বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

২০১৭ ফিফা বেস্ট পুরস্কারে তৃতীয় হওয়া কাস্তেলানোস মোট ২৪ ফুটবলারের সইসহ এ পোস্ট করেছেন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে, ‘গত বছর আমাদের এক সতীর্থ জানায়, সে ১৪ বছর বয়স থেকে কোচের হাতে যৌন হয়রানির শিকার হচ্ছে।’

অভিযোগ তোলা এই ফুটবলারের নাম প্রকাশ করা হয়নি। শুধু এতটুকু জানা গেছে, তিনি ২০১৪ সাল থেকে যৌন হয়রানির শিকার হয়েছেন।

default-image

বিবৃতিতে বলা হয়, ‘মেয়েদের ফুটবলে আর কেউ যেন এ ঘটনার শিকার না হয়, সে জন্য আমরা কোচ কেনেথ জেসেরেমেতার শারীরিক, মানসিক ও যৌন হয়রানি থামাতে মুখ খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

সে সতীর্থ মুখ খোলার পর আরও অনেকেই জেসেরেমেতার বিরুদ্ধে একই অভিযোগ তোলেন। বিবৃতিতে বলা হয়, ‘অনেক সতীর্থই নানা হয়রানি, আজেবাজে প্রশ্ন, দলে জায়গা নিয়ে ব্ল্যাকমেল, অশ্লীল খুদে বার্তা নিয়ে মুখ খুলেছে।’

খেলোয়াড়দের দাবি, সাবেক কোচের এমন আচরণের সঙ্গে কোচিং স্টাফও জড়িত, ‘আমরা অনেকেই এখনো মানসিক যন্ত্রণা কাটিয়ে উঠতে পারিনি।’

পানামায় জন্ম নেওয়া জেসেরেমেতা ২০০৮ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত ভেনেজুয়েলার বিভিন্ন পর্যায়ের নারী জাতীয় দলের কোচিং করিয়েছেন। দক্ষিণ আমেরিকার অনূর্ধ্ব–১৭ টুর্নামেন্ট জিতেছেন দুবার। বয়সভিত্তিক পর্যায়ের বিশ্বকাপে তিনবার চূড়ান্ত পর্বে খেলিয়েছেন ভেনেজুয়েলাকে।

default-image

২০১৭ সালে ভেনেজুয়েলা অনূর্ধ্ব–২০ দলের কোচ পদ থেকে ছাঁটাই হন জেসেরেমেতা। খেলোয়াড়েরা অপুষ্টিতে ভুগছেন, এই অভিযোগ তোলার কারণে কোচ পদে থাকতে পারেননি। আর্থিক সমস্যার কারণে তখন ভেনেজুয়েলায় খাদ্যসংকট চলছিল।

ভেনেজুয়েলা ছাড়ার পর তিনি ডমিনিকান প্রজাতন্ত্র ও পানামার ফুটবলে কাজ করেন। অভিযোগ তোলা খেলোয়াড়দের দাবি, ‘সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গ—ফিফা, কনফেডারেশনস, ফেডারেশন, লিগ— এই কোচকে যেন মেয়েদের ফুটবলে কাজ করতে না দেন।’

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন