বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

‘এল ক্লাসিকো’র সেই আগের দিন না থাকলেও প্রতিদ্বন্দ্বীতার ঝাঁঝ যে ফুরোয়নি তা কাল বুঝিয়ে দিয়েছে রিয়াল ও বার্সেলোনা। ম্যাচে দুবার পিছিয়ে পড়েও ঘুরে দাঁড়িয়েছে বার্সা। কিন্তু ৩-২ গোলের জয়ে শেষ হাসি হেসেছে রিয়ালই। ক্লাসিকোয় নিজেদের শততম এই জয়ে সুপার কাপের ফাইনালেও উঠল কার্লো আনচেলত্তির দল।

default-image

দুই দল যে গোলের জন্যই নেমেছিল তা বোঝা যায় পরিসংখ্যানে। ২০টি শটের ৬টি লক্ষ্যে রাখতে পেরেছে বার্সা, রিয়ালের নেওয়া ১৪টি শটের মধ্যে গোলপোস্টে ছিল ৮টি শট। বদলি হয়ে নামা ভালভার্দে ৯৮ মিনিটে দারুণ এক দলীয় আক্রমণ থেকে জয়সূচক গোল করেন। ডান প্রান্ত থেকে আসা ক্রসে ডামি করেন ভিনিসিয়ুস জুনিয়র।

অরক্ষিত বার্সা রক্ষণে সুবিধামতো জায়গায় বল পেয়ে যান ভালভার্দে। তাঁর শটের জবাব ছিল না বার্সা গোলকিপার মার্ক-আন্দ্রে টের স্টেগেনের কাছে। ম্যাচে প্রথম গোলটি ভিনিসিয়ুসের কাছ থেকেই পেয়েছে রিয়াল। ২৫ মিনিটে ওয়ান-অন-ওয়ান পরিস্থিতি থেকে গোল করেন তিনি।

প্রথমার্ধ শেষ হওয়ার আগে ৪১ মিনিটে লুক ডি ইয়ংয়ের গোলে সমতায় ফেরে বার্সা। বিরতির পর নির্ধারিত সময়ের মধ্যে দেখা গেল আরও দুই গোল। \

৭২ মিনিটে করিম বেনজেমা রিয়ালকে আবারও এগিয়ে দেওয়ার পর ৮৩ মিনিটে বার্সাকে আবারও সমতায় ফেরান আনসু ফাতি। এরপর ৯৮ মিনিটে ভালভার্দের গোলের পর আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি বার্সা। অন্য সেমিফাইনালে আতলেতিকো মাদ্রিদ ও অ্যাথলেটিক বিলবাওয়ের মধ্যে জয়ী দলের বিপক্ষে ফাইনালে মাঠে নামবে রিয়াল।

default-image

জয়ের পর ম্যাচের রোমাঞ্চ নিয়ে কথা বলেন রিয়াল তারকা বেনজেমা, ‘আমি জানি না, এটা আমার খেলা সেরা ক্লাসিকো কি না। তবে ম্যাচে অনেক রোমাঞ্চ ছিল। বার্সা সব সময়ই কঠিন প্রতিপক্ষ।’

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন