করোনার মধ্যে বাড়িতে পার্টি করেছেন লিওনেল মেসি।
করোনার মধ্যে বাড়িতে পার্টি করেছেন লিওনেল মেসি। ছবি: রয়টার্স

দলের মধ্যে সংহতি বাড়ানোর অংশ হিসেবে বার্সেলোনার খেলোয়াড়েরা মাঝেমধ্যেই একত্র হন। নিজেরা মিলে মজা করেন, পার্টি করেন। এমনই একটি পার্টির আয়োজন করা হয়েছিল গত সোমবার। পার্টিটি অনুষ্ঠিত হয় দলের সবচেয়ে বড় তারকা লিওনেল মেসির বাড়িতে। কে জানে, দলীয় সংহতি বাড়ানোর চেষ্টা হিসেবে এই পার্টির পথ ধরে মেসির জন্য কী অপেক্ষা করছে!

মেসির বাড়িতে বার্সেলোনার খেলোয়াড়দের নিয়ে অনুষ্ঠিত এই পার্টির তদন্ত করবে কাতালান সরকার, আর লা লিগা কর্তৃপক্ষ এরই মধ্যে বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু করে দিয়েছে। তারা খতিয়ে দেখবে বারবিকিউ পার্টিতে যে সমাবেশ হয়েছে, সেটা কোভিড–১৯ আইনের পরিপন্থী কি না।

বিজ্ঞাপন
default-image

স্পেনের লা লিগায় ৩৪ রাউন্ড শেষে ৭৪ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে আছে বার্সেলোনা। সমান ম্যাচে সমান পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে রিয়াল মাদ্রিদ। আর আতলেতিকো মাদ্রিদ শীর্ষে আছে ৭৬ পয়েন্ট নিয়ে। লিগের এই অবস্থায় শেষ চারটি ম্যাচে সতীর্থেরা যেন আরও সুসংহত থাকেন এবং নিজেদের চাঙা রাখতে পারেন, সেই লক্ষ্যেই মেসির বাড়িতে আয়োজন করা হয়েছিল বারবিকিউ পার্টি।

কিন্তু সেই পার্টির কিছু ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ফাঁস হয়ে যায়। সেই ছবিগুলো চোখে পড়েছে কাতালান সরকার ও লা লিগার কর্তৃপক্ষের। কাতালান সরকার এরই মধ্যে ঘোষণা করেছে যে বিষয়টি জনস্বাস্থ্য বিভাগের হাতে। তবে লা লিগা কর্তৃপক্ষ কাল এ নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে।

করোনাভাইরাস মহামারির নিয়ম অনুযায়ী কাতালুনিয়াতে এ মুহূর্তে ৬ জনের বেশি মানুষ একত্র হতে পারবেন না। এই নিয়ম অন্তত ৯ মে পর্যন্ত বহাল থাকবে। কাতালুনিয়ার অস্থায়ী প্রেসিডেন্ট পেরে আরাগোনেস সেখানকার জনপ্রিয় ব্যক্তিদের প্রতি একটা আহ্বান জানিয়েছেন—নিজেরা আইন মেনে চলুন এবং নিজেদের উদাহরণ হিসেবে উপস্থাপন করুন।

default-image

মেসিদের পার্টি একপ্রকার কাতালুনিয়ার প্রেসিডেন্টের অনুরোধের খেলাপ। প্রেসিডেন্ট আরাগোনেস বলেছেন, ‘এটা নিয়ে যা করার প্রয়োজন, সেটাই করব। এই মুহূর্তে তদন্ত চলছে। আমি বলতে চাই, এটা শুধু আইন মেনে চলার বিষয়ই নয়। আমরা সবাইকে সচেতন করতে চাই। আমরা চাই যাদের পরিচিতি আছে, তারা যেন এটা কঠিনভাবে মেনে চলে। কারণ, তারা উদাহরণ হিসেবে কাজ করে।’

এর আগেও অনেক তারকা খেলোয়াড়ই করোনাভাইরাস মহামারির আইন ভেঙে হয় বাইরে ঘুরতে বেরিয়েছেন অথবা পার্টি করেছেন। এর জন্য কাউকে কাউকে জরিমানাও গুনতে হয়েছে। এখন দেখার বিষয় মেসিদের জমায়েত করোনার আইন ভেঙেছে কি না আর যদি ভেঙেই যায়, তাহলে কী পরিমাণ জরিমানা দিতে হয় মেসিকে!

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন