বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

জয়ের ব্যবধান ৪-০ না হয়ে আরও বড় হতে পারত। দুর্দান্ত ফর্মে থাকা সাদিও মান ও মোহাম্মদ সালাহই যে গোল পাননি আজ। এমন নয় যে গোলের সুযোগ সৃষ্টি হয়নি। কিন্তু দিয়োগো জোতা যেখানে গোলের সুযোগ কাজে লাগাতে দারুণ দক্ষতা দেখিয়েছেন, উল্টো দিকে স্বভাববিরুদ্ধ সব ভুল করেছেন মানে-সালাহ।

ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটেই এগিয়ে গেছে লিভারপুল। বাঁ প্রান্তে রবার্টসন ও সাদিও মানের ওয়ান-টুতে সাউদাম্পটন রক্ষণ বিভ্রান্ত হয়ে পড়ে। রবার্টসনের ক্রস থেকে সুযোগসন্ধানী জোতা এগিয়ে দেন দলকে। আধা ঘণ্টা পরই দলের অগ্রগামিতা দ্বিগুণ করেছেন জোতা। এবার অন্য ডান প্রান্তের ফুলব্যাক ও ডান উইঙ্গারের বোঝাপড়ার ফল পেয়েছেন জোতা। ট্রেন্ট আলেক্সান্ডার আরনল্ড ও সালাহ হয়ে বল যায় হেন্ডারসনের কাছে। প্রতিপক্ষের পায়ের ফাঁক দিয়ে সালাহর কাছে বল পাঠিয়ে দেন লিভারপুল অধিনায়ক। সালাহর পাস থেকে ফাঁকা গোলে বল পাঠাতে কোনো সমস্যা হয়নি পর্তুগিজ ফরোয়ার্ডের।

default-image

কিছু বুঝে ওঠার আগেই তৃতীয় গোল খেয়ে বসে সাউদাম্পটন। ৩৭ মিনিটে ডি-বক্সের বাইরে থাকা আচমকা এক শটে দলকে তৃতীয় গোল এনে দেন থিয়াগো। গত সপ্তাহে চ্যাম্পিয়নস লিগে পোর্তোর বিপক্ষে করা দুর্দান্ত সে গোলের কথা মনে করিয়ে দিয়েছিলেন স্প্যানিশ মিডফিল্ডার। ৩-০ গোলে প্রথমার্ধ শেষ করে লিভারপুল।
সাউদাম্পটন যে সুযোগ পাচ্ছিল না, এমন নয়। বেশ কয়েকবার আলিসনকে ফাঁকায় পেয়েছে দলটির ফরোয়ার্ডরা। কিন্তু শেষ মুহূর্তে স্নায়ুচাপ সামলাতে না পেরে সুযোগ নষ্ট করেছেন সবাই।

default-image

দ্বিতীয়ার্ধের খেলা শুরু হতে না হতেই চতুর্থ গোল পেয়ে যায় লিভারপুল। কর্নার থেকে আরনল্ডের কাছ থেকে বল পেয়েছিলেন সেন্টারব্যাক ভার্জিল ফন ডাইক। দলের অগ্রগামিতা আরও বাড়িয়ে নেন এই ডিফেন্ডার।

বাকি সময়েও বেশ কটি গোলের সুযোগ হাতছাড়া করেছে সালাহ-জোতা-মানে। ওদিকে সন্ধ্যায় আগের রাউন্ডে লিভারপুলের কাছে হারের দুঃখ ভুলেছে আর্সেনাল। ঘরের মাঠে পয়েন্ট তালিকার তলানির দল নিউক্যাসল ইউনাইটেডকে ২-০ গোলে হারিয়েছে মিকেল আরতেতার দল। দ্বিতীয়ার্ধে গোল দুটি করেছেন বুকায়ো সাকা ও গ্যাব্রিয়েল মার্তিনেল্লি। ১৩তম ম্যাচে পাওয়া সপ্তম জয়ে ২৩ পয়েন্ট হলো গানারদের। পয়েন্ট তালিকার পঞ্চম স্থানে দলটি।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন