জুভেন্টাস আটকে গেছে ক্রোতোনের কাছে।
জুভেন্টাস আটকে গেছে ক্রোতোনের কাছে। ছবি : রয়টার্স

রোনালদোর ওপর জুভেন্টাস যে কতটা নির্ভরশীল, আরেকবার সেটা বোঝা গেল। পর্তুগালের হয়ে খেলতে গিয়ে কোভিড-১৯ পজিটিভ হয়েছেন রোনালদো। ফলে কোয়ারেন্টিনেই বসবাস এখন তাঁর। রোনালদোহীন জুভেন্টাস গত রাতে খেলতে নেমেছিল ক্রোতোনের বিপক্ষে। রোনালদোর অভাব হাড়ে হাড়ে টের পেয়েছে তুরিনের দলটা। পয়েন্ট তালিকার ১৮ নম্বরে থাকা ক্রোতোনের বিপক্ষে ম্যাচটি ড্র হয়েছে ১-১ গোলে।

শুধু যে রোনালদোই ছিলেন না, তা নয়। করোনার কারণে কোয়ারেন্টিনে আছেন যুক্তরাষ্ট্রের মিডফিল্ডার ওয়েস্টন ম্যাকেনিও। বিভিন্ন চোটের কারণে মাঠে ছিলেন না পাওলো দিবালা, অ্যারন র‍্যামসি, ম্যাটাইস ডি লিখট, অ্যালেক্স সান্দ্রো প্রমুখ। সন্দেহ ছিল ফেদেরিকো বার্নারদেসকির ফিটনেস নিয়েও। ওদিকে লাল কার্ডের খাঁড়ায় পড়ে নিষিদ্ধ ছিলেন ফরাসি মিডফিল্ডার আদ্রিয়াঁ রাবিও। ফলে কয়েকজন নতুন মুখের শরণ নিতে হয়েছে জুভেন্টাস কোচ আন্দ্রেয়া পিরলোকে। এই নতুনদের কেউ একাডেমির, আবার কেউ এ মৌসুমেই জুভেন্টাসে এসেছেন।

লেফট উইংব্যাক হিসেবে খেলেছেন জিয়ানলুকা ফ্রাবোত্তা। স্ট্রাইকারের পেছনে দলে নতুন আসা কুলুসেভস্কির সঙ্গে নেমেছিলেন আনকোরা মানোলো পোর্তানোভা। ওদিকে ফিওরেন্টিনার থেকে কিছুদিন আগে দলে আসা উইঙ্গার ফেদেরিকো কিয়েসা খেলেছেন রাইট উইংব্যাক হিসেবে। সবার সামনে ছিলেন আরেক নতুন আসা আলভারো মোরাতা। এই ম্যাচের আগে তিন ম্যাচ খেলতে নেমে দশ গোল খেয়েছিল ক্রোতোনে। রোনালদো না থাকলেও জুভেন্টাস হেসেখেলে জিতবে, এমনটা মনে করা হলেও তেমনটা হয়নি।

default-image
বিজ্ঞাপন

প্রতিপক্ষের মাঠে খেলতে নেমে প্রথমেই পিছিয়ে পড়ে জুভেন্টাস। ম্যাচের ১২ মিনিটে ইতালির ডিফেন্ডার লিওনার্দো বোনুচ্চি ডি-বক্সে ফেলে দেন ক্রোতোনের লেফট উইংব্যাক আরকাদিউশ রেকাকে। সেখান থেকে পাওয়া পেনাল্টিতে গোল করেন নাইজেরিয়ার স্ট্রাইকার সিমি চুয়োকো নুয়ানকো। তবে খুব বেশিক্ষণ যে জুভেন্টাসকে পিছিয়ে থাকতে হয়নি,নয় মিনিট পরই আলভারো মোরাতার কল্যাণে সমতায় ফেরে তারা।

কিছুদিন আগেই আতলেতিকো মাদ্রিদ থেকে ধারে পিরলোর দলে নাম লিখিয়েছেন এই স্ট্রাইকার, এ ম্যাচে সুযোগ পেয়েছিলেন রোনালদোর বদলি হিসেবে। গোল করে কোচের আস্থার প্রতিদান দিয়েছেন এ স্প্যানিশ তারকা। মোরাতার গোলের পেছনে ভূমিকা আছে দলে নতুন আসা আরও দুই তারকা কিয়েসা ও কুলুসেভস্কির। মাঝমাঠ থেকে কুলুসেভস্কির ডিফেন্স-চেরা পাস খুঁজে পায় ডানদিকে থাকা কিয়েসাকে। সেখান থেকে মাটি ঘেঁষা এক ক্রসে বল পাঠান ডি-বক্সে থাকা মোরাতার দিকে। দুর্দান্ত ট্যাপ ইনে গোল করে দলকে সমতায় ফেরান এই স্প্যানিশ স্ট্রাইকার।

default-image

তবে এমন দুর্দান্ত এক অ্যাসিস্টের পরেও আনন্দ নিয়ে মাঠ ছাড়তে পারেননি কিয়েসা। ৬০ মিনিটে ক্রোতোনের অভিজ্ঞ ইতালিয়ান মিডফিল্ডার লুকা চিগারিনিকে ফাউল করে সরাসরি লাল কার্ড দেখেন এই উইংব্যাক। তবে ম্যাচে এগিয়ে যাওয়ার সুযোগও পেয়েছিল জুভেন্টাস। মোরাতাই সুযোগ পেয়েছিলেন দুবার। একবার তাঁর হেড পোস্টে লেগে ফিরে আসে, আরেকবার বল জালে জড়ালেও অফসাইডের কারণে তা বাতিল হয়ে যায়। শেষমেশ ড্র নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয় তাঁদের।

ওদিকে গত দুই মৌসুমের ‘সারপ্রাইজ প্যাকেজ’ আতালান্তাকে ৪-১ গোলে হারিয়েছে নাপোলি। প্রথমার্ধেই ৪-০ গোলে এগিয়ে গিয়েছিল জেনারো গাত্তুসোর দল। জোড়া গোল পেয়েছেন মেক্সিকোর উইঙ্গার হিরভিং লোজানো, একটি করে গোল পেয়েছেন দলে নতুন আসা স্ট্রাইকার ভিক্টর ওসিমহেন ও ইতালিয়ান উইঙ্গার মাত্তেও পলিতানো। আতালান্তার হয়ে সান্ত্বনাসূচক গোলটা করেছেন দলে নতুন আসা ডাচ স্ট্রাইকার স্যাম ল্যামার্স।

মন্তব্য পড়ুন 0