আগুয়েরোর সঙ্গে আরেক স্ট্রাইকার গ্যাব্রিয়েল জেসুস ও সেন্টারব্যাক জন স্টোনসের গোল মিলিয়ে ফুলহামকে ৩-০ গোলে হারিয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি।
আগুয়েরোর সঙ্গে আরেক স্ট্রাইকার গ্যাব্রিয়েল জেসুস ও সেন্টারব্যাক জন স্টোনসের গোল মিলিয়ে ফুলহামকে ৩-০ গোলে হারিয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি। ছবি : রয়টার্স

কিছুদিন পরেই প্রিয় ক্লাবের সঙ্গে চুক্তি শেষ হয়ে যাচ্ছে। ক্লাবও তাঁর সঙ্গে চুক্তি নবায়ন করার জন্য অতটা আগ্রহী নয়, বোঝাই যাচ্ছে। ফলে সের্হিও আগুয়েরো যে আগামী মৌসুমে সিটিতে থাকছেন না, এটা একরকম নিশ্চিত। সম্ভাব্য গন্তব্যের জায়গায় এর মধ্যেই বার্সেলোনার নাম উঠে আসছে জোরেশোরে।

কিন্তু এ সবকিছুই আগামী জুনে ঘটতে যাওয়া সম্ভাব্য ঘটনা। এখন তো আগুয়েরো সিটিরই খেলোয়াড়। সিটিকে লিগ চ্যাম্পিয়ন করার জন্য আর দশটা খেলোয়াড়ের মতো আগুয়েরোও বদ্ধপরিকর, যার প্রমাণ মিলল গত রাতে। আগুয়েরোর সঙ্গে আরেক স্ট্রাইকার গ্যাব্রিয়েল জেসুস ও সেন্টারব্যাক জন স্টোনসের গোল মিলিয়ে ফুলহামকে ৩-০ গোলে হারিয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি। আর তাতেই শিরোপার আরেকটু কাছে চলে গিয়েছে পেপ গার্দিওলার দল।

বিজ্ঞাপন

আগুয়েরোর সঙ্গে সিটি যে চুক্তি নবায়ন করতে চাইছে না, তাঁর পেছনে কারণও আছে। মূল কারণ অবশ্যই আগুয়েরোর বয়স। বর্ষীয়ান স্ট্রাইকারের জায়গায় আর্লিং হরলান্ড কিংবা লাওতারো মার্তিনেজকে আগামী মৌসুমে দলে টানার ইচ্ছা সিটির। আরেকটা কারণ আগুয়েরোর চোটপ্রবণতা। যে কারণে আগুয়েরো চলতি মৌসুমে ম্যাচ একদম খেলতেই পারছেন না। গত রাতেই যেমন, ১৪ মাস পর লিগে প্রথম গোলের দেখা পেলেন। তাঁর আগে জেসুস আর স্টোনসের গোল মিলিয়ে সিটির জন্য রাতটা ভালোই কেটেছে।

প্রথম থেকে ফুলহাম অবশ্য বেশ ভালোই খেলা শুরু করেছিল। সিটি যে এত শক্তিশালী একটা দল, সম্ভাব্য চ্যাম্পিয়ন, তাঁদের সঙ্গে খেলতে নামলে একটু রয়েসয়ে খেলতে হবে, ফুলহাম ওসব মানেনি শুরুর দিকে। দুই উইঙ্গার আদেমোলা লুকমান আর ইভান কাভালেইরোকে স্ট্রাইকার বানিয়ে তাঁদের ক্রমাগত মুভমেন্টের মাধ্যমে সিটির সেন্টারব্যাকদের ‘বিরক্ত’ করার একটা পরিকল্পনা নিয়েছিলেন কোচ স্কট পার্কার। পেপ গার্দিওলাও এই মৌসুমের নিয়মিত পারফর্মার ফিল ফডেন, কেভিন ডি ব্রুইনা, ইলকায় গুন্দোয়ান, রহিম স্টার্লিংদের মতো তারকাদের বাদ দিয়ে মূল একাদশ সাজিয়েছিলেন।

default-image

১৭ মিনিটে স্প্যানিশ উইঙ্গার ফেরান তোরেসের একটি শট আটকে দেন ফুলহামের ফরাসি গোলরক্ষক আলফঁস আরেওলা। ৩৪ মিনিটে পর্তুগিজ উইঙ্গার বের্নার্দো সিলভার একটা শট একইভাবে আটকে দলকে বাঁচান রিয়াল মাদ্রিদ ও পিএসজির সাবেক এই গোলকিপার। ৪৫ মিনিটেই গোল পেয়ে যেতেন আগুয়েরো, এ যাত্রায় ফুলহামকে আবারও বাঁচান আরেওলা। প্রথমার্ধ কাটে গোলশূন্য।

দ্বিতীয়ার্ধে দলকে আর রক্ষা করতে পারেননি আরেওলা। দ্বিতীয়ার্ধ শুরুর প্রায় সঙ্গে সঙ্গে ফ্রি-কিক পায় সিটি। পর্তুগিজ রাইটব্যাক জোয়াও ক্যানসেলোর ফ্রি-কিকে ইংলিশ সেন্টারব্যাক জন স্টোনস পা ছুঁইয়ে এগিয়ে দেন দলকে। বলের ফ্লাইট বুঝতেই পারেননি আরেওলা। ৫২ মিনিটে স্প্যানিশ ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার রদ্রির একটা শট আবারও আটকে দেন আরেওলা। ৫৬ মিনিটে দুর্দান্ত ব্রাজিলিয়ান একঝলকে আরেওলাকে কাটিয়ে গোল করেন জেসুস। ৬০ মিনিটে সিটিরই সাবেক ডিফেন্ডার তোসিন আদারাবিওরো পেনাল্টি বক্সে অন্যায়ভাবে ফেলে দেন তোরেসকে। সেখান থেকে পাওয়া পেনাল্টিতে গোল করে ১৪ মাস পর লিগে নিজের প্রথম গোল তুলে নেন আগুয়েরো।

বিজ্ঞাপন

৩০ ম্যাচে ৭১ পয়েন্ট হয়ে গেল সিটির। দ্বিতীয় স্থানে থাকা ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের পয়েন্ট ৫৩, যদিও তারা দুটি ম্যাচ কম খেলেছে। তাতে কী, সিটি যদি বাকি আট ম্যাচে আর ১৩ পয়েন্ট জোগাড় করে ফেলতে পারে, শিরোপা যাবে তাদের ঘরেই।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন