স্বপ্ন দেখা থামাননি বলেই 'ইতিহাস' মেসির

বিজ্ঞাপন
default-image

প্যারিসে কাল রাতে ব্যালন ডি’অর জিতে ইতিহাসই গড়েছেন লিওনেল মেসি। প্রথম ফুটবলার হিসেবে ষষ্ঠবার ব্যালন ডি’অর জিতলেন তিনি। এত দিন সমান পাঁচবার করে পুরস্কারটি জিতেছিলেন মেসি ও ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। কাল চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীকে পেছনে ফেললেন বার্সেলোনা তারকা। রোনালদো ব্যালন ডি’অর অনুষ্ঠানে ছিলেন না। লিভারপুল ও ডাচ ডিফেন্ডার ভার্জিল ফন ডাইকের পর তৃতীয় হয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে রোনালদোকে।

২০৮-১৯ মৌসুমে দেশ ও ক্লাবের হয়ে ৫৪ গোল করেন মেসি। বার্সা জিতিয়েছেন লা লিগাও। গত মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগজয়ী লিভারপুলের ফন ডাইক ভোটে দ্বিতীয় হন। ভোট তালিকায় শীর্ষ সাতে রয়েছেন লিভারপুলের চার ফুটবলার। ২০১৫ সালের পর প্রথম বর্ষসেরার এ পুরস্কার জিতলেন মেসি। গতবার ব্যালন ডি’অর জয়ী লুকা মদরিচের কাছ থেকে ট্রফিটা বুঝে নেন তিনি। গত ১১ বছর ধরে লা লিগার খেলোয়াড়েরাই জিতছেন ব্যালন ডি’অর। রিয়াল মাদ্রিদ মিডফিল্ডার গতবার মদরিচ জিতে মেসি-রোনালদোর এক দশকের আধিপত্যের অবসান ঘটান।

>

ষষ্ঠবারের মতো ব্যালন ডি’অর জিতলেন লিওনেল মেসি। আরও অনেক দিন খেলে যেতে চান বার্সেলোনা তারকা

‘ফ্রান্স ফুটবল’ সাময়িকীর দেওয়া বর্ষসেরার এ ট্রফি জয়ের পর মেসি বলেন, ‘এটা আমার ষষ্ঠ ব্যালন ডি’অর। সম্পূর্ণ অন্যরকম মুহূর্ত। আমার স্ত্রী বলে, কখনো স্বপ্ন দেখা থামিও না এবং কঠোর পরিশ্রম করো ও উপভোগ করো। আমি ভাগ্যবান। আরও অনেক দিন খেলে যেতে চাই। যদিও একদিন অবসর নিতেই হবে। এটা কঠিন হবে।’

৩২ বছর বয়সী মেসি কবে অবসর নিতে পারেন এ নিয়ে আলোচনাটা এখন উঠছে। তবে বার্সা সমর্থকদের আশ্বস্ত করলেন আর্জেন্টাইন তারকা, ‘ক্লাবের সবাই আমাকে জানে। এই ক্লাব নিয়ে আমার অনুভূতি (চুক্তিপত্র) সই কিংবা যেকোনো ভূমিকা ছাপিয়ে যায়। তাই কোনো সমস্যা নেই। অনেক আগেই বলেছি শরীরের সায় দেওয়ার ওপর সবকিছু নির্ভর করছে। তবে এখন শারীরিক ও মানসিকভাবে খুব ভালো লাগছে। আশা করি আরও অনেক দিন খেলতে পারব।’

রোনালদোর অনুপস্থিতি নিয়েও কথা বলেন মেসি। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর না থাকাকে ইস্যু বানিয়ে আলোচনার খোরাক বানাতে চান না তিনি, ‘সে পারেনি বলেই আসেনি। এটা আলোচনার বিষয়বস্তু বানানো ঠিক হবে না।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন