লেভানডফস্কিকে ব্ল্যাকমেল করতে গিয়ে কাঠগড়ায়

রবার্ট লেভানডফস্কি ও তাঁর স্ত্রী আনা লেভানডফস্কিছবি: ইনস্টাগ্রাম

বায়ার্ন মিউনিখ ছেড়ে বার্সেলোনায় যোগ দেওয়া নিয়ে আপাতত ব্যস্ত আছেন রবার্ট লেভানডফস্কি। ওদিকে তাঁর সাবেক এজেন্ট ও পোল্যান্ডের সাবেক স্ট্রাইকার সেজারি কুরখারস্কি ব্যস্ত আদালতের ঝামেলা সামলানো নিয়ে।

কারণ? পোল্যান্ডের সংবাদ সংস্থা পোলিশ নিউজ এজেন্সি (পিএপি) জানিয়েছে, লেভানডফস্কিকে ব্ল্যাকমেলের অভিযোগে কুরখারস্কির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছে ওয়াশো কৌঁসুলিদের অফিস। লেভার দাম্পত্য জীবনের স্পর্শকাতর কিছু তথ্য ফাঁস করে দেওয়ার ভয় দেখিয়েছিলেন কুরখারস্কি।

আরএমসি স্পোর্ট জানিয়েছে, ‘কর দেওয়া নিয়ে তাঁদের (লেভানডফস্কি ও তাঁর স্ত্রী) আইন ভাঙা’ ফাঁস করে দেওয়ার হুমকি দিয়েছিলেন কুরখারস্কি। এর বিনিময়ে লেভার কাছে দুই কোটি ইউরো দাবি করেছিলেন ২০০৭ সালে অবসর নেওয়া কুরখারস্কি। ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত লেভার এজেন্ট হিসেবে কাজ করেছেন সাবেক এই খেলোয়াড়।

লেভার এজেন্ট ছিলেন সেজারি কুরখারস্কি
ছবি: টুইটার

স্কাই স্পোর্টস জানিয়েছে, ২০২০ সালের আগস্ট থেকে সেপ্টেম্বরের মধ্যে লেভানডফস্কির কর দেওয়ার কাগজপত্র এবং তাঁর কিছু বিজ্ঞাপনী চুক্তির তথ্য এক বিদেশি সংবাদকর্মীর হাতে তুলে দিয়েছিলেন কুরখারস্কি। একজন পেশাদার হিসেবে কুরখারস্কি এই কাজ করে চুক্তি ভেঙেছেন। তবে তিনি এখানেই থামেননি।

লেভাকে চাপে রাখতে আইনি সাহায্য নেওয়ার হুমকিও দেন। মোট কথা, বায়ার্ন তারকার ভাবমূর্তি নষ্টের চেষ্টা করেছেন কুরখারস্কি।

কৌঁসুলিরা অভিযোগ গঠনের পর পোলিশ পুলিশ অভিযান চালায় কুরখারস্কির বাসায়। পুলিশ তাঁর কম্পিউটার জব্দ করে ব্ল্যাকমেলের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত নথিপত্রের হদিস পেয়েছে। যে বিদেশি সংবাদকর্মীর হাতে লেভার কিছু গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র তুলে দিয়েছিলেন কুরখারস্কি, তাঁকেও হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল।

আরও পড়ুন

কিন্তু সূত্রের পরিচয় প্রকাশ না করা এবং সূত্রকে রক্ষা করার শর্তে আদালতে সাক্ষী দিতে অপারগতা প্রকাশ করেছেন সেই সংবাদকর্মী।

২০০৮ সালে লেভা পোল্যান্ডের ঘরোয়া ফুটবলে খেলাকালে তাঁর এজেন্টের দায়িত্ব নেন কুরখারস্কি। ১০ বছর এই দায়িত্ব পালনের পর ২০১৮ সালে দুজনের পথ আলাদা হয়। এর পর থেকে লেভার এজেন্ট পিনি জাহৃভি।