বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ম্যাচের ১৪ মিনিটেই লেভানডফস্কির গোলে এগিয়ে যায় বায়ার্ন। বরফস্নাত পরিবেশে যেভাবে অসাধারণ বাইসাইকেল কিকে দলকে এগিয়ে দিয়েছে, তা ফুটবলপ্রেমীদের মনে থাকবে অনেকদিন। এ নিয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগে টানা নয় ম্যাচে গোল পেলেন লেভানডফস্কি। ক্যারিয়ারে এই নিয়ে দুবারের মতো এই কীর্তি গড়লেন তিনি।

চ্যাম্পিয়নস লিগে এই নিয়ে মাত্র পাঁচটা ম্যাচ খেলেছে বায়ার্ন, এর মধ্যেই নয়টা গোল আর একটা গোলে সহায়তা করে ফেলেছেন এই পোলিশ স্ট্রাইকার।

দ্বিতীয় গোলটা এসেছে কিংসলে কোমানের পা থেকে। ৪২ মিনিটে। আরেক ফরাসি মিডফিল্ডার করেনতাঁ তোলিসোর পাসে ও জার্মান মিডফিল্ডার টমাস মুলারের দুর্দান্ত বুদ্ধিদীপ্ততায় বল চলে যায় কোমানের পায়ে, যিনি দ্বিগুণ করেন ব্যবধান।

তবে নিজেদের মাঠে দ্বিতীয়ার্ধে ম্যাচের রাশ নিজেদের হাতে টেনে নেয় কিয়েভ। যার সুফল ৭০ মিনিটে পেয়েও যায়, গারমাশের গোলের মাধ্যমে। দ্বিতীয়ার্ধে বুনা সার, মার্ক রোকা ও ওমর রিচার্ডসের মতো খেলোয়াড়দের নামিয়ে যেন আরও উলটো বাজে খেলা শুরু করে বায়ার্ন। শেষমেশ বিপদ হয়নি, পূর্ণ তিন পয়েন্ট নিয়েই মাঠ ছেড়েছে দলটা।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন