বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বছরের শেষ ম্যাচটা জিতে দুই সপ্তাহের শীতকালীন বিরতি ভালোই উপভোগ করবে মাসিমিলিয়ানো আলেগ্রির দল। তবে আগামী বছর মাঠে ফিরে চ্যালেঞ্জ নিতে হবে কঠিন সূচির। জানুয়ারিতে নাপোলি, এএস রোমা ও এসি মিলানের মুখোমুখি হতে হবে জুভেন্টাসের। ১২ ফেব্রুয়ারি মুখোমুখি হতে হবে আতালান্তার।

ম্যাচের দুই অর্ধে দুটি গোল পায় জুভেন্টাস। ৪০ মিনিটে ময়েজ কিনের গোলে এগিয়ে যায় ‘তুরিনের বুড়ি’রা। হেডে গোল করেন তিনি। ৮৩ মিনিটে জোরাল শট থেকে ৪৩ ম্যাচ পর আরাধ্য গোলটি পান বেরনারদেশ্চি। জুভদের হয়ে সিরি ‘আ’-তে তাঁর সর্বশেষ গোল গত বছরের ২৬ জুলাই সাম্পদোরিয়ার বিপক্ষে। তখন জুভেন্টাসের কোচ মরিসিও সারি।

করোনাভাইরাসের কারণে লকডাউন শেষে লিগ কেবল শুরু হয়েছে। এরপর আন্দ্রে পিরলো কোচ হয়ে আসার পর পুরো মৌসুমে গোল পাননি বেরনারদেশ্চি।

তবে এ মৌসুমে বেরনারদেশ্চি কাল রাতে নিজের সেরা ম্যাচটাই খেলেছেন বলে মনে করেন জুভেন্টাস কোচ আলেগ্রি, ‘সে এখন পর্যন্ত মৌসুমের সেরা ম্যাচটা খেলেছে। কিন্তু এর চেয়েও ভালো করার ক্ষমতা আছে তার। এখন নিজেকে সে কোথায় রাখবে, সেটা তার সিদ্ধান্ত।’

পিরলো কোচ থাকতে তাঁর সঙ্গে সম্পর্কটা তেমন ভালো ছিল না বেরনারদেশ্চির। গুঞ্জন আছে, জুভেন্টাস তাঁকে ছেড়ে দিতে চায়।

default-image

চলতি মৌসুমে ১৮ ম্যাচে ৫টি গোল বানিয়ে দেওয়া বেরনারদেশ্চি ডিসেম্বরের শুরু থেকেই জুভেন্টাসের সেরা পারফরমারদের একজন। দুই সপ্তাহেরও কম সময়ের মধ্যে দলবদলের জন্য অন্য ক্লাবের সঙ্গে কথা বলার সুযোগ পেয়ে যাবেন তিনি।

সম্প্রতি এজেন্ট পাল্টালেও খেলোয়াড়টির পক্ষ থেকে কেউ কোনো ক্লাবের সঙ্গে যোগাযোগ করেনি বলে জানিয়েছে ইতালিয়ান সংবাদমাধ্যম।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন