চেলসির বিপক্ষে ম্যাচে সালাহর খেলা না–খেলা নিয়ে সংশয় তৈরি হয়েছিল আফ্রিকা কাপ অব নেশনসের কারণে। আগামী ৯ জানুয়ারি থেকে শুরু হতে যাচ্ছে আফ্রিকার জাতীয় দলগুলো নিয়ে আয়োজিত মহাদেশীয় চ্যাম্পিয়নশিপের ৩৩তম আসর। সেখানে মিসরের দল চাইলে জানুয়ারির শুরু থেকেই সালাহকে দলে ডেকে নিতে পারত। সে ক্ষেত্রে চেলসির বিপক্ষে ম্যাচেও তাঁকে লিভারপুল পাবে না, এমন একটা শঙ্কা ছিল।

কিন্তু মিসর জাতীয় দলের সঙ্গে এখন একটি সমঝোতায় পৌঁছেছে লিভারপুল, যেটি অনুযায়ী, সালাহ ক্লাব ছাড়বেন চেলসি ম্যাচের পর। নেশনস কাপে মিসরের প্রথম ম্যাচ ১১ জানুয়ারি। অর্থাৎ চেলসি ম্যাচের পরও সালাহ নয় দিন সময় পাচ্ছেন নিজেকে গুছিয়ে নেওয়ার।

সালাহর মুখোমুখি হতে হওয়া চেলসির জন্য সম্ভাব্য দুঃসংবাদ, লিভারপুলের জন্য এর চেয়ে ভালো কিছু আর হতে পারত না। এমনিতেই আফ্রিকান নেশনস কাপ লিভারপুলের জন্য সব সময় শঙ্কা নিয়েই আসে। ইয়ুর্গেন ক্লপের এই দলের মূল দুই উইঙ্গার সালাহ ও সাদিও মানে যে আফ্রিকান।

default-image

নেশনস কাপে মানের দেশ সেনেগাল আর সালাহর দেশ মিসর এবার শিরোপাপ্রত্যাশী দলগুলোর সারিতেও আছে। এর বাইরে লিভারপুলের মিডফিল্ডার নাবি কেইতার দেশ গিনিও এবার সুযোগ পেয়েছে নেশনস কাপের মূল পর্বে। এই তিনজনের কারও দল নেশনস কাপের ফাইনালে যাওয়া মানে অন্তত প্রিমিয়ার লিগের দুটি ম্যাচে তাঁকে পাবেন না ক্লপ।

মিসরের পাশাপাশি মানের সেনেগাল আর কেইতার গিনির সঙ্গে এমন কোনো সমঝোতায় যেতে পারে কি না, সেটিই এখন দেখার। সমঝোতা হয়ে গেলে সে ক্ষেত্রে চেলসির বিপক্ষে তিনজনকেই খেলাতে পারবেন ক্লপ।

তবে আপাতত লিভারপুলের জার্মান কোচের হাসি চওড়া হবে সালাহকে চেলসি ম্যাচে পাওয়ার খবরে। মৌসুমের শুরু থেকে এবার চোখধাঁধানো ফর্মে আছেন সালাহ। লিগে ১৮ ম্যাচে গোল করেছেন ১৫টি, করিয়েছেন আরও ৯টি। চ্যাম্পিয়নস লিগে ৬ ম্যাচে করেছেন ৭ গোল।

default-image

এমনই ছন্দে আছেন যে এই মুহূর্তে বিশ্বসেরা ফুটবলারের আলোচনায় তাঁকে লিওনেল মেসি, ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো, কিলিয়ান এমবাপ্পে, করিম বেনজেমা, রবার্ট লেভানডফস্কিদের চেয়েও এগিয়ে রাখেন অনেকে।

চেলসির বিপক্ষে লিগে অবশ্য লিভারপুলের জার্সিতে একেবারে যে চোখধাঁধানো কিছু করেছেন সালাহ, এমন নয়। এখন পর্যন্ত লিগে ৯ বার লিভারপুলের জার্সি গায়ে সাবেক ক্লাবের বিপক্ষে নেমেছেন, তাতে গোল ৩টি, করিয়েছেন আরও ২টি।

সালাহকে চেলসির বিপক্ষে ম্যাচে পাওয়া লিভারপুল কোচ ইয়ুর্গেন ক্লপের জন্য বাড়তি খুশি। এরই মধ্যে নিশ্চিত হয়েছে, করোনায় আক্রান্ত ডিফেন্ডার ভার্জিল ফন ডাইক, ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার ফাবিনিও এরই মধ্যে অনুশীলনে ফিরেছেন। ২৮ ডিসেম্বর লেস্টার সিটির বিপক্ষে ম্যাচেই তাঁদের পেতে পারে লিভারপুল।

এর পাশাপাশি সম্প্রতি যুক্তরাজ্যে করোনার আইসোলেশনের সময় কমিয়ে দেওয়ায় আরেক মিডফিল্ডার থিয়াগো আলকানতারাকেও চেলসির বিপক্ষে ম্যাচে লিভারপুল পেতে পারে, এমন সম্ভাবনার কথা শোনা যাচ্ছে।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন