ গড়তে আগামী মৌসুমেও ক্লাবে থেকে যাওয়া!
রোনালদো থাকবেন নাকি থাকবেন না?

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন