ইয়ুর্গেন ক্লপ গত রাতে জানিয়েছেন, সুপার লিগ সংক্রান্ত ক্লাবের সিদ্ধান্তের সঙ্গে জড়িত ছিলেন না তিনি
ইয়ুর্গেন ক্লপ গত রাতে জানিয়েছেন, সুপার লিগ সংক্রান্ত ক্লাবের সিদ্ধান্তের সঙ্গে জড়িত ছিলেন না তিনিছবি : রয়টার্স

ফুটবল–বিশ্বকে কাঁপিয়ে দিয়েছে ইউরোপের এক ডজন নামীদামি ক্লাব। প্রতিষ্ঠিত ইউরোপিয়ান কোনো প্রতিযোগিতা নয়, বরং নিজেরা নিজেরা আলাদা একটা ইউরোপিয়ান টুর্নামেন্ট সৃষ্টি করে সেখানেই বছরের পর বছর ধরে খেলার প্রস্তুতি নিচ্ছে এই ১২ ক্লাব। এদের মধ্যে লিভারপুলও আছে। দলটার কোচ ইয়ুর্গেন ক্লপ গত রাতে জানিয়েছেন, ক্লাবের এই সিদ্ধান্তের সঙ্গে জড়িত ছিলেন না তিনি।

ইউরোপিয়ান সুপার লিগ নিয়ে ক্লাব-সমর্থকদের উষ্মা দেখেছে লিভারপুল। অনেক সমর্থকই এই করোনার বাধা উপেক্ষা করে মাঠের বাইরে সুপার লিগবিরোধী ব্যানার টাঙিয়ে এসেছেন, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তুলেছেন সমালোচনার ঝড়। যে মূলমন্ত্র নিয়ে ক্লাবটার সৃষ্টি, এমন জনবিমুখ সিদ্ধান্ত সে মূলমন্ত্রের ঘোরতর বিরোধী বলে মনে করছেন এসব সমর্থক। সব মিলিয়ে ক্লপ আর সমর্থকদের রাগের আগুনে ঘি ঢালতে চাননি।

বিজ্ঞাপন

ক্লপ অবশ্য ইউরোপিয়ান সুপার লিগের সমর্থক কোনোকালেই ছিলেন না। নিজের অবস্থানটাই আরেকবার পরিষ্কার করেছেন লিডস ইউনাইটেডের বিপক্ষে ম্যাচ শেষে। এই খবর বের হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সমর্থকদের সামলানোর ব্যাপারটা যে কঠিন হবে, সেটাও বুঝেছিলেন ক্লপ, ‘সুপার লিগ নিয়ে আমার মতামতের পরিবর্তন হয়নি কোনো। আমি যখন এ ব্যাপারে কাল প্রথম শুনলাম, আমি বুঝেছিলাম, আজকের ম্যাচটা বেশ ভালোই কঠিন হবে।’

আর দশজনের মতো ক্লপও এই ব্যাপারে বিস্তারিতভাবে জেনেছেন পত্রিকা পড়ে, ‘আমরা ব্যাপারটা সম্বন্ধে জেনেছি। খুব বেশি না হলেও জেনেছি। বেশির ভাগই জেনেছি পত্রিকা থেকে। কঠিন একটা সিদ্ধান্ত। সমর্থকেরা খুশি নন ব্যাপারটা নিয়ে। আমি বুঝি। এ ব্যাপারে আমি বেশি কিছু বলতে পারব না কারণ এই প্রক্রিয়ার সঙ্গে আমি যুক্ত ছিলাম না। দেখা যাক, সামনে কী হয়।’

চ্যাম্পিয়নস লিগ নিয়ে নিজের অনুরাগের ব্যাপারটাও এক ফাঁকে জানিয়ে রেখেছেন ক্লপ, ‘আমার বয়স ৫৩। পেশাদার ফুটবলের সঙ্গে আমি যত দিন ধরে জড়িত, তত দিন ধরে চ্যাম্পিয়নস লিগ চলছে। সব সময় চেয়েছি এই প্রতিযোগিতার কোনো দলকে কোচিং করাতে। আমার চ্যাম্পিয়নস লিগ নিয়ে কোনো সমস্যা নেই। টুর্নামেন্টের এই প্রতিযোগিতামূলক বিষয়টা বেশ ভালো লাগে আমার। এই যে ওয়েস্ট হাম চ্যাম্পিয়নস লিগে জায়গা পাওয়ার জন্য লড়ছে, এ ব্যাপারটাকেও আমি পছন্দ করছি। অবশ্যই আমি চাইব না তারা আমাদের টপকে চ্যাম্পিয়নস লিগে সুযোগ পেয়ে যাক কিন্তু তাদের সামনেও যে চ্যাম্পিয়নস লিগে খেলার সম্ভাবনার সৃষ্টি হয়েছে, এই ব্যাপারটাই দুর্দান্ত লাগছে আমার।’

default-image

ক্লপ বছর দুয়েক আগেও সুপার লিগ নিয়ে সমালোচনা করেছিলেন, ‘আশা করব এই সুপার লিগ যেন কখনো না হয়। যেভাবে ফুটবল চলছে এখন, সেটাই ভালো। চ্যাম্পিয়নস লিগ থেকে শুরু করে ইউরোপা লিগ, সবকিছুই ভালো। আমার কাছে চ্যাম্পিয়নস লিগই সুপার লিগ। কেন আমরা এমন একটা প্রক্রিয়া বানাব যেখানে টানা দশ বছর লিভারপুল রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে খেলবে? এমনটা কে দেখতে চায়?’

দুই বছর পর এখনো ক্লপের কাছে চ্যাম্পিয়নস লিগটাই ‘সুপার লিগ’।

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন