default-image
>

কিছুদিন আগেই কোমরে অস্ত্রোপচার করিয়েছেন। এরপর যেন শারীরিকভাবে আরও ভেঙে পড়েছেন ৭৯ বছর বয়সী পেলে। নিজের এই শারীরিক দুর্বলতার কারণে এই ব্রাজিল মহাতারকার মনে জন্ম দিয়েছে হীনম্মন্যতা ও অবসাদ

পেলে বলতেই চোখের সামনে কী ভেসে ওঠে?

সুঠাম দেহের দুর্দান্ত এক ফুটবলার মুহূর্তের মধ্যে বল নিয়ে কারিকুরি করে নাকানি–চুবানি খাওয়াচ্ছেন প্রতিপক্ষ ডিফেন্ডারদের। গতি দিয়ে পরাস্ত করছেন সবাইকে। সেই পেলেই এখন চলতে ফিরতে পারেন না!

বেশ কিছুদিন ধরেই কোনো অনুষ্ঠানে দেখা যাচ্ছে না পেলেকে। এর পেছনে কারণও ছিল। কিছুদিন আগেই কোমরে অস্ত্রোপচার করিয়েছেন। এখনো পুরোপুরি সুস্থ হয়ে উঠতে পারেননি। তা ছাড়া বয়সও ঠিক পক্ষে নেই। সব মিলিয়েই বলা যায়, ভালো নেই পেলে। সেটাই যেন নিশ্চিত করলেন পেলের ছেলে এডিনহো। জানিয়েছেন, তাঁর বাবা অবসাদে ভুগছেন।

অস্ত্রোপচারের পর শরীরের অবস্থা তেমন ভালো হয়নি বলে জানিয়েছেন এডিনহো, ‘শারীরিক অবস্থা তেমন ভালো নয়। অনেক দুর্বল হয়ে পড়েছেন। কিছুদিন আগে কোমরে অস্ত্রোপচার হয়েছিল তাঁর। অস্ত্রোপচারের পর যতটুকু আদর্শ পুনর্বাসনের দরকার ছিল, সেটা পাননি বাবা। ওনার চলতে–ফিরতে সমস্যা হচ্ছে তাই। আর এ কারণে তিনি মানসিক অবসাদে ভুগছেন।’

এককালে যিনি ফুটবল মাঠে রাজত্ব করেছেন, জাতিকে বিশ্ব জয়ের আনন্দে ভাসিয়েছেন তিন-তিন বার, সে পেলেই এখন অন্যের সাহায্য ছাড়া নড়তে পারেন না। আর এটাই তাঁর মানসিক অবসাদের কারণ, ‘ভেবে দেখুন, এককালে যিনি রাজার মতো খেলতেন, সুঠাম দেহের অধিকারী ছিলেন, তিনি এখন ঠিকমতো হাঁটতেও পারেন না। নড়াচড়া করার জন্য অন্যের সহায়তা লাগে। এ কারণে বাবা লজ্জিত। কিছুদিন আগে হুইলচেয়ারে চলাচল করতেন তিনি, অবস্থা তখনকার চেয়ে ভালো। তবুও হাঁটতে অনেক সমস্যা হচ্ছে ওনার। এ কারণেই তিনি বাইরে সবার সামনে মুখ দেখাতে চাইছেন না। বাসার মধ্যে লুকিয়ে থাকছেন।’

২০১৮ ফুটবল বিশ্বকাপের সময়ে হুইলচেয়ারে করে দেখা গিয়েছিল পেলেকে।

ক্রীড়াবিদদের মানসিক অবসাদের ঘটনা এটাই নতুন নয়; মূলত এটা দেখা যায় ক্রিকেটারদের মধ্যে। মার্কাস ট্রেসকোথিক, জোনাথন ট্রট, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, শন টেইট থেকে অ্যান্ড্রু ফ্লিনটফ—মানসিক অবসাদে ভুগেছেন অনেকেই।

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন