বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ক্যানসারের (মলাশয়ের টিউমার) সঙ্গে বেশ আগে থেকেই লড়াই করছেন পেলে। চিকিৎসার জন্য প্রতি মাসেই তাঁকে চিকিৎসকদের শরণাপন্ন হতে হয়। এবার কিছু পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন পেলে।

তাঁকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ‍) ভর্তির প্রয়োজন পড়েনি। স্বাস্থ্য বিভাগের সাধারণ কামরাতেই চিকিৎসা নিয়েছেন পেলে, জানিয়েছে ব্রাজিলের সংবাদমাধ্যম ‘ল্যান্স’।

default-image

সাবেক এই ফুটবলারের ‘শারীরিক অবস্থা এখন ভালো’ বলে জানানো হয় হাসপাতালের বিবৃতিতে, ‘এডসন অরান্তেস দো নাসিমেন্তোকে বৃহস্পতিবার আলবার্ট আইনস্টাইন হাসপাতাল থেকে ছাড়া হয়েছে। তিনি শারীরিকভাবে ভালো অবস্থায় আছেন।’ পেলের ঘনিষ্ঠ সূত্র মারফত ‘ল্যান্স’ জানিয়েছে, মলাশয়ের ক্যানসারের চিকিৎসা ছাড়া এ মুহূর্তে পেলের অন্যান্য শারীরিক সমস্যা নিয়ে তেমন ভাবনা নেই।

গত সেপ্টেম্বরে অস্ত্রোপচার করে পেলের মলাশয়ের টিউমার অপসারণ করা হয়। তখন মাসখানেক হাসপাতালের পর্যবেক্ষণে ছিলেন। এর পর থেকেই হাসপাতালে যাওয়া-আসার মধ্যে আছেন। টিউমার অপসারণের পর তাঁর কেমোথেরাপি লাগবে বলে জানিয়েছিল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

বয়স বাড়ার সঙ্গে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে স্বাস্থ্যগত বেশ কয়েকটি সমস্যার ভেতর দিয়ে যেতে হচ্ছে সর্বকালের অন্যতম এই ফুটবলারকে। এর আগে করা অস্ত্রোপচারের কারণে অন্য কারও সহায়তা ছাড়া চলাফেরা করা কঠিন হয়ে উঠেছে তাঁর জন্য। গত ফেব্রুয়ারিতে মূত্রাশয়ে সংক্রমণের চিকিৎসা করাতে হাসপাতালে প্রায় দুই সপ্তাহ থাকতে হয় পেলেকে।

২০১৪ সালেও মূত্রাশয়ের সংক্রমণে ভুগেছেন পেলে। সে বছর কিডনিতেও ডায়ালাইসিস করান এবং কোমরের সমস্যায় ভুগেছেন। ২০১৯ সালে অস্ত্রোপচার করে কিডনির পাথর অপসারণ করান।

এই অস্ত্রোপচারের আগে প্যারিসে পাঁচ দিন হাসপাতালে ভর্তি থাকতে হয় সান্তোস ও নিউইয়র্ক কসমস মাতানো ফুটবলারকে। তখনো মূত্রাশয়ের সমস্যায় ভুগছিলেন তিনি। গত জানুয়ারিতে পেলেকে নিয়ে দুঃসংবাদ জানিয়েছিল সংবাদমাধ্যম ইএসপিএন—তাঁর যকৃতে টিউমার ধরা পড়েছে এবং ফুসফুসেও আরেকটি টিউমার বেড়ে উঠছে।

তখন ইএসপিএনের এ খবর স্বীকার কিংবা অস্বীকার করেননি পেলের বাণিজ্যিক ব্যবস্থাপক। হাঁটতে অসুবিধা হওয়ায় এর আগে কোমরে অস্ত্রোপচারও করিয়েছেন পেলে।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন