রামোস চান মেসি বার্সাতেই থাকুন।
রামোস চান মেসি বার্সাতেই থাকুন।ছবি: এএফপি

দৃশ্যগুলো নিশ্চয়ই চোখে ভাসছে। রিয়াল মাদ্রিদের বক্সে বল পায়ে লিওনেল মেসি। তাঁকে থামাতে সচেষ্ট সার্জিও রামোস। লা লিগায় দুই তারকার এ লড়াই কি আর দেখা যাবে? মেসি বার্সা ছাড়ার সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেওয়ার পর প্রশ্নটা এখন উঠছে। রিয়াল মাদ্রিদ অধিনায়ক রামোসের চাওয়া অবশ্য মেসির ইচ্ছার বিপক্ষে। স্প্যানিশ ফুটবল, বার্সেলোনা এমনকি রিয়াল মাদ্রিদের জন্যও তাঁর চাওয়া কাতালান ক্লাবটিতে থেকে যান মেসি।

রামোসের কথায় একটি বিষয় স্পষ্ট। মেসি বার্সা ছেড়ে অন্য কোনো লিগের দলে যোগ দিলে ক্ষতিগ্রস্ত হবে স্পেনের শীর্ষস্থানীয় লিগ।
বিজ্ঞাপন

রামোস রিয়াল অধিনায়ক হিসেবে কথাগুলো বলেননি। উয়েফা নেশনস লিগে আজ রাতে জার্মানির মুখোমুখি হবে স্পেন। রামোস স্পেন দলেরও নেতৃত্বে। ম্যাচের আগে সংবাদ সম্মেলনে তাঁকে কথা বলতে হয়েছে মেসি-বার্সা সম্ভাব্য বিচ্ছেদ নিয়ে। আর্জেন্টাইন তারকার লা লিগায় থেকে যাওয়ার পক্ষ নিলেও রামোস মনে করেন, নিজের ভবিষ্যৎ নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার অধিকারটুকু অর্জন করেছেন মেসি। তবে মেসি সঠিক উপায়ে এ সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন কি না সে সম্পর্কে ধারণা নেই ৩৪ বছর বয়সী এ ডিফেন্ডারের।

সংবাদমাধ্যমকে রামোস বলেন, ‘মেসির বিষয়টি পাশ কাটাতে হচ্ছে কারণ এটি আমাদের ভাবনা নয়। সে নিজের ভবিষ্যৎ নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার সম্মানটুকু অর্জন করেছে। সেটি সঠিক উপায়ে করছে কি না তা আমি জানি না। স্প্যানিশ ফুটবল, বার্সা এমনকি নিজেদের জন্যও (রিয়াল মাদ্রিদ)—যারা সেরাদের হারাতে চায়— আমরা চাই সে থাকুক। লা লিগা, বার্সা ও ক্লাসিকোকে আরও ভালো করেছে লিও। সবাই সেরা হতে চায় এবং সে বিশ্বের অন্যতম সেরা। কোনোরকম সন্দেহ ছাড়াই নিজের ভবিষ্যৎ নিয়ে নিজে সিদ্ধান্ত নেওয়ার সম্মান সে অর্জন করেছে। দেখা যাক কী ঘটে। তবে এ নিয়ে আমাদের ভাবনা নেই।’

default-image

রামোসের কথায় একটি বিষয় স্পষ্ট। মেসি বার্সা ছেড়ে অন্য কোনো লিগের দলে যোগ দিলে ক্ষতিগ্রস্ত হবে স্পেনের শীর্ষস্থানীয় লিগ। একই মত রামোসের ক্লাব সতীর্থ লুকা মদরিচের। রিয়াল মাদ্রিদের এ মিডফিল্ডার সংবাদ সংস্থা এএফপিকে বলেন, ‘এটা ঘটলে লিগের সম্মান ভীষণ ক্ষতিগ্রস্ত হবে। কিন্তু আমাদের সামনে এগোতে হবে। তখন অন্যরা তারকা হয়ে উঠবে। রোনালদো (রিয়াল থেকে) চলে যাওয়ার সময়ও একই ব্যাপার ঘটেছে। রিয়াল কিন্তু তাকে ছাড়াই এগিয়েছে। মেসি চলে গেলেও বার্সা ও লা লিগার ক্ষেত্রে একই ব্যাপার ঘটবে।’

ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ২০১৮ সালে রিয়াল মাদ্রিদ ছাড়ার পর দুজন কোচ বদলেছে ক্লাবটি। এরপর তারা ফিরে এসেছে জিনেদিন জিদানের কাছে। তবে সাফল্য তেমন একটা আসেনি। এবার লা লিগা জিতলেও চ্যাম্পিয়নস লিগে শেষ দুবারই তারা বিদায় নিয়েছে শেষ ষোলো থেকে।

default-image
বিজ্ঞাপন

চ্যাম্পিয়নস লিগ কোয়ার্টার ফাইনালে বায়ার্ন মিউনিখের কাছে ৮-২ গোলে হেরে বিদায় নেয় বার্সা। এরপরই বার্সা ছাড়ার সিদ্ধান্ত ক্লাবকে জানান মেসি। কিন্তু কাতালান ক্লাবটির দাবি, মেসির সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ ফুরোয়নি। আর্জেন্টাইন তারকাকে যেতে হলে পরিশোধ করতে হবে রিলিজ ক্লজের ৭০ কোটি ইউরো। ওদিকে মেসির দাবি তিনি ক্লাবের শর্ত মেনেই যেতে চাচ্ছেন ফ্রি-এজেন্ট হিসেবে এ নিয়ে কাল বৈঠকে বসেছিল মেসির বাবা ও এজেন্ট হোর্হে মেসি এবং বার্সা সভাপতি জোসেপ মারিয়া বার্তোমেউ।

দুই পক্ষের বৈঠকে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। কোনো সমঝোতায় পৌঁছাতে পারেননি হোর্হে মেসি ও বার্তোমেউ। তবে কথা চালাচালি এখনো শেষ হয়নি। স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে মেসি শিবির ও বার্সার মধ্যে আবারও কথা চালাচালি হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। কিংবা আদালতে যেতে পারে দুই পক্ষ।

আমরা চাই সে (মেসি) থাকুক (বার্সেলোনায়)
সার্জিও রামোস, রিয়াল মাদ্রিদ অধিনায়ক

বার্সার চুক্তিতে শর্ত ছিল, প্রতি মৌসুম শেষে চাইলে ক্লাব ছাড়তে পারবেন মেসি। তবে এ ইচ্ছাটা জানাতে হবে মৌসুম শেষ হওয়ার ২০ দিন আগে। তা না করলে নতুন মৌসুমের জন্য কাতালান ক্লাবটির সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হবেন মেসি। আর্জেন্টাইন তারকা নতুন মৌসুমের আগে ক্লাব ছাড়ার ইচ্ছা প্রকাশ করে দাবি করেন, করোনাভাইরাস মহামারিতে এ মৌসুম স্বাভাবিক সময়ে শেষ হয়নি, আরও পিছিয়েছে, আর এই পেছানো সময় ধরেই বার্সার শর্তের মধ্যে থেকে সিদ্ধান্তটা নিয়েছেন তিনি। কিন্তু বার্সার কাছে মেসির এই দাবি ভিত্তিহীন।

বার্সেলোনার দাবি, মেসির ক্লাব ছাড়ার ইচ্ছে কথা জানানোর শেষ সময় ছিল ১০ জুন, সেটা ১০ জুনই থাকবে। করোনার কারণে মৌসুম আগস্ট পর্যন্ত পেছালেও মেসির চুক্তির শর্তের সে মেয়াদ তো আর পেছানো হয়নি। ফলে মেসি এখনো বার্সেলোনার সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ এবং তাঁকে নিতে চাইলে অন্য ক্লাবকে অর্থ খরচ করেই নিতে হবে। আর বার্সেলোনার অনিচ্ছায় নিতে চাইলে সে অঙ্কটা হতে হবে ৭০ কোটি ইউরো।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন