default-image
>প্রিমিয়ার লিগে ৫ ম্যাচে মোট গোল হয়েছে ৭টি। একটি গোলও আসেনি বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের পা থেকে।

১৩ ফেব্রুয়ারি শুরু হয়েছে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ। প্রথম দিন ও কাল মিলে এখন পর্যন্ত ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছে পাঁচটি। আর সব মিলিয়ে গোল হয়েছে সাতটি। এর মধ্যে একটি গোলও আসেনি বাংলাদেশি ফুটবলারদের পা থেকে। অর্থাৎ সাতটি গোলই করেছেন বিদেশি খেলোয়াড়েরা। সর্বোচ্চ তিনটি গোল এসেছে নাইজেরিয়ান খেলোয়াড়ের পা থেকে। একটি করে গোল করেছেন কোস্টারিকা, আইভরি কোস্ট, উজবেকিস্তান ও রুয়ান্ডার খেলোয়াড়।

বসুন্ধরা কিংস ১-০ উত্তর বারিধারা : এই ম্যাচটি দিয়ে নীলফামারীতে শুরু হয়েছে প্রিমিয়ার লিগ। বসুন্ধরা কিংসের ১-০ গোলের জয়ে ম্যাচের একমাত্র গোলটি করেছেন কোস্টারিকার দানিয়েল কলিনদ্রেস। একের পর এক আক্রমণ করেও গোলের দেখা পাচ্ছিল না বসুন্ধরা । শেষ পর্যন্ত ৮৭ মিনিটে অধিনায়ক কলিনদ্রেসের গোল স্বস্তি দিয়েছে বসুন্ধরাকে।

শেখ জামাল ০-২ চট্টগ্রাম আবাহনী: এখন পর্যন্ত লিগের সবচেয়ে বড় জয় পেয়েছে চট্টগ্রাম আবাহনী লিমিটেড। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচে শেখ জামালকে ২-০ গোলে হারিয়েছে তারা। ৬০ মিনিটে চট্টগ্রাম আবাহনীর প্রথম গোলটি নাইজেরিয়ান স্ট্রাইকার চিনেদু ম্যাথিউয়ের। ৫ মিনিট পর ২-০ করেছেন আইভরি কোস্টের মিডফিল্ডার চার্লস দিদিয়ের।

শেখ রাসেল ১-১ ব্রাদার্স ইউনিয়ন: সিলেটে ব্রাদার্স ইউনিয়নের বিপক্ষে এগিয়ে গিয়েও ১-১ গোলে ড্র করেছে সাইফুল বারী টিটুর শেখ রাসেল। নাইজেরিয়ান স্ট্রাইকার রাফায়েল অনওরেবের গোলে ৩ মিনিটেই এগিয়ে গিয়েছিল শেখ রাসেল। ৫৯ মিনিটে দুর্দান্ত গোল করে ব্রাদার্সকে সমতায় ফিরিয়েছেন উজবেকিস্তানের ফরোয়ার্ড ওতাবেক।

সাইফ স্পোর্টিং ১-০ রহমতগঞ্জ মুসলিম ফ্রেন্ডস: রহমতগঞ্জকে ১-০ গোলে হারিয়ে লিগে শুভ সূচনা করেছে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব। ময়মনসিংহের রফিক উদ্দিন ভূঁইয়া স্টেডিয়ামে ৬৩ মিনিটে সাইফের রুয়ান্ডান ডিফেন্ডার এমেরি বাইসেঙ্গের নেওয়া ফ্রি কিক গোলরক্ষকের বাঁ পাশ দিয়ে ঢুকে যায় জালে।

আরামবাগ ০-১ মোহামেডান: নাইজেরিয়ান উগুচুকু ওবি মনিকের একমাত্র গোলে আরামবাগ ক্রীড়া সংঘকে হারিয়ে লিগে শুভ সূচনা করেছে মোহামেডান স্পোর্টিং লিমিটেড।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0