বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পরে নিজের দায়িত্ব কী কী, সাংবাদিকদের তার একটা ফিরিস্তি শুনিয়ে দিয়েছেন জিদান, ‘আগামীকালের ম্যাচ নিয়ে কথা বলার জন্য আমি এখানে এসেছি। তাই ওই ব্যাপারে প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করাই ঠিক হবে বলে আমার মনে হয়। আমি চাইলেই এ নিয়ে কথা বলতে পারতাম। কারণ, সবারই নিজস্ব মতামত আছে। কিন্তু আমি এ নিয়ে (ইউরোপিয়ান সুপার লিগ) কথা বলতে আসিনি। তাতে কিছু আসবে যাবে না। আমি এখানে এসেছি আগামীকালের ম্যাচ, লা লিগা, চ্যাম্পিয়নস লিগ—এগুলো নিয়ে কথা বলতে। বাকি প্রসঙ্গ নিয়ে কথা বলা আমার দায়িত্বের মধ্যে পড়ে না।’

default-image

এদিকে সুপার লিগ নিয়ে বেশ গ্যাঁড়াকলে পড়েছেন রিয়াল সভাপতি ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ। বিশ্বের শীর্ষ ১২ ক্লাব এই লিগে নাম লেখালেও গত রাতে নাটকীয়ভাবে এই লিগ থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করে নিয়েছে ছয় ইংলিশ ক্লাব—লিভারপুল, চেলসি, আর্সেনাল, ম্যানচেস্টার সিটি, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ও টটেনহাম হটস্পার। এখন যেখানে বিভিন্ন মিডিয়ায় গিয়ে সুপার লিগের লক্ষ্য, উদ্দেশ্য ও সুফল নিয়ে পেরেজের কথা বলার কথা, সেখানে আদৌ এই লিগ হয় কি না, সেটা নিয়ে চিন্তা করতে হচ্ছে বিদ্রোহী লিগের এই সভাপতিকে।

default-image

গতকালও স্প্যানিশ গণমাধ্যম এল চিরিঙ্গিতোতে গিয়ে ইউরোপিয়ান সুপার লিগ নিয়ে মুখ বড় করে অনেক কথা বলে এসেছিলেন পেরেজ। দিন শেষ হতে না হতেই সেই কথাগুলোকে হজম করেছেন। যদিও এখনো স্পেন ও ইতালির বাকি ছয় ক্লাব লিগ থেকে নাম প্রত্যাহার করেনি। কিন্তু ছয় ইংলিশ ক্লাবের সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা লিগটাকে এক অর্থে অর্থহীন করে দিয়েছে, এমনটা বলাই যায়।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন