default-image
>প্রিমিয়ার লিগ ফুটবলে শেখ রাসেলের বিপক্ষে ৩-০ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব। এবারের মৌসুমে রাসেলের এটি সবচেয়ে বড় পরাজয়।

একই দিনে শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রকে বড় দুইটি শিক্ষা উপহার দিয়েছে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব। প্রথমত ভুলে যাওয়া হারের স্বাদ ও দ্বিতীয়ত বড় ব্যবধানের হার।

এবারের মৌসুমে একটা বিষয় প্রমাণিত, শেখ রাসেলের বিপক্ষে গোল করা খুব কঠিন কাজ। আজকের আগে ১৫ ম্যাচে মোট ৮ গোল হজম করা তারই প্রমাণ। কিন্তু আজ তাদের রক্ষণভাগের তালা খুলে দিয়ে ৩-০ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে সাইফ। লিগে এটি রাসেলের দ্বিতীয় পরাজয়। এর আগে তাদের প্রথম ও একমাত্র পরাজয়টি ছিল মার্চে বসুন্ধরার বিপক্ষে ১-০ গোলে।

পয়েন্ট তালিকার তিন আর চারের লড়াইয়ে সাইফ স্পোটিং ৩-০ গোলে জিতবে ভাবা যায়নি। তারওপর ম্যাচটা ছিল শেখ রাসেলের হোম ভেন্যু সিলেট স্টেডিয়ামে। কিন্তু কোথায় কী! মনেই হয়নি পয়েন্ট তালিকার তিনে থাকা শেখ রাসেল নিজেদের মাঠে খেলছে। অ্যাওয়ে ম্যাচে আসলে বরাবরই ভালো সাইফ। এই লিগে শুধু বসুন্ধরা কিংসের কাছে ছাড়া বাকি সব অ্যাওয়ে ম্যাচেই জিতেছে তারা।

আজ সাইফ স্পোটিং তুলনামূলক গোছানো ফুটবল খেলে শেখ রাসেলকে গুঁড়িয়ে দিয়েছে। ৫৩ মিনিটে সাইফের প্রথম গোল উজবেক মিডফিল্ডার ওতাবেকের। ৬১ মিনিটে দ্বিতীয়টি এনে দেন রহিম উদ্দিন। ৭৯ মিনিটে পেনাল্টিতে ৩-০ করেন ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার সেলিন। এই জয়ে শেখ রাসেলকে সরিয়ে তৃতীয় স্থানে উঠে এল সাইফ। চারে শেখ রাসেল। তবে দুই দলেরই পয়েন্ট সমান ৩৬। শেখ রাসেল খেলেছে ১৬ ম্যাচ, সাইফ ১৭। গোলপার্থক্যে আপাতত এগিয়ে সাইফ।

দিনের অন্য ম্যাচে বাঙ্গুরার হ্যাটট্রিকে রহমতগঞ্জের বিপক্ষে ৫-২ গোলে জয় পেয়েছে নোফেল স্পোর্টিং ক্লাব। অবনমনের শঙ্কায় কাঁপছে যে নোফেল, তারাই আজ রহমতগঞ্জের জালে দিয়েছে ৫ গোল দিল! নোফেলের জার্সিতে অন্য দুইটি গোল করেছেন কামরুল ইসলাম ও জমির উদ্দিন।

নোয়াখালী শহীদ ভুলু স্টেডিয়াম আজ দেখেছে প্রিমিয়ার লিগে ৭ গোলের এই রোমাঞ্চকর ম্যাচটি। নিজেদের হোম ভেন্যুর বাড়তি সুবিধা কাজে লাগিয়ে নোফেল মহামূল্যবান তিনটি পয়েন্ট ঘরে তুলেছে। যা অবনমন এড়ানোর লড়াইয়ে কিছুটা এগিয়ে দিয়েছে নবাগত দলটিকে। ১৬ ম্যাচে ১৩ পয়েন্ট নিয়ে নোফেল চলে গেছে মোহামেডানের ওপরে। অবশ্য দুই দলেরই পয়েন্ট সমান। গোল পার্থক্যে নোফেল ১০-এ, মোহামেডান ১১। ব্রাদার্স ১০ ও বিজেএমসির পয়েন্ট ৮। ১৭ ম্যাচে ১৫ পয়েন্ট নিয়ে রহমতগঞ্জ ৯ নম্বরে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0