default-image

ব্রাজিল ও লিভারপুল—দুই দলেরই কোচিং দায়িত্ব একই সঙ্গে পালন করে যাবেন তাফারেল। ব্রাজিল জাতীয় দলের হয়ে ১০১ ম্যাচ খেলেছেন। ব্রাজিলের হয়ে ১৯৯৪ বিশ্বকাপ ও দুবার কোপা আমেরিকা জিতেছেন। ১৯৯৮ সালে ব্রাজিলের যে দল বিশ্বকাপে রানার্সআপ হয়েছিল, সে দলেরও মূল গোলকিপার ছিলেন তাফারেল।

তাফারেলকে নিজের কোচিং দলে পেয়ে বেশ উচ্ছ্বসিত লিভারপুলের ম্যানেজার ইয়ুর্গেন ক্লপ, ‘গোলকিপারদের দিকে তাকালে আমাদের আছে আলিসন বেকার, যাকে বিশ্বের অন্যতম সেরা গোলকিপার বলা যায়। আমাদের আরও আছে খুইভিন কেলেহের, যাকে আমরা অন্যতম প্রতিভাবান খেলোয়াড় হিসেবে মনে করি। আমাদের আদ্রিয়ান আছে, যে নিয়মিত আমাদের নিজের মান দেখিয়েছে। মার্সেলো পিতালুগা ও হার্ভি ডেভিসের মতো বিভিন্ন বয়সের গোলকিপারও আছে আমাদের।’

ক্লপ জানিয়েছেন, তাফারেলকে দলে আনার ব্যাপারে মূল গোলকিপার আলিসনের ভূমিকাই বেশি ছিল, ‘আমরা আলির (আলিসন) সঙ্গে কথা বলেছিলাম। কারণ, বিশ্বের সেরা গোলকিপারদের মধ্যে দুজনই ব্রাজিলের। তাই আমরা ব্রাজিলের গোলকিপিং কোচ তাফারেলকে আনার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিয়েছি। যিনি আমাদের কোচিং দলের জন্য অসাধারণ এক সংযোজন। গোলরক্ষণের ক্ষেত্রে বিশ্বের অন্যতম সেরা ক্লাব যেন লিভারপুল হয়, সে লক্ষ্যেই আরেকজন অভিজ্ঞ কোচকে আমরা নিয়ে এসেছি।’

default-image

ব্রাজিল জাতীয় দলের হয়ে ১৯৮৮ সালে অভিষেক হয়েছিল তাফারেলের। টানা তিনটি বিশ্বকাপ খেলা (১৯৯০, ১৯৯৪, ১৯৯৮) এই গোলকিপার জাতীয় দলে খেলেছেন ২০০৩ সাল পর্যন্ত। ১৯৯৪ বিশ্বকাপের ফাইনালে ইতালির বিপক্ষে টাইব্রেকারে ব্রাজিলের জয়ের মূল নায়ক ছিলেন তিনি।

১৯৯৮ বিশ্বকাপে সেরা ফিফা একাদশে জায়গা করে নিয়েছিলেন তাফারেল। ক্লাব ক্যারিয়ারে খেলেছেন পারমা ও গ্যালাতাসারাইয়ের মতো ক্লাবের হয়ে।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন