বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

অ্যাথলেটিক বিলবাওয়ের বিপক্ষে কাল রাতে যেমন ম্যাচের ৪ মিনিটে টনি ক্রুসের পাসটা বেনজেমা পেলেন বক্সের মাথায়। দৌড়ের ওপরই চলতি বলে বেনজেমা যখন শট নিলেন তখন তাঁর শরীর এবং মুখ মাঠের ডান প্রান্তের দিকে তাক করা।

সরাসরি গোলপোস্টে তাকিয়ে শটটা নেননি ফরাসি তারকা, যেন আগেই জানতেন বিলবাও গোলকিপার ইউলেন আগিরেজাবালা পোস্টের মাঝে ঠিক কোথায় দাঁড়িয়ে এবং তাঁর বাঁ প্রান্তে ঠিক কতটুকু ফাঁকা জায়গা।

আশ্চর্য, বেনজেমার ডান পায়ের বাঁকানো শট সেই ফাঁকা জায়গা দিয়েই আশ্রয় নিল জালে! পেশাদার খেলোয়াড় হিসেবে নিজের ৪০০তম গোল স্মরণীয় করে রাখতে এর চেয়ে ভালো শট আর কী হতে পারে!

বিলবাওয়ের মাঠে কাল রাতে ২-১ গোলে জিতেছে রিয়াল। সবগুলো গোলই হয়েছে ম্যাচের ১০ মিনিটের মধ্যে। ৪ মিনিটে বেনজেমার গোলে রিয়াল এগিয়ে যাওয়ার ৩ মিনিট পরই ব্যবধান দ্বিগুণ করে কার্লো আনচেলত্তির দল। সে গোলটিও বেনজেমার, বিলবাও ডিফেন্ডারের ভুলের সদ্ব্যবহার করে।

পেশাদার ক্যারিয়ারে এ নিয়ে ৪০১ গোল হয়ে গেল বেনজেমার। রিয়ালের জার্সিতে ৫৮২ ম্যাচে করেছেন ২৯৯ গোল, লিঁও-র হয়ে ১৪৮ ম্যাচে ৬৬ গোল এবং ফ্রান্সের হয়ে ৯৪ ম্যাচে ৩৬ গোল করলেন তিনি।

ফ্রান্সের ইতিহাসে দ্বিতীয় খেলোয়াড় হিসেবে পেশাদার ক্যারিয়ারে চার শ গোলের দেখা পেলেন বেনজেমা। ৪১১ গোল নিয়ে তাঁর ওপরে ফ্রান্স ও আর্সেনালের সাবেক ফরোয়ার্ড থিয়েরি অঁরি।

বেনজেমা এখন রিয়ালের ইতিহাসে চতুর্থ সর্বোচ্চ গোলদাতা (৫৮২ ম্যাচে ২৯৯ গোল)। ৩০৮ গোল নিয়ে তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কিংবদন্তি আলফ্রেডো ডি স্টেফানো। ২০০৯ সালের ২৯ আগস্ট রিয়ালের জার্সিতে অভিষেকের পর ৫ বছর ৫ মাস সময় নিয়ে শততম গোলের দেখা পান বেনজেমা। সেটি ২০১৪ সালের ১৮ জানুয়ারি রিয়াল বেতিসের বিপক্ষে।

এরপর ৪ বছর ১০ মাসের মধ্যে পেয়ে যান দ্বিশতক গোলের দেখা ( ৭ নভেম্বর, ২০১৮ ভিক্টোরিয়া প্লাজেনের বিপক্ষে)। তারপর তিন বছর এক মাসের কিছু বেশি সময় নিয়ে বেনজেমা এখন তিন শ গোলের মাইলফলক থেকে মাত্র এক গোল দূরত্বে দাঁড়িয়ে।

করোনাভাইরাসের কারণে নিয়মিত ৮ খেলোয়াড়কে এ ম্যাচে পায়নি রিয়াল। সাসপেন্ড থাকায় কাসেমিরোও ছিলেন মাঠের বাইরে। তবু সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে টানা ১৫ ম্যাচ অপরাজিত থাকার ধারা বজায় রেখে লিগ টেবিলে দ্বিতীয় দলের সঙ্গে ব্যবধানও বাড়াল শীর্ষে থাকা রিয়াল। ১৯ ম্যাচে ৪৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে থাকা রিয়ালের সঙ্গে ৮ পয়েন্ট ব্যবধানে পিছিয়ে দুইয়ে সেভিয়া ( ১৮ ম্যাচে ৩৮ পয়েন্ট)।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন