বিজ্ঞাপন
default-image

জুনে বাছাইপর্বে আর্জেন্টিনার দুই ম্যাচ চিলি ও কলম্বিয়ার বিপক্ষে। এ দুই ম্যাচের দলে গোলকিপার হিসেবে ইউরোপ থেকে স্কালোনি দলে নিয়েছেন ইংল্যান্ডের দল অ্যাস্টন ভিলার গোলকিপার এমিলিয়ানো মার্তিনেজ, পর্তুগালের ক্লাব পোর্তোর অগুস্তিন মার্চেসিন ও ইতালির ক্লাব উদিনেসের হুয়ান মুসোকে।

রক্ষণে নেদারল্যান্ডসের ক্লাব আয়াক্সের লেফটব্যাক নিকোলাস তাগলিয়াফিকো ও সেন্টারব্যাক লিসান্দ্রো মার্তিনেজ (যিনি ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডেও খেলেন), ইতালির ক্লাব ফিওরেন্তিনার দুই সেন্টারব্যাক জের্মান পেৎসেল্লা ও লুকাস মার্তিনেজ কুয়ার্তা, আতালান্তার সেন্টারব্যাক হোসে লুইস পালোমিনো ও ক্রিস্টিয়ান রোমেরো, উদিনেসের রাইটব্যাক নাহুয়েল মলিনা, পর্তুগালের বেনফিকার সেন্টারব্যাক নিকোলাস ওতামেন্দি, ও স্প্যানিশ ক্লাব ভিয়ারিয়ালের সেন্টারব্যাক হুয়ান ফয়েথ।

মাঝমাঠে স্পেনের ক্লাব সেভিয়ার মার্কোস আকুনিয়া, ইংল্যান্ডের দ্বিতীয় বিভাগের ক্লাব নরউইচ সিটির এমিলিয়ানো বুয়েন্দিয়া, উদিনেসের রদ্রিগো দি পল, ইতালির ক্লাব বোলোনিয়ার নিকোলাস দমিঙ্গেস, টটেনহামের জিওভান্নি লো সেলসো, স্প্যানিশ ক্লাব রিয়াল বেতিসের গিদো রদ্রিগেজ, জার্মান ক্লাব বায়ার লেভারকুসেনের এজেকিয়েল পালাসিওস, ফরাসি ক্লাব পিএসজির লিয়ান্দ্রো পারেদেস ও জার্মানির স্টুটগার্টের নিকোলাস গঞ্জালেস।

default-image

আক্রমণে স্প্যানিশ ক্লাব বার্সেলোনার লিওনেল মেসি, ইংল্যান্ডের ম্যানচেস্টার সিটির সের্হিও আগুয়েরো, জার্মানির লেভারকুসেনের লুকাস আলারিও, স্পেনের আতলেতিকো মাদ্রিদের আনহেল কোরেয়া, ইতালির লাৎসিওর হোয়াকিন কোরেয়া, পিএসজির আনহেল দি মারিয়া, স্প্যানিশ ক্লাব সেভিয়ার আলেহান্দ্রো গোমেজ ও লুকাস ওকাম্পোস, ইতালিয়ান ক্লাব ইন্টার মিলানের লওতারো মার্তিনেজ।

এর আগে গত পরশু ব্রাজিলের ঘোষিত ২৪ জনের দলে নেইমার, ফিরমিনো, ভিনিসিয়ুস জুনিয়র, ফাবিনিও, কাসেমিরো, ফ্রেড, দানি আলভেজ, আলিসন, এদেরসন, থিয়াগো সিলভা, মারকিনিওস, এদের মিলিতাও, আলেক্স সান্দ্রো, রেনান লোদিসহ পরিচিত মুখগুলোর প্রায় সবাই-ই ছিলেন। জুনে ব্রাজিলের দুই ম্যাচ ইকুয়েডর ও প্যারাগুয়ের বিপক্ষে।

২০২২ কাতার বিশ্বকাপ উপলক্ষে দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলের বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে এখন পর্যন্ত ৪ ম্যাচে ৪ জয় নিয়ে সবার ওপরে আছে ব্রাজিল (১২ পয়েন্ট)। ৪ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার দুই নম্বরে আর্জেন্টিনা। তিন নম্বরে থাকা ইকুয়েডরের পয়েন্ট ৯। যথাক্রমে চার ও পাঁচে থাকা প্যারাগুয়ে ও উরুগুয়ের পয়েন্ট সমান ৬, তবে গোলব্যবধানে এগিয়ে প্যারাগুয়ে। তালিকায় এর পরের পাঁচ দল যথাক্রমে চিলি (৪ পয়েন্ট), কলম্বিয়া (৪), ভেনেজুয়েলা (৩), পেরু (১) ও বলিভিয়া (১)।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন