default-image

নেইমারকে নিয়ে আলোচনা-সমালোচনার অভাব হয় না কখনোই। মাঠে থাকলে কথা হয় তাঁর খেলা নিয়ে, মাঠের বাইরের কর্মকাণ্ড নিয়েও আলোচনা কম হয় না।

পিএসজি–সমর্থকেরা তো এক কাঠি সরেস। ব্রাজিলিয়ান তারকার খেলায় তাঁরা যেমন মুগ্ধ, তেমনি তাঁর পেশাদারি মনোভাব নিয়েও প্রশ্ন তোলেন সমর্থকেরা। এবার নিজের ক্লাবের সমর্থকদেরই ধুয়ে দিলেন পিএসজি তারকা।

পিএসজি–সমর্থকদের নেইমারের প্রতি বিরক্তির কারণও আছে। ২০১৭ সালে বার্সেলোনা ছেড়ে ফরাসি ক্লাবটিতে যোগ দেন তিনি। কিন্তু এরপর থেকেই ক্যাম্প ন্যুর ক্লাবটিতে ফেরার চেষ্টা করেছেন। দলবদলের প্রতি মৌসুমেই এ নিয়ে কথা হয়েছে, হচ্ছে হয়তো সামনেও হবে।

এমন খেলোয়াড় দলের হয়ে যত গোলই করুন না কেন, সমর্থকেরা তাঁর প্রতি যে সেভাবে আস্থা রাখতে পারবেন না, সেটাই তো স্বাভাবিক। বিষয়টি অনেকটাই রবিঠাকুরের সেই চরণটির মতো—‘নদীর এপার কহে ছাড়িয়া নিশ্বাস,ওপারেতে সর্বসুখ আমার বিশ্বাস।”’

কোনো খেলোয়াড়ের মানসিকতা এমন হলে তাঁর পেশাদারি মনোভাব নিয়ে প্রশ্ন ওঠাই তো স্বাভাবিক।

বিজ্ঞাপন

যদিও এ মৌসুমে পরিস্থিতি কিছুটা হলেও বদলেছে। বার্সায় না ফিরে পিএসজিতে থেকে যাওয়ার কথা নিজেই বলেছেন নেইমার। এর পেছনে যে বার্সেলোনার প্রকট আর্থিক সমস্যাও একটা বড় কারণ, সেটা কিন্তু পিএসজি–সমর্থকেরাও জানেন।

আর জানেন বলেই তাঁরা মনে করতে পারেন, বার্সার আর্থিক অবস্থা খারাপ না হলে নেইমারের কণ্ঠে সুরটা ঠিক এমন থাকত না। সে যা–ই হোক, চোটের কারণে আপাতত মাঠের বাইরে নেইমার। চ্যাম্পিয়নস লিগ শেষ ষোলোয় বার্সার বিপক্ষে তাঁকে পায়নি পিএসজি। মাঠে ফেরার চেষ্টায় আপাতত নিজের পুনর্বাসনপ্রক্রিয়ার মধ্যে রয়েছেন নেইমার। আর এ সময়ই সমর্থকদের ওপর ক্ষোভ প্রকাশ করলেন তিনি।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে গত মঙ্গলবার একটি পোস্ট করেন নেইমার, ‘কিছুদিন আগে আমি নিজের প্রতিদিনের রুটিন, একদম শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত প্রকাশ করি। কিন্তু এমন একটা বার্তাও পাইনি যেখানে কেউ বলেছে “কী পেশাদার লোক, নিজের যত্ন নিচ্ছে।’’এমন একটা বার্তাও পাইনি।’

বার্সার দিনগুলোর চেয়ে পিএসজিতে তুলনামূলক বেশি চোট পড়ছেন নেইমার। বার্সায় চ্যাম্পিয়নস লিগে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচগুলোয় তাঁর উপস্থিতি ছিল শতভাগ।

কিন্তু পিএসজি নেইমারের কাছ থেকে একই সেবা পাচ্ছে না। নেইমার ফ্রান্সের ক্লাবটিতে যোগ দেওয়ার পর চ্যাম্পিয়নস লিগ নকআউটে এ পর্যন্ত ১০টি ম্যাচ খেলেছে পিএসজি। এর মধ্যে মাত্র ৬টি ম্যাচে তাঁকে পেয়েছে পার্ক দেস প্রিন্সেসের ক্লাবটি।

বেশির ভাগ সময়ই অনুপস্থিত থেকেছেন চোটের কারণে। এবার সর্বশেষ চোটের আগেও গত ফেব্রুয়ারিতে ‘অপেশাদার’ অপবাদ শুনতে হয়েছিল নেইমারকে। ফ্রেঞ্চ কাপে গত মাসে কায়েনের বিপক্ষে ম্যাচে চোট পান তিনি। এই চোটের পেছনে তাঁর নিজের বোনের জন্মদিন উদ্‌যাপনকেও দুষেছেন পিএসজি–সমর্থকেরা।

default-image

গত শুক্রবার পিএসজি কোচ মরিসিও পচেত্তিনো জানান, নেইমার দ্রুতই মাঠে ফিরবেন। সম্ভবত আগামী সপ্তাহে সতীর্থদের সঙ্গে অনুশীলন শুরু করবেন তিনি। গত সপ্তাহ থেকে ব্যক্তিগত অনুশীলন শুরু করেছেন নেইমার।

এতে তাঁর দ্রুতই মাঠে ফেরার সম্ভাবনা জাগলেও সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, আগামী সপ্তাহে চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলোর ফিরতি লেগেও নেইমারকে না পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি পিএসজির।

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন