default-image

ম্যাচে বায়ার্ন ফেবারিট ছিল। সেটা খোদ বার্সেলোনা ভক্তরাও স্বীকার করে খেলা দেখতে বসেছিলেন। কিন্তু তাই বলে এভাবে গোলবন্যায় ভেসে যেতে হবে, ৮-২ গোলে হেরে বিদায় নেবে বার্সা, সেটা কি ঘুণাক্ষরেও কল্পনা করেছিলেন কেউ?

জার্মান গোল স্রোতে ভেসে গিয়েছে বার্সেলোনার সকল বাধা। গোটা নব্বই মিনিট অনিঃশেষ যন্ত্রণার মধ্যে দিয়ে কেটেছে মেসি-সুয়ারেজদের সময়। আট গোল খাওয়ার অভিজ্ঞতা যে এই দলটা ছিল না কখনো!

শুধু এই দল কেন? পুয়োল, রোনালদিনহো, রিকেলমে, রিভালদো, রোনালদো, রোমারিও, ক্রুইফ, স্টইচকভদের যুগেও এমন লজ্জায় পড়তে হয়নি ক্লাবটাকে। প্রতিপক্ষকে গোলবন্যায় ভাসিয়ে দিয়ে অভ্যস্ত মেসিরা এই ম্যাচে পেলেন গোলবন্যায় ভেসে যাওয়ার অচেনা স্বাদ। আর তাতেই ফিরে এল ৭৪ বছর আগের এক স্মৃতি।

৭৪ বছর আগে সেই ১৯৪৬ সালে বার্সেলোনা সর্বশেষ এমন যন্ত্রণার মধ্য দিয়ে গিয়েছিল। আট গোল হজম করার যন্ত্রণা। তবে সে ম্যাচটা কোন লিগ বা চ্যাম্পিয়নস লিগের ম্যাচ ছিল না। ছিল কোপা দেল রে এর ম্যাচ। প্রতিপক্ষ ছিল সেভিয়া। সেবার রাউন্ড অফ সিক্সটিনে আট গোল খেয়ে বিদায় নিয়েছিল কাতালান ক্লাবটা।

তবে মেসিরা একটা কথা ভেবে ‘সান্ত্বনা’ পেতে পারেন, আট গোল খেলেও এই ম্যাচে তারা দুই গোল দিতে পেরেছেন অন্তত। ওই ম্যাচে যে বার্সা একটা গোলও করতে পারেনি!

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0