বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সেদিন এম্পোলির বিপক্ষে ৪-২ গোলে জিতে ইন্টার শীর্ষে উঠে গেলেও আজ নিজেদের শীর্ষস্থান আবারও পুনরুদ্ধার করেছে এসি মিলান। হেল্লাস ভেরোনার বিপক্ষে এক গোলে পিছিয়ে পড়েও পরে জিতেছে ৩-১ গোলে। ৩৬ ম্যাচ শেষে ইন্টার আর এসি মিলানের পয়েন্ট ব্যবধান মাত্র দুই। ওদিকে তিন ম্যাচ হাতে থাকা সিটি-লিভারপুলের মধ্যকার পয়েন্ট ব্যবধান তিন। এখন আপনিই বলুন, কোন শিরোপার লড়াই বেশি রোমাঞ্চ ছড়াচ্ছে!

দাভিদে ফারাওনির গোলে ৩৮ মিনিটেই নিজেদের মাঠে আজ এগিয়ে যায় হেল্লাস। পিছিয়ে পড়েও মনোবল হারায়নি এসি মিলান। প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ের তৃতীয় মিনিটে পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড রাফায়েল লিয়াওর সহায়তায় দলকে সমতায় ফেরান ইতালিয়ান মিডফিল্ডার সান্দ্রো তোনালি।

default-image

শুধু সমতায় ফেরানোই নয়, দলকে এগিয়ে দেওয়ার কাজটাও এই তোনালিই করেছেন। ৪৯ মিনিটে তোনালিকে দিয়ে আবারও গোল করিয়েছেন রাফায়েল লিয়াও।

২-১ গোলে এগিয়ে থেকেও যেন ঠিক স্বস্তিতে ছিল না এসি মিলান। হুট করে গোল হজম করে পয়েন্ট খোয়ানোর একটা ভয় ছিলই। সেই ভয় থেকে মিলানকে মুক্তি দেন আরেক মিডফিল্ডার আলেসসান্দ্রো ফ্লোরেঞ্জি। ৮৬ মিনিটে এএস রোমার সাবেক এই মিডফিল্ডারের গোলে স্কোরলাইন ৩-১ হয়ে যায়। আর তাতেই নিশ্চিত হয়, পুরো তিন পয়েন্ট নিয়েই মাঠ ছাড়ছে মিলান।

default-image

সেই ১১ বছর আগে থিয়াগো সিলভা, ইব্রাহিমোভিচ, আন্দ্রেয়া পিরলোদের নিয়ে এসি মিলানকে সর্বশেষ লিগ শিরোপা জিতিয়েছিলেন মাসিমিলিয়ানো আলেগ্রি। ১১ বছর পর মিলানকে কি আরেকটা লিগ জয়ের আনন্দে ভাসাতে পারবেন কোচ স্তেফানো পিওলি? আর দুই ম্যাচ পরই জবাব জানা যাবে!

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন